বিশ্ব সংবাদ

আকাশসীমা বন্ধ রাখায় পাকিস্তানের ৮৫০ কোটি রুপি লোকসান

শেয়ার বিজ ডেস্ক: কাশ্মীরের পুলওয়ামা হত্যাকাণ্ডকে কেন্দ্র করে গত ফেব্রুয়ারি থেকে আকাশসীমা বন্ধ করে রাখায় পাকিস্তানের লোকসান হয়েছে ৮৫০ কোটি রুপি। দেশটির বেসামরিক বিমান চলাচল-বিষয়ক মন্ত্রী গোলাম সারওয়ার এ তথ্য দিয়েছেন। সম্প্রতি আকাশসীমা খুলে দেয় পাকিস্তান খবর: ইকোনমিক টাইমস।
গতকাল বৃহস্পতিবার করাচিতে এক সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী গোলাম সারওয়ার খান জানান, প্রায় পাঁচ মাস ধরে আকাশসীমা বন্ধ থাকার কারণে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষকে এই লোকসান গুনতে হয়েছে। অবশ্য গত মঙ্গলবার থেকে এই নিষেধাজ্ঞা পুরোপুরি প্রত্যাহার করেছে পাকিস্তান।
বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পাকিস্তানের বালাকোটে ঢুকে ভারতীয় বিমানবাহিনী হামলা চালানোর পর গত ২৬ ফেব্রুয়ারি থেকে ভারতীয় বিমানের জন্য ৯টি রুট ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা জারি করে পাকিস্তান। তবে দুটি রুট খোলা থাকলেও শুধু দক্ষিণাঞ্চল দিয়ে সেগুলো যেতে পারত।
পাক মন্ত্রী গোলাম সারওয়ার খান বলেন, আকাশসীমা বন্ধের কারণে তার দেশের পাঁচ কোটি ডলারের বেশি ক্ষতি হয়েছে। কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ওই নিষেধাজ্ঞার সময় শতাধিক বাণিজ্যিক ও কার্গো ফ্লাইটের যাতায়াতে বিঘœ ঘটেছিল। এসব ফ্লাইট থেকে পাকিস্তান এ পরিমাণ অর্থ আয় করতে পারত।
তিনি বলেন, ‘আমাদের বাণিজ্যিক বিমান চলাচল শিল্পের জন্য এটা একটা বড় ক্ষতি। কিন্তু এ নিষেধাজ্ঞায় পাকিস্তানের চেয়ে ভারতের বেশি ক্ষতি হয়েছে। তাদের ক্ষতির পরিমাণ প্রায় দ্বিগুণ। তবে দ্বন্দ্ব ভুলে উভয় পক্ষের হাত মেলানোর সময় এসেছে এখন।’
ভারতের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছিল, পাকিস্তানের আকাশসীমা ব্যবহার করতে না পেরে তাদের রাষ্ট্রীয় এয়ারলাইনসের ২ জুলাই পর্যন্ত ৪৯১ কোটি রুপি লোকসান হয়েছে। এছাড়া বেসরকারি বিমান সংস্থা স্পাইসজেট, ইন্ডিগো ও গো এয়ারের ক্ষতি হয়েছে যথাক্রমে ৩০ কোটি ৭৩ লাখ, ২৫ কোটি এক লাখ এবং দুই কোটি এক লাখ রুপি। পাকিস্তানের আকাশসীমা বন্ধ থাকায় দিল্লি থেকে ইস্তাম্বুলগামী সরাসরি বিমানের ফ্লাইট চালু করতে পারছিল না ভারতের সবচেয়ে বড় বিমান সংস্থা ইন্ডিগো। গত মার্চেই দিল্লি থেকে ইস্তাম্বুলগামী সবচেয়ে কম খরচের ফ্লাইট চালু করেছিল ইন্ডিগো।

 

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..