হোম প্রচ্ছদ ২১১ কোটি টাকায় আমদানি হবে ৫০ হাজার টন চিনি

২১১ কোটি টাকায় আমদানি হবে ৫০ হাজার টন চিনি


Warning: date() expects parameter 2 to be long, string given in /home/sharebiz/public_html/wp-content/themes/Newsmag/includes/wp_booster/td_module_single_base.php on line 290

নিজস্ব প্রতিবেদন : আন্তর্জাতিক দরপত্রের মাধ্যমে ৫০ হাজার টন চিনি আমদানির প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে সরকার। এতে ব্যয় হবে ২১১ কোটি টাকা। অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের সভাপতিত্বে গতকাল বুধবার সচিবালয়ে ‘সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি’র বৈঠকে এই প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়।

সভা শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোস্তাফিজুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, লন্ডনের মেসার্স ইডিএনএফ ম্যানসুগার সর্বনি¤œ দরদাতা হিসেবে দুটি চালানে ৫০ হাজার টন চিনি সরবরাহ করবে। প্রতি টন ৪৭০ ডলার করে ৫০ হাজার টন চিনি আমদানিতে খরচ হবে ২১১ কোটি ৩২ লাখ ৩৭ হাজার টাকা।

দেশীয় চিনিকলগুলোর উৎপাদিত চিনি বাজারে আসতে বিলম্ব হওয়ায় এ চিনি আমদানি করতে হচ্ছে বলে জানা গেছে। সূত্র জানায়, বাংলাদেশে চিনির বার্ষিক চাহিদা ১৪ লাখ টন। এর সাত থেকে আট শতাংশ দেশের ১৫টি চিনিকল উৎপাদন করে। ফলে চাহিদা মেটাতে চিনি আমদানি করতে হয়।

বৈঠকে অন্যদের মধ্যে পানি উন্নয়ন বোর্ড বাস্তবায়নাধীন এডিবির অর্থায়নে ‘ইরিগেশন ম্যানেজমেন্ট প্রজেক্ট ফর মুহুরি ইরিগেশন প্রজেক্ট’ প্রকল্পের ‘প্রজেক্ট ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড ডিজাইন কনসালট্যান্ট’ শীর্ষক একটি প্যাকেজের দর বৃদ্ধির প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে ক্রয় কমিটি।

মোস্তাফিজুর রহমান জানান, নতুন করে পাঁচ কোটি ৩৮ লাখ ৮৯ হাজার টাকা বেড়ে ওই প্যাকেজের খরচ দাঁড়িয়েছে ৫৮ কোটি ৮৬ লাখ ২৪ হাজার টাকা। আগে এ প্যাকেজের খরচ ছিল ৫৩ কোটি ৪৭ লাখ ৪৫ হাজার টাকা।

এছাড়া বিমান মন্ত্রণালয়ের অধীন কক্সবাজার বিমানবন্দর উন্নয়ন প্রকল্পের (প্রথম পর্যায়) আওতায় এলজিইডিকে কক্সবাজার জেলার কস্তুরি ঘাটে ৫৯৫ মিটার দীর্ঘ ব্রিজ নির্মাণের প্রস্তাবও অনুমোদন দিয়েছে ক্রয় কমিটি।

ক্রয় কমিটিতে অনুমোদিত অন্য সিদ্ধান্তের মধ্যে রয়েছেÑখুলনা-মংলা মহাসড়কের বাবুর বাড়ি সংযোগস্থল থেকে বাগেরহাট জেলার রামপালে নির্মাণাধীন বিদ্যুৎকেন্দ্র পর্যন্ত ছয় কিলোমিটার সড়ক দুই লেন থেকে চার লেনে উন্নীতকরণ-সংক্রান্ত প্রকল্প, রাজউক বাস্তবায়নাধীন পূর্বাচল নতুন শহর প্রকল্পের আওতায় গাজীপুর অংশে অভ্যন্তরীণ ব্রিজ নির্মাণ, অবশিষ্ট রাস্তা নির্মাণ এবং প্লট পিলার স্থাপন ইত্যাদি।

এর আগে ‘অর্থনৈতিক বিষয়-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি’র বৈঠকে সিটি করপোরেশন এবং পৌরসভাগুলোর জন্য সেনাবাহিনী নিয়ন্ত্রণাধীন রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ মেশিন টুলস ফ্যাক্টরি লিমিটেড থেকে গার্বেজ ডাম্প ট্রাক কেনার জন্য সরাসরি ক্রয় পদ্ধতি অনুসরণের নীতিগত প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এছাড়া সার সংরক্ষণের জন্য ১৩টি বাফার গুদাম নির্মাণের প্রস্তাব মন্ত্রিসভা কমিটি নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে বলে জানান মোস্তাফিজুর।