হল-মার্ক চেয়ারম্যানের তিন বছরের কারাদণ্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক: হল-মার্ক গ্রুপের চেয়ারম্যান জেসমিন ইসলামকে তিন বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদা-লত। দুর্নীতি দমন কমিশনে (দুদক) সম্পদের হিসাব দাখিল না করার মামলায় তাকে এ সাজা দেন আদালত। একই সঙ্গে তাকে ২০ লাখ টাকা জরিমানাও করা হয়েছে, যা আগামী সাত দিনের মধ্যে দিতে হবে। গতকাল ঢাকার পঞ্চম বিশেষ জজ আদালতের বিচারক আখতারুজ্জামান এ রায় দেন। জেসমিনের বিরুদ্ধে পাঁচ বছর আগে মামলাটি করেছিল দুদক।
হল-মার্ক গ্রুপের ঋণ কেলেঙ্কারির মামলায় ২১ মাস ধরে কারাবন্দি আছেন জেসমিন ইসলাম। এ রায়ের জন্য গতকাল তাকে আদালতে হাজির করা হয়েছিল। তার উপস্থিতিতেই বিচারক রায় ঘোষণা করেন। সাজা ঘোষণার পর জেসমিনকে আবার নিয়ে যাওয়া হয় কারাগারে।
জেসমিনের আইনজীবী শফিকুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, এই রায়ের বিরুদ্ধে তারা উচ্চ আদালতে আপিল করবেন।
মামলায় দুদকের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মাহমুদ হোসেন জাহাঙ্গীর। তিনি বলেন, সম্পদের হিসাব জমা দিতে জেসমিন ইসলামকে নোটিস দেওয়া হলেও তিনি তা জমা দেননি। পরে ২০১৩ সালে তার বিরুদ্ধে দুদক মামলা করে। দুদক সাক্ষ্য-প্রমাণ দিয়ে অভিযোগ প্রমাণ করতে সক্ষম হওয়ায় আদালত আজ এ রায় দেন।
আদালতে জেসমিনের বক্তব্য ছিল, তিনি হল-মার্কের কোনো সম্পদের মালিক নন, মালিক তার স্বামী তানভীর। আর দুদক যখন তাকে নোটিস দেয় তখন তিনি কারাগারে ছিলেন।
উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের ১৩ নভেম্বর দুদক সম্পদ বিবরণী দাখিল করতে জেসমিন ইসলামকে নোটিস দেয়। পরে তিনি ২৪ নভেম্বর তিন মাসের সময় বৃদ্ধির আবেদন করেন। সাত দিন সময় বাড়ানো হলেও নির্ধারিত ৪ ডিসেম্বরের মধ্যে তিনি সম্পদ বিবরণী জমা দেননি। এ অভিযোগে ১১ ডিসেম্বর রমনা মডেল থানায় জেসমিন ইসলামের বিরুদ্ধে মামলা করে দুদক। তদন্ত শেষে দুদক জেসমিনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেয় এবং ২০১৬ সালের ১৭ মার্চ অভিযোগ গঠনের মধ্যে দিয়ে আদালত তার বিচার শুরু করেন।