কোম্পানি সংবাদ

স্পট মার্কেটে যাচ্ছে তিন কোম্পানি

নিজস্ব প্রতিবেদক: রেকর্ড ডেটের কারণে স্পট মার্কেটে যাচ্ছে পূরবী জেনারেল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড, ওয়ান ব্যাংক লিমিটেড ও ন্যাশনাল ব্যাংক লিমেটেড। এ তিন কোম্পানির রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী রোববার। এর আগের দুই কার্যদিবস অর্থাৎ আজ ও আগামীকাল শেয়ার স্পট মার্কেটে লেনদেন হবে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
পূরবী জেনারেল ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড: ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ সমাপ্ত হিসাববছরে ১২ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। আলোচিত সময়ে ইপিএস হয়েছে এক টাকা পাঁচ পয়সা এবং এনএভি দাঁড়িয়েছে ১৩ টাকা পাঁচ পয়সা। ঘোষিত লভ্যাংশ বিনিয়োগকারীদের সম্মতিক্রমে অনুমোদনের জন্য আগামী ১৮ জুলাই বেলা ৩টায় বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে। এ জন্য রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ১৬ জুন। এদিকে গতকাল ডিএসইতে শেয়ারদর তিন দশমিক ৭৬ শতাংশ বা ৭০ পয়সা বেড়ে প্রতিটি সর্বশেষ ১৯ টাকা ৩০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল ১৯ টাকা ১০ পয়সা। দিনজুড়ে ২১ লাখ ৯০ হাজার ৯৮৩টি শেয়ার মোট ৯১৭ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর চার কোটি ১৭ লাখ ৩০ হাজার টাকা। দিনজুড়ে শেয়ারদর সর্বনিন্ম ১৮ টাকা ৬০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ১৯ টাকা ৩০ পয়সায় হাতবদল হয়। এক বছরে শেয়ারদর ১১ টাকা ৬০ পয়সা থেকে ২৩ টাকা ১০ পয়সার মধ্যে ওঠানামা করে।
এর আগে ২০১৭ সালের সমাপ্ত হিসাববছরে কোম্পানিটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ১২ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দিয়েছে। যা তার আগের বছর ছিল ১০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ। আলোচিত সময়ে কোম্পানিটি শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) করে এক টাকা ৫৯ পয়সা। আর শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়ায় ১৩ টাকা ৩৪ পয়সা। যা তার আগের বছর একই সময় ছিল যথাক্রমে এক টাকা ২০ পয়সা ও ১২ টাকা ৯৩ পয়সা। ওই সময় করপরবর্তী মুনাফা করে সাত কোটি ৮৫ লাখ টাকা। যা তার আগের বছর একই সময় ছিল পাঁচ কোটি ৪০ লাখ টাকা।
‘এ’ ক্যাটেগরির এ কোম্পানিটি ১৯৯৫ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়। ১০০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ৫৫ কোটি ৩০ লাখ ৫০ হাজার টাকা। কোম্পানিটির মোট পাঁচ কোটি ৫৩ লাখ পাঁচ হাজার ১৩৯টি শেয়ার রয়েছে। ডিএসই থেকে প্রাপ্ত সর্বশেষ তথ্যমতে মোট শেয়ারের ৩৪ দশমিক ৩৩ শতাংশ উদ্যোক্তা বা পরিচালক, প্রতিষ্ঠানিক ১৬ দশমিক ৪৪ শতাংশ এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে ৪৯ দশমিক ২৩ শতাংশ শেয়ার রয়েছে।
ওয়ান ব্যাংক: ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ সমাপ্ত হিসাববছরে ১০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। আলোচিত সময়ে ইপিএস হয়েছে এক টাকা ৮৪ পয়সা এবং এনএভি দাঁড়িয়েছে ১৮ টাকা ৯৪ পয়সা। ঘোষিত লভ্যাংশ বিনিয়োগকারীদের সম্মতিক্রমে অনুমোদনের জন্য আগামী ১ আগস্ট বেলা ১১টায় বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে। এ জন্য রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ১৬ জুন। এদিকে গতকাল ডিএসইতে শেয়ারদর দুই দশমিক চার শতাংশ বা ৩০ পয়সা বেড়ে প্রতিটি সর্বশেষ ১৫ টাকায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দরও ছিল ১৫ টাকা। দিনজুড়ে ১৩ লাখ ৮২ হাজার ৩৩৫টি শেয়ার মোট ২৩২ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর দুই কোটি ছয় লাখ ৬২ হাজার টাকা। দিনজুড়ে শেয়ারদর সর্বনিন্ম ১৪ টাকা ৬০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ১৫ টাকা ১০ পয়সায় হাতবদল হয়। এক বছরে শেয়ারদর ১৩ টাকা ৪০ পয়সা থেকে ১৯ টাকা ৫০ পয়সার মধ্যে ওঠানামা করে। ‘এ’ ক্যাটেগরির এ কোম্পানিটি ২০০৩ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়। এক হাজার কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ৭৬৬ কোটি ৫৩ লাখ ৪০ হাজার টাকা। কোম্পানিটির মোট ৭৬ কোটি ৬৫ লাখ ৩৩ হাজার ৬৮৪টি শেয়ার রয়েছে। ডিএসই থেকে প্রাপ্ত সর্বশেষ তথ্যমতে মোট শেয়ারের ৩০ দশমিক দুই শতাংশ উদ্যোক্তা বা পরিচালক, প্রতিষ্ঠানিক ১৬ দশমিক ২৯ শতাংশ, বিদেশি তিন দশমিক ৬৯ শতাংশ এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে ৫০ শতাংশ শেয়ার রয়েছে।
ন্যাশনাল ব্যাংক লিমিটেড: ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ সমাপ্ত হিসাববছরের জন্য ১০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। আলোচিত সময়ে শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে এক টাকা ৪৫ পয়সা এবং শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ১৬ টাকা ৭৭ পয়সা। যা আগের বছর একই সময় যথাক্রমে এক টাকা ৮১ পয়সা ও ১৭ টাকা দুই পয়সা ছিল। ঘোষিত লভ্যাংশ বিনিয়োগকারীদের সম্মতিক্রমে অনুমোদনের জন্য আগামী ২০ আগস্ট বেলা ১১টায় বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে। এ জন্য রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ১৬ জুন।
এদিকে গতকাল ডিএসইতে শেয়ারদর অপরিবর্তিত থেকে প্রতিটি সর্বশেষ ১০ টাকায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল ১০ টাকা ১০ পয়সা। দিনজুড়ে ৬৮ লাখ ৫৬ হাজার ১৮৩টি শেয়ার মোট ৮৫০ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর ছয় কোটি ৮৭ লাখ ২২ হাজার টাকা। দিনজুড়ে শেয়ারদর সর্বনিন্ম ৯ টাকা ৯০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ১০ টাকা ১০ পয়সায় হাতবদল হয়। এক বছরে শেয়ারদর আট টাকা ৫০ পয়সা থেকে ১২ টাকার মধ্যে ওঠানামা করে। ‘এ’ ক্যাটেগরির এ কোম্পানিটি ১৯৮৪ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়। তিন হাজার কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন দুই হাজার ৬৫৪ কোটি ৯১ লাখ টাকা। কোম্পানিটির মোট ২৬৫ কোটি ৪৯ লাখ সাত হাজার ৯১৩টি শেয়ার রয়েছে। ডিএসই থেকে প্রাপ্ত সর্বশেষ তথ্যমতে মোট শেয়ারের ৩২ দশমিক ৪১ শতাংশ উদ্যোক্তা বা পরিচালক, প্রতিষ্ঠানিক ১৭ দশমিক ৭০ শতাংশ, বিদেশি দুই দশমিক ৫০ শতাংশ এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে ৪৭ দশমিক ৩৯ শতাংশ শেয়ার রয়েছে।

সর্বশেষ..