বিশ্ব সংবাদ

অবশেষে তালেবানের সঙ্গে দিল্লির আলোচনা শুরু

শেয়ার বিজ ডেস্ক: নিজেদের দীর্ঘদিনের অবস্থান থেকে সরে এলো ভারত। প্রথমবারের মতো আফগান তালেবানের কোনো গোষ্ঠী এবং নেতাদের সঙ্গে আলোচনা শুরু করেছে দিল্লি। বিষয়টি সম্পর্কে অবগত কর্মকর্তারা এ খবর নিশ্চিত করেছেন। খবর: হিন্দুস্তান টাইমস।

২০২০ সালের ফেব্রুয়ারিতে তালেবানের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষরের পর থেকেই আফগানিস্তান থেকে ক্রমেই সেনা প্রত্যাহার করে নিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। এরইমধ্যে অন্তত অর্ধেক মার্কিন সেনাসদস্যকে নিজ দেশে ফিরিয়ে নেয়া হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওর উপস্থিতিতে চুক্তি স্বাক্ষর করা তালেবান নেতা মোল্লা বরাদরের সঙ্গে আলোচনা শুরু করেছে দিল্লি।

নাম গোপন রাখার শর্তে একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ভারতীয় নিরাপত্তা কর্মকর্তারাই আলোচনা চালাচ্ছেন। তবে তারা স্পষ্টভাবে বুঝিয়ে দিয়েছেন যে, পাকিস্তান ও ইরানের মদত পাওয়া তালেবান নেতাদের সঙ্গে কথা হচ্ছে না। পাকিস্তানের জঙ্গি সংগঠনগুলোর মদতপুষ্ট হক্কানি বা কোয়েটা সুরার সঙ্গেও কোনো রকম আলোচনায় যেতে নারাজ দিল্লি। তালেবানের যে গোষ্ঠীগুলো ‘জাতীয়তাবাদী’ হিসেবে পরিচিত, তাদের জন্যই আলোচনার দরজা খুলে দেয়া হয়েছে, যা গত কয়েক মাস ধরেই চলছে। তাতে বিভিন্ন দিক নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হচ্ছে।

এতদিন কোনোভাবেই তালেবানের সঙ্গে আলোচনার টেবিলে বসতে চাইতো না ভারত। ৯০-এর দশকে তালেবান শাসনের সময় তাজিকসসহ বিভিন্ন গোষ্ঠীর তৈরি সংযুক্ত ফ্রন্টের প্রসঙ্গ উত্থাপন করে এক কর্মকর্তা বলেছেন, ‘তালেবানকে যুক্ত না করার যে পূর্ববর্তী অবস্থান ছিল এবং নর্দান জোটে যাবতীয় নজর দেয়ার বিষয়টি খতিয়ে দেখেছি আমরা।’

কর্মকর্তারা বলছেন, আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি, সাবেক প্রেসিডেন্ট হামিদ কারজাইসহ দেশটির আনুষ্ঠানিক নেতৃত্বের সঙ্গে আলোচনার পাশাপাশি সমান্তরালভাবে তালেবানের সঙ্গে আলাপ চালিয়ে যাবে দিল্লি।

এদিকে আফগানিস্তানে মাইন নিষ্ক্রিয়কারী একটি সংস্থার ১০ জন কর্মীকে গুলি করে হত্যা করেছে তালেবান। মঙ্গলবার রাতে দেশটির উত্তরাঞ্চলের বাগলান প্রদেশে ক্যাম্পের ভেতর এ হত্যাকাণ্ড চালিয়েছে সশস্ত্র সংগঠনটি। গতকাল বুধবার পুলিশ এ খবর জানিয়েছে। এ অঞ্চলে সম্প্রতি আফগান নিরাপত্তা বাহিনী ও তালেবানদের মধ্যে সংঘর্ষ ব্যাপক বৃদ্ধি পেয়েছে।

এ বিষয়ে তালেবানের মুখপাত্রের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি সাড়া দেননি।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..