সুশিক্ষা

ইন্টারন্যাশনাল ভয়েস অব সায়েন্স

ফেমল্যাব যুক্তরাজ্যের শেলটেনহ্যাম ফেস্টিভ্যালের প্রতিযোগিতা। বিশ্বের ২৫টি দেশে এ প্রতিযোগিতা নিয়ে কাজ করছে ব্রিটিশ কাউন্সিল। গত বছর ফেমল্যাবের উদ্বোধনের পর আবারও ঢাকার পরে সিলেট ও চট্টগ্রামে প্রথমবারের মতো ফেমল্যাব নিয়ে এলো ব্রিটিশ কাউন্সিল। আগ্রহী অংশগ্রহণকারীদের জন্য এরই মধ্যে নিবন্ধন প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গেছে, চলবে আগামী ২৫ জানুয়ারি পর্যন্ত।
গত ২০ ডিসেম্বর ব্রিটিশ কাউন্সিল অডিটরিয়ামে ফেমল্যাব ২০১৮-১৯-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে ব্রিটিশ কাউন্সিল। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নান।
প্রথম রাউন্ডের ফেমল্যাবের মূল প্রতিযোগিতাসহ প্রায় ১০০ দর্শক উপস্থিত ছিলেন এবং প্রতিযোগিতা সম্পর্কে তারা তাদের অভিজ্ঞতা সবার সামনে বিস্তারিতভাবে তুলে ধরেন। লন্ডনে চেলটেনহ্যাম সায়েন্স ফেস্টিভ্যাল প্রতিযোগিতায় লড়তে থাকা অবস্থায় আমূলে পরিবর্তিত নিজের জীবনের অভিজ্ঞতা বর্ণনা করেন বাংলাদেশ থেকে জাতীয় পর্যায়ের বিজয়ী আলভী ইসলাম। ফেমল্যাবের মাধ্যমে তরুণ প্রজš§কে সুযোগ তৈরি করে দেওয়া এবং আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করার এমন পদক্ষেপের প্রশংসা করেন অধ্যাপক আবদুল মান্নান। তিনি বলেন, বিজ্ঞান বিষয়টিকে মজার একটি বিষয়ে
পরিণত করা এবং দেশের তরুণ প্রজš§কে এ বিষয়ের প্রতি আরও বেশি যুক্ত করার প্রয়াস ভালো লেগেছে।
গতবছর ফেমল্যাব উদ্বোধনের পর দেশজুড়ে দুইশ’র বেশি নিবন্ধন জমা পড়ে। এ বিজ্ঞান প্রতিযোগিতাটি নিয়ে এসেছে শেলটেনহ্যাম ফেস্টিভ্যাল এবং সহযোগী হিসেবে কাজ করবে ব্রিটিশ কাউন্সিল। এ আয়োজনের লক্ষ্য নতুন দৃষ্টিকোণ থেকে পৃথিবীকে দেখতে সবাইকে উদ্বুদ্ধ করার জন্য ভবিষ্যতের বিজ্ঞানীদের খুঁজে বের করা। ২০০৭ সালে ফেমল্যাব ও ব্রিটিশ কাউন্সিলের অংশীদারিত্বের ফলে বৈশ্বিক এ প্রতিযোগিতায় ৯ হাজারের বেশি বিজ্ঞানী ও প্রকৌশলী অংশগ্রহণ করেছেন।
ফেমল্যাব প্রতিযোগিতার সব প্রতিযোগীকে তাদের পছন্দমতো বিষয়ে তিন মিনিটের ধারণা উপস্থাপন করতে হবে। প্রত্যেক প্রতিযোগীকে
থ্রি সি’র গোল্ডেন রুল অনুযায়ী মূল্যায়ন করা হবে। এ থ্রি সি হচ্ছে কনটেন্ট, ক্ল্যারিটি ও ক্যারিশমা। তিন জেলায় প্রাথমিক অডিশন পর্বের নির্বাচিত অংশগ্রহণকারীরা ঢাকায় অনুষ্ঠিত মাস্টারক্লাসে অংশগ্রহণ করবেন। মাস্টার ক্লাস পরিচালনা করবেন যুক্তরাজ্যের স্বনামধন্য একজন বিজ্ঞানী। প্রাথমিক অডিশন পর্ব শুরু হবে ফেব্রুয়ারি মাসে। মাস্টারক্লাস সেশনে ফাইনালিস্টদের জানার সুযোগ হবে কীভাবে বিস্তৃতভাবে নতুন বৈজ্ঞানিক ধারণা তৈরি করতে হয় ও বাস্তবায়ন করতে হয় এবং কীভাবে সেটা মাত্র তিন মিনিটে মঞ্চে উপস্থাপন করতে হয়। আগামী ২২ মার্চ ঢাকায় জাতীয় গালা পর্ব অনুষ্ঠিত হবে, যার মাধ্যমে অংশগ্রহণকারীদের মধ্য থেকে একজন ফেমল্যাবার নির্বাচিত হবে যুক্তরাজ্যের লন্ডনে অনুষ্ঠিতব্য আন্তর্জাতিক শেলটেনহ্যাম সায়েন্স ফেস্টিভ্যালে বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করার জন্য।
শেলটেনহ্যাম সায়েন্স ফেস্টিভ্যালে পাঁচটি উপমহাদেশের ফাইনালিস্টরা নিজেদের মধ্যে প্রতিযোগিতা করবেন। এখানে বিশেষজ্ঞ বিচারকরা অভিনব ও সবার কাছে সহজে পৌঁছানো যায় এমন ধারণা নির্বাচন করবেন। আর এর মাধ্যমে চূড়ান্ত বিজয়ী হতে ফাইনালিস্টরা নিজেদের মধ্যে প্রতিযোগিতা করবেন। শেলটেনহ্যামের ফেস্টিভ্যালের দর্শকের সামনে চূড়ান্ত পর্ব অনুষ্ঠিত হবে। বিশ্বজুড়ে লক্ষাধিক মানুষ লাইভস্ট্রিমের মাধ্যমে এ অনুষ্ঠান দেখবে।
britishcouncilbangladesh.wufoo.com/forms/famelab-2019 মাধ্যমে ফেমল্যাবে নিবন্ধন করা যাবে।
ব্রিটিশ কাউন্সিল
বিশ্বজুড়ে সাংস্কৃতিক সম্পর্ক ও শিক্ষার সুযোগ নিয়ে কাজ করে যুক্তরাজ্যের আন্তর্জাতিক সংস্থা ব্রিটিশ কাউন্সিল। বিশ্বের একশ’টির বেশি দেশে শিল্প, সংস্কৃতি, ইংরেজি ভাষা, শিক্ষা ও সমাজগঠনে কাজ করে। অনলাইন, ব্রডকাস্ট ও বিভিন্ন প্রকাশনার মাধ্যমে গত বছর সংস্থাটি সরাসরি ৬৫ মিলিয়ন এবং সর্বোপরি ৭৩১ মিলিয়ন মানুষের কাছে পৌঁছেছে। ১৯৩৪ সালে প্রতিষ্ঠিত ব্রিটিশ কাউন্সিল রয়্যাল চার্টার ও ইউকে পাবলিক বডি দ্বারা পরিচালিত যুক্তরাজ্যভিত্তিক দাতব্য সংস্থা। সংস্থাটি ১৫ শতাংশ অনুদান সহায়তা পায় যুক্তরাজ্য সরকার থেকে।

সর্বশেষ..