দিনের খবর প্রচ্ছদ প্রথম পাতা

আগামী বছর অনলাইনে রিটার্ন ব্যবহার হবে নিজস্ব রিসোর্স

রহমত রহমান: এ বছর করদাতারা অনলাইনে রিটার্ন দিতে পারছেন না। প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হওয়ায় অনলাইনে রিটার্ন দাখিলের ক্ষেত্রে জটিলতা দেখা দেয়। কারণ প্রকল্প বাস্তবায়নকারী ভিয়েতনামের প্রতিষ্ঠানটি চলে যাওয়ায় এ জটিলতা তৈরি হয়। তবে আগামী বছর করদাতারা অনলাইনে রিটার্ন দাখিল করতে পারবেন।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) নিজস্ব রিসোর্স ও জনবল ব্যবহার করে অনলাইনে রিটার্ন দাখিল ব্যবস্থা প্রবর্তন করবে। ব্যবস্থাটিকে সচল করতে উদ্যোগ নিয়েছে এনবিআর। সে জন্য এনবিআর চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে একটি উচ্চপর্যায়ের কমিটি গঠন করা হয়েছে। এ কমিটির অধীনে আরও তিনটি উপ-কমিটি করা হয়েছে। কমিটি অনলাইনে আয়কর রিটার্ন দাখিলের পদ্ধতি ও তা বাস্তবায়নের কার্যক্রম তদারক করবে। এনবিআর সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

এনবিআর সূত্র জানায়, রিটার্ন দাখিলের ক্ষেত্রে হয়রানির অভিযোগ চিরাচরিত। পাশাপাশি কর অফিসে গিয়ে রিটার্ন দাখিলে করদাতাদের সময় অপচয় হয়। হয়রানি আর সময় অপচয় রোধে ২০১৬ সালে অনলাইনে রিটার্ন দাখিল ব্যবস্থা চালু করে এনবিআর। কিন্তু প্রচারণার অভাব, করদাতাদের মধ্যে সচেতনতা তৈরি না হওয়ায় খুব বেশি জনপ্রিয়তা পায়নি। ২০১৮-১৯ করবর্ষে রিটার্ন দাখিল হয়েছে প্রায় ২০ লাখ। এর মধ্যে অনলাইন পদ্ধতিতে রিটার্ন দাখিল হয়েছে প্রায় তিন হাজার। সর্বশেষ ২০১৯-২০ করবর্ষে মোট দাখিলকৃত রিটার্নের সংখ্যা প্রায় ২২ লাখ। এর মধ্যে অনলাইন পদ্ধতিতে দাখিলকৃত মোট রিটার্নের সংখ্যা প্রায় সাড়ে ছয় হাজার।

সূত্র আরও জানায়, এনবিআরের সব সেবাকে ডিজিটাল করার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। কর আহরণ বৃদ্ধি ও সেবাপ্রাপ্তি সহজ করতে অনলাইনে রিটার্ন দাখিল ও কর পরিশোধের উদ্যোগ নেয় এনবিআর। এতে করদাতাদের অনলাইনে রিটার্ন দাখিলে চলতি অর্থবছর বিশেষ করছাড় দেওয়া হয়েছে। অনলাইনে রিটার্ন দাখিল করলে দুই হাজার টাকা করছাড়ের ঘোষণা দেওয়া হয় বাজেটে। করছাড় আর সময় সাশ্রয়ে করদাতারা অনলাইনে রিটার্ন দাখিলে করদাতাদের মধ্যে সচেতনতা তৈরি হয়েছে। কিন্তু সফটওয়্যার জটিলতায় তারা এ বছর রিটার্ন দাখিল করতে পারছেন না।

মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) এনবিআর চেয়ারম্যানকে সভাপতি করে উচ্চপর্যায়ের (স্টিয়ারিং) কমিটি গঠন করা হয়। কমিটিতে এনবিআরের সদস্যকে (কর তথ্য ব্যবস্থাপনা ও সেবা) সদস্য সচিব এবং সদস্য (কর প্রশাসন ও মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনা), সদস্য (করনীতি) ও সিস্টেম ম্যানেজারকে সদস্য হিসেবে রাখা হয়েছে। করদাতারা যাতে সহজে অনলাইনে আয়কর রিটার্ন দাখিল করতে পারেন তা নিশ্চিত করতে এ কমিটি করা হয়েছে। এনবিআরের নিজস্ব রিসোর্স ব্যবহার করে নিজেদের লোকবল দিয়ে অনলাইনে সিস্টেম ডেভেলপ করাসহ সম্ভাব্য দ্রুততম সময়ের মধ্যে ব্যবস্থা প্রবর্তন করবে।

স্টিয়ারিং কমিটি অনলাইনে রিটার্ন দাখিল সিস্টেম ও বাস্তবায়নের যাবতীয় কার্যক্রম মনিটরিং করবে। আরও তিনটি উপ-কমিটি করা হয়েছে। এছাড়া সিস্টেম ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট টিম গঠন করা হয়েছে। এ টিম রিটার্ন দাখিল সিস্টেম ডিজাইন, বিজনেস প্রসেস ডিজাইন এবং অ্যাপ্লিকেশন সিস্টেম ডেভেলপমেন্ট-সংক্রান্ত দায়িত্ব পালন করবেন।

এ বিষয়ে গঠিত স্টিয়ারিং কমিটির সদস্য ও এনবিআর সদস্য (করনীতি) মো. আলমগীর হোসেন শেয়ার বিজকে বলেন, ‘দ্রুত সময়ের মধ্যে সিস্টেম ডেভেলপ করতে এ কমিটি করা হয়েছে। আশা করা যায় অতি দ্রুত সময়ের মধ্যে কাজ শেষ হবে। যাতে সহজে করদাতারা অনলাইনে রিটার্ন দাখিল করতে পারবেন।’

এনবিআর সূত্র জানায়, গত জানুয়ারির পর থেকে অনলাইনে রিটার্ন দাখিল ব্যবস্থা বন্ধ হয়ে যায়। একটি প্রকল্পের আওতায় ওই কার্যক্রম চলছিল, যা বাস্তবায়ন করছিল ভিয়েতনামের এফপিটি নামে একটি কোম্পানি। কোম্পানির সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ শেষ হয় গত জানুয়ারিতে। এরপর থেকেই অনলাইনে রিটার্ন দাখিল কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..