শেষ পাতা

অতীতের মতো নির্বাচন কমিশনকে সহায়তা করবে সরকার: ওবায়দুল কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক: দ্বিতীয় ধাপের পৌরসভা নির্বাচন অবাধ ও শান্তিপূর্ণ করতে সরকার বরাবরের মতোই নির্বাচন কমিশনকে সহায়তা করবে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। গতকাল সংসদ ভবন এলাকায় নিজের সরকারি বাসভবন থেকে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি।

আজ দ্বিতীয় ধাপে দেশের ৬০টি পৌরসভায় সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত টানা ভোট হবে। এর মধ্যে ২৮টিতে ইভিএমে ভোট হবে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, অতীতেরধারাবাহিকতায় নির্বাচন কমিশনকে সরকার সর্বাত্মক সহযোগিতা দেবে, এটা সরকারের দায়িত্ব। আগামীকাল ভোটাররা যাতে শান্তিপূর্ণভাবে ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারে, সে লক্ষ্যে নির্বাচন

কমিশন সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। ইভিএম পদ্ধতিতে ভোটার টার্নআউট শতকরা ৬০ ভাগের বেশি, যা অত্যন্ত ইতিবাচক।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক জানান, দলের কেন্দ্রসহ অন্যান্য পর্যায়ের সব গঠিত কমিটি ও উপকমিটি নিয়ে কেউ সংক্ষুব্ধ হলে বা কারও অভিযোগ থাকলে দলের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী তারা আপিল করতে পারবেন। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগকে আরও পরিচ্ছন্ন, আধুনিক, গণতান্ত্রিক ও স্মার্টার দলে রূপান্তর করতে চাই। অভ্যন্তরীণ গণতন্ত্র চর্চার ভীতকে আরও মজবুত করতে আওয়ামী লীগ সচেষ্ট।

দেশের রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে আওয়ামী লীগের ভেতরেই অভ্যন্তরীণ গণতন্ত্র চর্চার সুযোগ সবচেয়ে বেশি বলে দাবি করেন ওবায়দুল কাদের।

বিএনপি মহাসচিবের এক বক্তব্যের জবাবে তিনি বলেন, ‘প্রকৃতপক্ষে সরকার জনগণের কল্যাণে কাজ করছে বলেই বারবার শেখ হাসিনাকে সরকার পরিচালনার দায়িত্ব দিচ্ছে। বিএনপির সব কর্মসূচি রাষ্ট্র ও জনগণের বিপক্ষে। হ্যাঁ-না ভোটের মাধ্যমে যারা ভোট ডাকাতি শুরু করেছিল, রাতের বেলায় কারফিউ গণতন্ত্রের মাধ্যমে গণতন্ত্র শিখিয়েছিল, তাদের জনগণ এখনও ক্ষমা করেনি। আর ক্ষমা করেনি বলেই বিএনপি ক্রমেই জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।’

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন
ট্যাগ ➧

সর্বশেষ..