সুশিক্ষা

অপরের জন্য নিজেকে সমর্পণ করতে হবে

সম্প্রতি ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটির (ইডিইউ) ফল-২০১৯ সেমিস্টারের ওরিয়েন্টেশন প্রোগ্রাম অনুষ্ঠিত হয়। এতে অনারারি কনসাল জেনারেল অব জাপান মো. নুরুল ইসলাম বলেছেন, আমাদের একটাই পৃথিবী। এখানের সব মানুষ পরস্পরের আত্মীয়। আমাদের জিনগত সম্পর্ক রয়েছে সবার সঙ্গে। বড়-ছোট, বন্ধু-শত্রু এমন কোনো ভেদাভেদ নেই। মানুষের মাঝে কোনো দেয়াল নেই।
ওরিয়েন্টেশন প্রোগ্রামে স্পিকার হিসেবে তিনি আরও বলেন, জীবনের লক্ষ্য সুনির্দিষ্ট হওয়া উচিত। জীবনের লক্ষ্য কখনও বড় ইঞ্জিনিয়ার, কর্মকর্তা হওয়া নয়, বরং ভালো মানুষ হতে পারা। অপরের জন্য নিজেকে সমর্পণ করতে হবে।
বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের রঙিন স্বপ্ন বুকে নিয়ে ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটির ফল-২০১৯ সেমিস্টারে ভর্তি হয়েছেন এক ঝাঁক নবীন শিক্ষার্থী। বিজনেস, ইঞ্জিনিয়ারিং ও লিবারেল আর্টস এ তিনটি স্কুলের অধীনে সাতটি আন্ডার গ্র্যাজুয়েট প্রোগ্রামে ভর্তি হওয়া এসব নবীন শিক্ষার্থীর ওরিয়েন্টেশন ১৯ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকাল ১১টায় বন্দরনগরীর খুলশীতে স্থায়ী ক্যাম্পাসে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।
বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চেয়ারম্যান সাঈদ আল নোমান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় অনেক বড় একটি ক্যানভাস। ইডিইউ শিক্ষার্থীদের এ বিশালত্বকে ধারণ করতে শেখায়। বিশ্বমঞ্চে নিজেকে মেলে ধরার জন্য শিক্ষার্থীদের প্রস্তুত করে তোলে ইডিইউ।
ট্রেজারার অধ্যাপক সামস উদ-দোহার সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন উপাচার্য অধ্যাপক মু. সিকান্দার খান। তিনি বলেন, উদ্ভাবন ও বুদ্ধিমত্তাই হলো জীবনকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার সার কথা। শিক্ষার্থীদের এ পথেই গড়ে তুলছি আমরা। পাশাপাশি নৈতিক শিক্ষাদানের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের মধ্যে মানবিক বোধও জাগ্রত করছি। অর্থাৎ, মানুষের মতো মানুষ হওয়ার যে লক্ষ্য আমাদের হওয়া উচিত, সে লক্ষ্যে পরিচালিত হওয়ার সব পাথেয় তুলে ধরছি আমরা।
অনুষ্ঠানে বিশেষ বক্তা ছিলেন র‌্যাংকস এফসি প্রপার্টিস লিমিটেডের চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার তানভীর শাহরিয়ার রিমন। তিনি বলেন, বর্তমানে প্রযুক্তিই আমাদের নিয়ন্ত্রণ করছে। নিজেকে টিকিয়ে রেখে উন্নতির শিখরে আরোহণে অবশ্যই প্রযুক্তিতে পারদর্শী হতে হবে। অদূর ভবিষ্যতে হয়তো পৃথিবীতে মানুষের চেয়ে রোবটের সংখ্যা হবে বেশি। কিন্তু আমরা যেন রোবট না হয়ে যাই। আমাদের সুকুমার বৃত্তিকে বাঁচিয়ে রাখতে হবে।
নবাগত শিক্ষার্থীদের বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কে ধারণা দেওয়া হয় অনুষ্ঠানে। দুই পর্বে অনুষ্ঠিত হয় ওরিয়েন্টেশন। প্রথম পর্বে শিক্ষার্থীদের সামনে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব অনুষদের শিক্ষককে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হয়।
স্বাগত বক্তব্য রাখেন রেজিস্ট্রার সজল কান্তি বড়–য়া। আরও বক্তব্য রাখেন মহাপরিচালক সৈয়দ শফিকুদ্দীন আহমেদ। এতে সব বিভাগের শিক্ষক ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কুল অব লিবারেল আর্টসের অ্যাসোসিয়েট ডিন মুহাম্মদ শহিদুল ইসলাম চৌধুরী, স্কুল অব ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের অ্যাসোসিয়েট ডিন ড. মো. নাজিম উদ্দিন, স্কুল অব বিজনেসের ডিন অ্যাসোসিয়েট ড. মোহাম্মদ রকিবুল কবির ও প্রক্টর অনন্যা নন্দী প্রমুখ।
দ্বিতীয় পর্বে দুপুর ১টায় নিজ নিজ বিভাগের শিক্ষকদের সঙ্গে সেশনে অংশ নেন শিক্ষার্থীরা। এ সময় শিক্ষকরা নতুন শিক্ষার্থীদের ইডিইউ’র শিক্ষা পদ্ধতি ও কোর্স সম্পর্কে বিস্তারিত বর্ণনা দেন।

সর্বশেষ..