সম্পাদকীয়

অপারেটর নয়, গ্রাহকস্বার্থ রক্ষা করুক বিটিআরসি

চলতি শতাব্দীতে মোবাইল ফোন বিশ্বব্যাপী যোগাযোগ ব্যবস্থায় বৈপ্লবিক পরিবর্তন এনে দিয়েছে। বাংলাদেশেও মোবাইল ফোন অপারেটরগুলোর পথচলার তিন দশক হতে চলল। সর্বশেষ প্রযুক্তিবিশিষ্ট ফোরজি ইন্টারনেট সেবা চালুও হয়েছে। তাই সর্বোচ্চ মানের সেবা পাওয়ার কথা মোবাইল ফোন গ্রাহকদের। হতাশাজনকভাবে তা হয়নি, তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগেরও শেষ নেই। বিভিন্নভাবে ভোগান্তির শিকার হচ্ছে গ্রাহক। নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসিতে অসংখ্য অভিযোগ গেলেও কার্যকর সমাধান মেলেনি। বরং সংস্থাটি অপারেটরগুলোর পক্ষ নিয়েছে বলে অভিযোগ। গ্রাহকস্বার্থ রক্ষা না করে এভাবে অপারেটরগুলোর পাশে থাকা কোনোভাবেই প্রত্যাশিত নয়।
গতকালের দৈনিক শেয়ার বিজে ‘টেলিযোগাযোগ সেবা নিয়ে গণশুনানি: অপারেটরগুলোর পক্ষ নিচ্ছে বিটিআরসি!’ শিরোনামে একটি খবর ছাপা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, বিটিআরসি মোবাইল অপারেটরগুলোর দিকেই পক্ষপাত করছে বলে অভিযোগ করেছেন গ্রাহকরা। এছাড়া গ্রাহকেরা যে অভিযোগ করেছেন, তার পক্ষে অপারেটররা মতামত না দিলেও কমিশন কেন তাদের পক্ষপাতিত্ব করছে এমন প্রশ্নও তোলা হয়েছে। এর আগে গত ডিসেম্বরে শেয়ার বিজে প্রকাশিত এক প্রতিবেদন অনুযায়ী, মাত্র আট মাসে বিটিআরসিতে গ্রাহকরা অভিযোগ করেন তিন হাজার ৩৩৫টি। অপারেটরগুলো যত ধরনের সেবা দেয়, তার সবকটি নিয়েই অভিযোগ ছিল। এবারের গণশুনানিতেও সেটি উঠে এসেছে। এর পরও বিটিআরটির অপারেটরগুলোর পক্ষ নেওয়া কাম্য হতে পারে না।
মোবাইল ফোন অপারেটরগুলোর সেবার মান নিয়ে অভিযোগ দীর্ঘদিনের। শহরাঞ্চলে তাদের সেবার মান কিছুটা উন্নত হলেও প্রত্যন্ত অঞ্চলে পরিস্থিতি বেশ নাজুক। ফোরজি নেটওয়ার্ক চালু হলেও অনেক স্থানে টুজি ঠিকমতো মিলছে না। অথচ গ্রাহক ক্রমেই বাড়ছে, অপারেটরগুলোর আয়-মুনাফার ধারাও ঊর্ধ্বমুখী। সরকার তাদের প্রয়োজনীয় সুবিধাও দিচ্ছে। সবকিছু অনুকূলে থাকা সত্ত্বেও সেবার মান সন্তোষজনক না হওয়া অগ্রহণযোগ্য। ব্যাপারটি সম্বন্ধে কিন্তু সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও বিটিআরসিও অবগত। নানা ধরনের পদক্ষেপও নেওয়া হয়েছে। তারপরও সমস্যার সমাধান না হওয়া হতাশাজনক।
খবরে বলা হয়েছে, ভয়েস কলের মূল্যবৃদ্ধি, এমএনপি’র ডিপিং চার্জ, ফোরজি সেবাপ্রাপ্তি, ফাইভজি নিয়ে গ্রাহকদের মত নেওয়া হয়েছে কি না, প্রযুক্তির অপব্যবহার, ফিক্সড ইন্টারনেট ব্যবসাসহ বিভিন্ন বিষয়ে গ্রাহকরা প্রশ্ন তুলেছেন। তবে বিটিআরসির জবাব তেমন সন্তোষজনক ছিল না, যা কাম্য নয়। সরকারি সংস্থা হিসেবে গ্রাহকদের উন্নত সেবা নিশ্চিত করার দায়িত্ব বিটিআরসির। এর ব্যত্যয় হলে তার দায় তাদের নিতে হবে। এছাড়া অপারেটরগুলোর কাক্সিক্ষত মানের সেবা দিতে ব্যর্থতা গ্রহণযোগ্য নয়। তাদের অবশ্যই সর্বোচ্চ মানের গ্রাহকসেবা নিশ্চিতে উদ্যোগী হতে হবে। এজন্য সরকার, বিশেষত বিটিআরসি কার্যকর পদক্ষেপ নেবে বলে আমাদের প্রত্যাশা।

সর্বশেষ..