হিসাব ও কর

মিজানুর রহমান শেলী: আপনাদের মধ্যে যারা হিসাবরক্ষণ বিষয়ে গুরুত্ব দিতে আগ্রহী নন, তাদের জন্য এ অধ্যায়। তবে কারী ব্যক্তিগত ইচ্ছা-অনিচ্ছা নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি করা আমার উদ্দেশ্য নয়। তাই এ বিতর্ক টেনে আনার জন্য আমি সবিনয়ে ক্ষমা প্রার্থনা করছি। আমি বহুদিন ধরেই অবলোকন করছি, আপনাদের অনেকেই আমাদের হিসাবের অঙ্ক নিয়ে পরিপূর্ণভাবে বিচার-বিশ্লেষণ করে দেখেন না। কিন্তু বার্কশায়ারের বিনিয়োগে তারা প্রাথমিকভাবে অংশ নিয়ে থাকেন। এর অবশ্যই কারণ রয়েছে: প্রথমত, চার্লি আর আমি দুজনে মিলে বার্কশায়ারের হয়ে আপনাদের এই বিশালায়তনের অর্থের পাহাড় কাঁধে নিয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছি; আপনাদের তাই কোনো চিন্তা নেই। দ্বিতীয়ত, আমরা এই ভারী বোঝা বইতে বাধ্য। এটা যে কোনোভাবেই হোক, আমাদের পরিচালনা করে এগিয়ে নিতে হবে। এখানে আমাদের নিজস্ব বা বার্কশায়ারের স্বার্থ রয়েছে। তাই আপনারা আপনাদের স্বার্থের সঙ্গে আমাদের স্বার্থকে মিলিয়ে দেখতে পছন্দ করছেন। এমনকি ভেবেই নিয়েছেন, আপনাদের লাভ কিংবা ক্ষতি হলে আমাদেরও একই হারে লাভ কিংবা ক্ষতি হবে, তাই আপনারা নির্ভার। তৃতীয়ত, হ্যাঁ, বার্কশায়ার এখন অনেক বড় ও ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠান। এ প্রতিষ্ঠানের সুনাম ও অর্জন সবারই জানা। বিনিয়োগকারী বা শেয়ারহোল্ডার এবং সংশ্লিষ্ট সবাই এ প্রতিষ্ঠানের ওপর আস্থা রাখেন। সবাই এ প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কারবারে সন্তুষ্ট। প্রতিষ্ঠানটির ওপর সবার এই পরিপূর্ণ আস্থার কারণকে একেবারে অমূলক বলা চলে না অন্তত বিনিয়োগের মানদণ্ডে। হ্যাঁ, অনেক শেয়ারহোল্ডার রয়েছেন, যারা আমাদের সঙ্গে বিনিয়োগে আসতে হলে আমাদের সম্পর্কে যাচাই-বাছাই করে আমাদের সার্বিক বিষয়গুলো দেখে ও বুঝে নিতে চায়। এটা যেমন আমাদের সম্পর্কে ধারণা লাভের জন্য প্রয়োজনীয়, তেমনি আমাদের সঙ্গে তাদের বিনিয়োগে টিকে থাকার জন্য তাদের প্রস্তুতির প্রশ্নে অপরিহার্য। এটা স্বচ্ছতারও বিষয় বটে। আর এক্ষেত্রে আমরা সানন্দে আমাদের যাবতীয় তথ্য ও উপাত্ত তাদের দিয়ে থাকি। তারা তাদের চাহিদা মোতাবেক যে তথ্য চান, আমাদের সাধ্যমতো সেসব তথ্যই সরবরাহ করে থাকি।
আবার একই সঙ্গে আমরা যখন নতুন করে কোনো বিনিয়োগে যাই, তখন আমরা নিজেরাই নিজেদের প্রয়োজনে নিজেদের নিয়ে সক্ষমতা বিশ্লেষণ করে নিই। এক্ষেত্রে দেখা যায়, বিশ্লেষণে বাইরের মানুষ যেসব উপসংহারে আসে, আমরাও ঠিক একই উপসংহারে আসতে সক্ষম হয়। এটা নিশ্চয়ই স্বচ্ছতার একটি মাত্রা।
ব্যবসা পরিচালনাকারীদের হিসাবরক্ষণগত বিষয় নিয়ে একটি সাধারণ বর্ণনা দেওয়া যেতে পারে, যাতে করে এ পরিস্থিতিটি খুব ভালোভাবে পরিষ্কার করা সম্ভব হবে। মাইরোন সি. টেইলর যিনি ইউএস স্টিল করপোরেশনের চেয়ারম্যান। তিনি বিশ্বের সবচেয়ে বড় শিল্পপ্রতিষ্ঠানকে পরিপূর্ণভাবে আধুনিকায়ন করতে চান। এ জন্য তিনি দীর্ঘদিন খেটেখুটে একটি পরিকল্পনা প্রস্তুত করে রেখেছেন। আজ তিনি তার সেই বিশাল ও দীর্ঘ প্রতীক্ষিত পরিকল্পনাটি ঘোষণা করলেন। কিন্তু তার আকাক্সক্ষা কি এখানে পূর্ণ হবে? এটা নিতান্তই তার আকাক্সক্ষার সঙ্গে বিপরীত বৈশিষ্ট্য ধারণ করে রয়েছে। কোম্পানির পণ্য প্রস্তৃত বা সে পণ্যের বিক্রিনীতিতে আদৌ কোনো পরিবর্তন তার এ পরিকল্পনায় দেখানো হলো না। এত কিছু সত্ত্বেও এ পরিকল্পনায় হিসাবরক্ষণের বিষয়টিতে আমূল পরিবর্তনের পরিকল্পনায় রাখা হয়েছে। তারা এ জায়গাটিকে পুরোপুরি ঢেলে সাজাতে চান।
তাদের পরিকল্পনা অনুযায়ী, তারা বহুসংখ্যক আধুনিক হিসাররক্ষণ ও আর্থিক কৌশলকে যুক্ত করার এবং তার সার্বিক উন্নয়ন নিশ্চিতের পরিকল্পনা করেছে। তারা ভাবছে, এ পরিবর্তনের ফলে করপোরেশনটির আয়ের সক্ষমতা চমকপ্রদভাবে পরিবর্তন হবে। এমনকি তারা ১৯৩৫ সালের স্বাভাবিক দশা থেকেও নিচে নেমে পরিবর্তনটি করতে চান। তাদের পরিকল্পনা হলো, তারা এই নতুন হিসাবরক্ষণ কৌশলের মাধ্যমে একটি কমন স্টকের প্রতি শেয়ারে ৫০ ডলারের পরিসমাপ্তি নিশ্চিত করে রাখতে চান। অন্তত হিসাবরক্ষণ কৌশল দিয়েই এ পরিস্থিতিতে তার টিকে থাকার স্বপ্ন দেখেন। বিনিয়োগের অন্য যে কোনো কৌশল ও উপায়কে তারা এখানে একেবারেই গুরুত্বারোপ করলেন না। উন্নয়নের এই বিশাল পরিকল্পনাধারা গঠন করেছিলেন একটি বড় জরিপ গবেষণার ধারাবাহিকতায়। এ জরিপ গবেষণায় অংশ নিয়েছিলেন মেসরস, ব্যাকন, গুথরি ও কলপিটস। এ গবেষণা পরিক্রমায় ছয়টি চলক উঠে এসেছে: এক. ১০ কোটি ডলার মাইনাস করার হিসাব সামনে রেখে এখানে একটি পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। দুই. কমন স্টকের প্রতি মূল্যমানে এক সেন্ট কমিয়ে আনার কথা বলা হয়েছে। তিন. সব শ্রমের বিল ও বেতন এখানে ঐচ্ছিক বিষয় হিসেবে গণ্য করা হয়েছে। চার. নতুন উদ্ভাবনে এক ডলার পর্যন্ত বহন করার কৌশল নির্ধারণ করা হয়েছে। পাঁচ. যেসব নন-ইন্টারেস্টিং স্টক রয়ে গেছে, সেগুলোকে প্রিফার্ড স্টক দ্বারা প্রতিস্থাপন করা হবে। সেক্ষেত্রে বন্ডের একটি শর্ত থাকে। এই বন্ডে ৫০ শতাংশ ছাড় পুনরায় উদ্ধারযোগ্য বলে বিবেচিত হবে। ছয়. ১০ কোটি ডলারের দৈবঘটনা এখানে যে কোনো পরিস্থিতিতে নির্দিষ্ট থাকবে। এটার বাস্তবায়ন চলমান থাকবে।
এই অনন্যসাধারণ আধুনিকায়ন পরিকল্পনাটির দাফতরিক বক্তব্যে নিচের বিষয়গুলোকে পরিপূর্ণভাবে অনুসরণ করে থাকে: ইউএস স্টিল কপোরেশনের বোড অব ডিরেক্টররা এ মমে ঘোষণা দিয়ে খুবই আনন্দিত যে, এ শিল্প খাতে পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে সৃষ্ট হওয়া যাবতীয় সংকটকে নিবিড়ভাবে বিশ্লেষণ করে তারা আরও উন্নত ও উপলব্ধিযোগ্য নতুন পরিকল্পনা প্রণয়ন করেছেন। এ পরিকল্পনার মূল বিষয়টি হলো হিসাবরক্ষণ কৌশলের নবপদ্ধতি। একটি বিশেষ কমিটির এই জরিপে মিসরস, প্রাইস, ব্যাকন, গুথরি ও কলপিটস সাহায্য করেন এবং ইন্ধন জোগান। তারা প্রকাশ করেছেন, তাদের গবেষণায় দেখা গেছে আমাদের কোম্পানি পেছন থেকে ল্যাং খেয়ে প্রায় বসে গিয়েছে। এ কাজটি আমেরিকারই কোনো একটি কোম্পানি করেছে। সে ব্যবসায় কোম্পানি কার্যত একটি বিশেষ হিসাবরক্ষণ কৌশল মেনে ব্যবহার করে আসছিল। আর এই ভিন্ন ও শক্তিশালী হিসাবরক্ষণ কৌশল দিয়েই তারা আমাদের পেছন থেকে ল্যাং মারতে সক্ষম হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে দেখা গেছে, ওই কোম্পানি কোনো ধরনের ক্যাশ-আউটলেট ব্যবহার না করেই কেবল হিসাবরক্ষণের ভিন্ন কৌশল দিয়েই আমাদের কুপোকাত করেছিল। কার্যত তারা তাদের আয়ের সক্ষমতা বাড়িয়ে নিয়েছিল। এটা বাহ্যিকভাবে স্পষ্ট। তারা পরিচালনা কিংবা বিক্রয়নীতিতে আদৌ কোনো পরিবর্তন আনেনি। অর্থাৎ এখানে এ বিষয়টি পরিষ্কার যে, কেবল তাদের পদ্ধতিটাকেই আমরা গ্রহণ করার ভেতর দিয়ে এ পিছিয়ে পড়া অবস্থা থেকে উতরে উঠতে পারব না বরং এর পাশাপাশি আমাদের এ পদ্ধতিকে ভালোভাবে পরিচালনা করার সক্ষমতা অর্জন করতে হবে। সক্ষমতাটি অবশ্যই অনেক উঁচুমাত্রার বিশুদ্ধতা অর্জন করবে।

এই দর্শন রচনাবলি সম্পাদনা করেছেন লরেন্স এ. কানিংহ্যাম
অনুবাদক: গবেষক, শেয়ার বিজ