Print Date & Time : 15 August 2022 Monday 7:46 am

আইএফআইসি ব্যাংকেখেলাপি মার্স শিপ

সাইফুল আলম, চট্টগ্রাম : কভিডের বিধিনিষেধকালীন পুরোনো জাহাজের স্ক্র্যাবের দাম দ্বিগুণেরও বেশি হয়েছিল। এতে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠান মুনাফায় ব্যবসা করে। কিন্তু উল্টোচিত্র মার্স শিপ রি-সাইকেলিং পাওনা পরিশোধের ব্যর্থতায় আইএফআইসি ব্যাংক আগ্রাবাদ শাখায় খেলাপি হয়ে পড়ে। সরওয়ার হোসেন ও শহিদুল হকের মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠানের কাছে গত ৩১ মার্চ পর্যন্ত ব্যাংকটির মোট খেলাপি পাওনার পরিমাণ ১৩ কোটি ১৯ লাখ টাকা। এ পাওনা আদায়ে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ ২৪৫ শতক জমি নিলামে বিক্রয়ে উদ্যোগ নিয়েছে।

আইএফআইসি ব্যাংক সূত্রে জানা যায়, সীতাকুণ্ডে জাহাজ ভাঙা প্রতিষ্ঠান মার্স শিপ রি-সাইকেলিং ইন্ডাস্ট্রিজ। প্রতিষ্ঠানটির মালিকানায় রয়েছে সরওয়ার হোসেন এবং শহিদুল হক। তাদের মালিকানাধীন মার্স শিপ রি-সাইকেল পুরোনো জাহাজ আমদানি ও ভেঙে বিক্রয় করার জন্য ২০১৭ সালে আইএফআইসি ব্যাংক থেকে ঋণ সুবিধা গ্রহণ করে। প্রথমদিকে পাওনা পরিশোধ নিয়মিত থাকলে গত এক বছরের বেশি সময় ধরে পাওনা পরিশোধ করছে না। চলতি বছরের ৩১ মার্চ তারিখ পর্যন্ত প্রতিষ্ঠানটির কাছে ব্যাংকটির মোট খেলাপি পাওনার পরিমাণ ১৩ কোটি ১৯ লাখ ১৩ হাজার টাকা। এ পাওনা আদায়ে ব্যাংকটির আগ্রাবাদ শাখায় বন্ধকিতে থাকা সম্পত্তি নিলামে বিক্রয়ের উদ্যোগ নিয়েছে। এর মধ্যে সীতাকুণ্ড থানার মসজিদা মৌজার ২৪৫ শতক জমি আছে। এসব জমি আগামী ৬ জুন ব্যাংকটির আগ্রাবাদ শাখায় প্রকাশ্য নিলামে বিক্রয় অনুষ্ঠিত হবে। এতে আগ্রহী ক্রেতারা উপস্থিত থেকে এ বন্ধকি সম্পত্তি কিনতে পারবেন। 

পুরোনো জাহাজ ব্যবসা-সংশ্লিষ্টরা বলেন, জাহাজ ভাঙার ব্যবসার সুসময়ে ব্যবসায় আসে সরওয়ার হোসেন, শহিদুল হক ও মোহাম্মদ আলী। তারা পরস্পর আত্মীয়। তারা যৌথভাবে মার্স শিপ রি-সাইকেলিং ও টিউলিপ স্টিলের নামে জাহাজ ভাঙা ব্যবসায় আসেন। মাত্র কয়েক বছর ব্যবসা করে এখন খেলাপি তালিকায় যুক্ত হলো। এখন তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ। তারা জাহাজ আমদানি করে না।

এ বিষয়ে আইএফআইসি ব্যাংক আগ্রাবাদ শাখার নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন কর্মকর্তা বলেন, সরওয়ার হোসেনের মালিকানাধীন মার্স শিপ আমাদের ব্যাংকে খেলাপি হয়েছে। অথচ ২০১৭ সালের শেষদিকে ঋণটি নেন। ২০১৮ থেকে ২০২১ পর্যন্ত জাহাজ ভাঙা ব্যবসায় তেমন কোনো খারাপ সংবাদ ছিল না। এসময়ে সবাই ভালো ব্যবসা করেছিল। কিন্তু তারা ব্যর্থ হন। আর ব্যর্থতায় নিয়মিত ঋণ পরিশোধ করতে পারেনি। এমন কি পাওনা পরিশোধের কোনো উদ্যোগও নিচ্ছে না। তিনি আরও বলেন, জাহাজ ভাঙার এ ব্যবসায়ী আমাদের অলঙ্কার শাখায়ও খেলাপি। অলঙ্কার শাখায় সরওয়ার ও মোহাম্মদ আলমের মালিকানাধীন টিউলিপ স্টিলের খেলাপি ঋণ ২০ কোটি ১৬ লাখ ৭৩ হাজার টাকা। এ ঋণটিও ২০১৭ সালে নেয়া হয়। এ দুইটি প্রতিষ্ঠানের কাছে আমাদের ৩৩ কোটি টাকাও বেশি পাওনা। এরা ইচ্ছাকৃত খেলাপি। এখন পাওনা আদায়ে আইনগত প্রক্রিয়া অবলম্বন করা হচ্ছে।

এ বিষয়ে আইএফআইসি ব্যাংক আগ্রাবাদ শাখার ব্যবস্থাপক ইকবাল পারভেজ চৌধুরীর সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে ব্যবহƒত সংযোগটি বন্ধ পাওয়া যায়।

অপরদিকে মার্স শিপ রি-সাইকেলিং ইন্ডাস্ট্রিজের মালিক সরওয়ার হোসেনের ব্যবহƒত মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তিনি রিসিভ করেনি।