হ া ও য় া  ব দ ল: নাটোর

৬৪ জেলার স্বতন্ত্র রূপ ও বৈচিত্র্য আমাদের আকৃষ্ট করে। হাওয়াবদলের জন্য একটু সময় বের করে এর কোনোটিতে ঘুরে বেড়াতে পারেন। আজ থাকছে ‘নাটোর’ নাটোরের শিক্ষা, শিল্প, সংস্কৃতি, আচার-অনুষ্ঠান বাংলাদেশের অনন্য অংশ হয়ে আছে। কবির কল্পনায়ও অমর হয়ে আছে এ জেলা। প্রাচীন ঐতিহ্য ও প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শনসমৃদ্ধ নাটোর হতে পারে আপনার পরবর্তী হাওয়াবদলের গন্তব্য।

 

যেভাবে যাবেন

সড়ক ও রেলÑদু’পথেই যেতে পারেন নাটোরে, রাজধানী থেকে। এ রুটে টাঙ্গাইল, বঙ্গবন্ধু সেতু ও সিরাজগঞ্জ পার হলেই নাটোর।

রাজধানীর বিভিন্ন বাসস্ট্যান্ড থেকে সড়কপথে নাটোর যেতে পারেন। ৩০ মিনিট পরপর ছেড়ে যায় বিভিন্ন পরিবহনের বাস। ভাড়া ৩৭০ থেকে ৭০০ টাকা। এছাড়া কমলাপুর কিংবা বিমানবন্দর রেলওয়ে স্টেশন থেকে প্রতিদিন তিনটি ট্রেন ছেড়ে যায় নাটোরের উদ্দেশে।

জেলার অভ্যন্তরীণ যোগাযোগব্যবস্থা উন্নত। বাস, রিকশা, সিএনজিচালিত অটোরিকশা প্রভৃতিতে চড়ে জেলার বিভিন্ন স্থানে যেতে পারবেন।

 

যেখানে থাকবেন

থাকার জন্য ভালো মানের কয়েকটি হোটেল রয়েছে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে ভিআইপি, মিল্লাত, প্রিন্স, রাজ, রুখসানা, নাটোর বোর্ডিং প্রভৃতি।

 

যা দেখবেন

উত্তরা গণভবন, রানী ভবানী রাজবাড়ী, দয়ারামপুর রাজবাড়ী, মা মারিয়া ধর্মপল্লি, বোর্নি মারিয়াবাদ ধর্মপল্লি, শহীদ সাগর, চলনবিল, হালতিবিল প্রভৃতি।

 

যা খাবেন

জেলার বিখ্যাত খাবার কাঁচাগোল্লা। নাটোরে বেড়াতে গিয়ে অবাক সন্দেশ ও রাঘব শাহী খেতে ভুলবেন না। আসার সময় বন্ধু-বান্ধবদের জন্যও নিয়ে আসবেন।