মত-বিশ্লেষণ

আজকের এই দিনে

বাংলার কথাসাহিত্যের আকাশে হাজার তারার ভিড়, সেই তারাদের মাঝে একজন সাহিত্যিক নিজের আলোতে সদা ভাস্বর, তিনি বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়। তার অনবদ্য রচনা ‘পথের পাঁচালী’। পল্লীজীবন ও বাংলার আবহমানকালের চালচিত্র ও মানবজীবনের অন্তর্লীন সত্তা প্রকাশিত হয়েছে তার রচনায়। পরপর দুই প্রজন্ম ধরে বাঙালি পাঠক কেবলই পড়েছে তাকে আর তার সৃষ্টিকে।
কথাসাহিত্যিক বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় ১৮৯৪ সালের এই দিনে পশ্চিমবঙ্গের চব্বিশ পরগনা জেলার কাচরাপাড়ায় জন্মগ্রহণ করেন। শিক্ষাজীবনের সব পরীক্ষায় তিনি কৃতিত্বের সঙ্গে উত্তীর্ণ হন। তিনি তার জীবনে শিক্ষকতা করেছেন, করেছেন সরকারি চাকরি।
১৯২১ সালে ‘উপেক্ষিতা’ গল্প প্রকাশের মধ্য দিয়ে বিভূতিভূষণের সাহিত্যিক জীবন শুরু হয়। তিনি উপন্যাস, গল্প-সংকলন কিশোরপাঠ্য, ভ্রমণকাহিনী ও দিনলিপি, অন্যান্যসহ মোট ৫৪টি গ্রন্থ রচনা করেছেন। তার লেখা উপন্যাসগুলোর মধ্যে ‘চাঁদের পাহাড়’, ‘আরণ্যক’, ‘পথের পাঁচালী’, ‘আদর্শ হিন্দু হোটেল’, ‘ইছামতী’, ‘অশনি সংকেত’, ‘দুই বাড়ি বিপিনের সংসার’ ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য।
বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় পথের পাঁচালী উপন্যাসের মাধ্যমে বিপুল খ্যাতি অর্জন করেন। বিখ্যাত চলচ্চিত্রকার সত্যজিৎ রায় পথের পাঁচালীকে চলচ্চিত্রে রূপদান করেন। এছাড়া তার একাধিক গল্প-উপন্যাস অবলম্বনে চলচ্চিত্র নির্মাণ করা হয়েছে। সাহিত্যচর্চার পাশাপাশি বিভূতিভূষণ পত্রিকা সম্পাদনার দায়িত্ব পালন করেন। ইছামতী উপন্যাসের জন্য বিভূতিভূষণ মরণোত্তর ‘রবীন্দ্র-পুরস্কার’ লাভ করেন। পশ্চিমবঙ্গের উত্তর চব্বিশ পরগনায় লেখকের জন্মস্থানে বন্যপ্রাণী অভয়ারণ্যের নাম রাখা হয়েছে বিভূতিভূষণ বন্যপ্রাণী অভয়ারণ্য। ১৯৫০ সালের ১ নভেম্বর তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

আজকের দিনের উল্লেখযোগ্য ঘটনাবলি
# ১৮৭৮ ব্রিটিশ সেনারা সাইপ্রাস দখল করে
# ১৯১৫ ব্রিটিশবিরোধী সশস্ত্র অভ্যুত্থান প্রচেষ্টার অভিযোগে ২৪ জন রাজনৈতিক কর্মীর ফাঁসি হয়
# ১৯১৯ অ্যাডলফ হিটলার জার্মান ওয়ার্কার্স পার্টিতে যোগ দেন
# ১৯৪৩ জার্মানি মুসোলিনিকে বন্দিদশা থেকে মুক্ত করা হয়
# ১৯২৩ কবি এবং অনুবাদক অরুণাচল বসু জš§গ্রহণ করেন
# ২০০৯ বাংলাদেশি বাউল গানের শিল্পী শাহ আবদুল করিম মৃত্যুবরণ করেন

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..