মত-বিশ্লেষণ

অনলাইন কেনাকাটায় নজরদারি ও সচেতনতা জরুরি

আধুনিক যুগে প্রযুক্তির উৎকর্ষের সঙ্গে বিশ্ববাণিজ্য ব্যবস্থায়ও পরিবর্তন এসেছে। বিশেষ করে ভোক্তাপর্যায়ে পণ্য বিক্রিতে এখন ভিন্নমাত্রা এসেছে ইন্টারনেটের কল্যাণে। ই-কমার্স নামে নানা প্রতিষ্ঠান এখন অনলাইনের মাধ্যমে পণ্য বিক্রি করছে এবং ভোক্তাদের ঘরে পণ্য পৌঁছে দিচ্ছে। এ ব্যবস্থা এখন এতটাই জনপ্রিয় যে, আমাজন ও আলিবাবার মতো ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলো এখন বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানগুলোর তালিকায় রয়েছে। আমাদের দেশেও অনলাইনে পণ্য কেনাবেচা ক্রমেই বেড়ে উঠছে। আত্মকর্মসংস্থানের মাধ্যমে অনেকে নিজের জীবিকানির্বাহ করছে, অন্য অনেককে জীবিকার পথ দেখাচ্ছে। এটি আমাদের অর্থনীতিকে এগিয়ে নেবে বলেই মনে করি। অনলাইনে পণ্য কেনাবেচা ভোক্তাদের জীবনযাত্রা বেশ সহজ করে দিয়েছে সত্য, তবে প্রতারণার অভিযোগও আসছে প্রায়ই। এছাড়া নানা ধরনের ভোগান্তিও রয়েছে। অনলাইন বাজারের বিকাশের স্বার্থে প্রতারণাকে শূন্য সহনশীলতায় বন্ধ করা জরুরি। তাই অনলাইন শপিংয়ে কঠোর নজরদারি এখন সাধারণ ভোক্তাদের দাবি।

প্রায়ই গণমাধ্যমে ‘মনিটরিং না থাকায় প্রতারণা বাড়ছে অনলাইন শপিংয়ে’  ধরনের শিরোনামে বিশেষ প্রতিবেদন দেখা যায়। কর্মব্যস্ত নগরজীবনে ভোগান্তি থেকে রেহাই পেতে অনেকেই ঝুঁকছেন অনলাইন শপিং মার্কেটপ্লেসে। তবে এ নিয়ে অভিযোগের শেষ নেই ক্রেতাদের। মার্কেটপ্লেসের ভিন্নতায় পণ্যের দামের ভিন্নতা, ওয়েবসাইটে সন্নিবেশিত ছবির সঙ্গে পণ্যের মিল না থাকা, নিম্নমানের পণ্য সরবরাহসহ নানা অভিযোগ প্রায়ই আসছে। কিন্তু এ ধরনের পণ্য কেনাবেচায় যথাযথ তদারকি ব্যবস্থা এখনও গড়ে ওঠেনি। এতে প্রতিষ্ঠানগুলো প্রতারণার সুযোগ পাচ্ছে বলেই আপাতদৃষ্টিতে মনে হয়, যা কাম্য নয়।

যেকোনো ধরনের পণ্য কেনাবেচায় অনিয়ম কিংবা প্রতারণার শিকার হলে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ কেন্দ্রে অভিযোগের সুযোগ রয়েছে ক্রেতাদের। কিন্তু অনেক ক্রেতাই এখনও এ বিষয়ে স্পষ্ট তথ্য জানেন না। ফলে তারা ক্ষতি ও ভোগান্তির শিকার হলেও তার কোনো প্রতিকার পাচ্ছেন না। অবশ্য সাম্প্রতিক সময়ে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ কেন্দ্রে অভিযোগের পরিমাণ বাড়ছে। অভিযোগ নিষ্পত্তির হারও সন্তোষজনক। তবে সংশ্লিষ্টদের আরও বেশি প্রচারণা ও ভোক্তাদের সচেতন করে তোলার উদ্যোগ নেওয়া জরুরি।

প্রতিবছরই দেশে অনলাইন মার্কেটে লেনদেন বেড়ে চলেছে। যদিও পার্শ্ববর্তী দেশগুলোর তুলনায় আমাদের বাজার এখনও ছোট, তবে সময়ের সঙ্গে এর আকার বড় হবে সন্দেহ নেই। এজন্য ভোক্তাদের স্বার্থে এ ক্ষেত্রে সময়োপযোগী নীতিমালা প্রণয়ন ও সেটি কঠোরভাবে প্রয়োগ করা জরুরি। অনলাইন মার্কেটপ্লেসে প্রতারণাকারী ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিতে হবে। যে প্রতিষ্ঠানগুলো যথানিয়মে ব্যবসা করছে, সেগুলোকে উৎসাহিত করা উচিত। ভোক্তাদেরও উচিত জেনেবুঝে এ ধরনের প্ল্যাটফর্মে কেনাকাটা করা।

ফরিদা পারভীন

আদাবর, ঢাকা

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন
ট্যাগ »

সর্বশেষ..