অতি লোভে ঋণখেলাপি হলো সাফা মারওয়া এন্টারপ্রাইজ

সাইফুল আলম, চট্টগ্রাম: সৈয়দ আফজল হোসেন ও সৈয়দ সাজ্জাদ হোসেন পোশাক খাতের ব্যবসায়ী। অতি মুনাফার লোভে এসেছেন এক্সক্যাভেটর ব্যবসায়। আর ব্যবসায় ভালো লাভ হলেও ব্যাংকের পাওনা নিয়মিত পরিশোধ করেননি তারা। উল্টো অন্য খাতে বিনিয়োগ করেছেন। আর বিনিয়োগ আটকে গেলে ব্যাংকের নিয়মিত পাওনা পরিশোধ অনিয়মিত হয়ে যায়, যা শেষ পর্যন্ত খেলাপি ঋণে রূপান্তরিত হয়। এ খেলাপি পাওনা আদায়ে বন্ধকি সম্পত্তি নিলামে বিক্রির উদ্যোগ নিয়েছে মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেড (এমটিবিএল)।

এমটিবিএল সিডিএ এভিনিউ শাখা সূত্রে জানা গেছে, চট্টগ্রামের চকবাজার চট্টেশ্বরী রোডের বাসিন্দা সৈয়দ আফজল হোসেন ও সৈয়দ সাজ্জাদ হোসেন। এ ব্যবসায়ী দুই ভাই পোশাক খাতে সাফা মারওয়া নিট (বিডি) লিমিটেড নামে ঢাকার সাভারে একটি প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলেন। পাশাপাশি অতি মুনাফার লোভে এসেছেন মাটি কাটার এক্সক্যাভেটর ব্যবসায়। আর ব্যবসায় ভালো লাভ হলেও ব্যাংকের পাওনা নিয়মিত পরিশোধ করেননি। উল্টো ভিন্ন খাতে বিনিয়োগ করেছেন, যা তাদের জন্য কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে। এতে ব্যাংকের নিয়মিত পাওনা পরিশোধ অনিয়মিত হয়ে যায়, যা শেষ পর্যন্ত খেলাপি ঋণে রূপান্তরিত হয়।

গত ৩১ মার্চ পর্যন্ত সৈয়দ আফজল হোসেন ও সৈয়দ সাজ্জাদ হোসেনের মালিকানাধীন সাফা মারওয়া এন্টারপ্রাইজের কাছে ১১ কোটি ২৮ লাখ ৫৬ হাজার ৫১১ টাকা পাওনা রয়েছে। যদিও ঋণের বিপরীতে নিজেদের মালিকানাধীন চট্টেশ্বরীর পাঁচ গণ্ডার ওপর চারতলা বাড়িসহ স্থাপনা বন্ধকি রয়েছে। খেলাপি পাওনা আদায়ে বন্ধকি সম্পত্তি নিলামে বিক্রির উদ্যোগ নিয়েছে মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেড কর্তৃপক্ষ। আগামী ২২ জুন ব্যাংকটির সিডিএ এভিনিউ শাখায় নিলাম হবে। এতে আগ্রহী ক্রেতারা নিলাম কার্যক্রমে অংশ নিতে পারবেন।

নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে, চট্টগ্রামের চকবাজার থানার চট্টেশ্বরী রোডের এসএম হোসেন ভিলার বাসিন্দা সৈয়দ আফজল হোসেন ও সৈয়দ সাজ্জাদ হোসেন। আফজল হোসেন একটি হাসপাতালের ক্যান্টিনের ইজারাদার ছিল। এ ব্যবসায় সফল হলে পরে বিভিন্ন ব্যবসায় আসেন। অপরদিকে সাজ্জাদ হোসেন পেশায় আইনজীবী। দুই ভাই পারিবারিক সম্পত্তি বন্ধক রেখে ব্যাংক থেকে ঋণ নেন, যা ব্যবসায় বিনিয়োগ করেন। তবে ব্যাংকের কাছে বন্ধকিতে দেয়া সম্পত্তির বাজারমূল্য প্রায় পাঁচ কোটি টাকা হবে।

এ বিষয়ে মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেড সিডিএ এভিনিউ শাখার সিনিয়র অফিসার (ক্রেডিট) মোহাম্মদ আদনান শেয়ার বিজকে বলেন, পোশাক খাতের ব্যবসার পাশাপাশি স্ক্যাভেটরের ব্যবসায়ও আসেন তারা। স্ক্যাভেটরের ভালো করলেও আমাদের ঋণের কিস্তি সময়মতো পরিশোধ করেননি। বারবার পাওনা পরিশোধের তাগাদা দিলেও তারা টাকা পরিশোধ করছেন না। এ কারণে খেলাপি ঋণে পরিণত হয়েছে। আর খেলাপি পাওনা আদায়ে বন্ধক থাকা সম্পত্তি নিলামে বিক্রির উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

খেলাপি ঋণ পরিশোধ ও ব্যবসা সম্পর্কে জানতে চাইলে সাফা মারওয়া এন্টারপ্রাইজের ম্যানেজিং পার্টনার সৈয়দ আফজল হোসেনের ব্যবহƒত মোবাইল ফোনের সংযোগ বন্ধ পাওয়া যায়, ফলে তার মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

সর্বশেষ..