মত-বিশ্লেষণ

আজকের এই দিনে

১৯৫২ সালের মহান ভাষা আন্দোলন ও স্বাধীন বাংলাদেশের ইতিহাসের যে নামটি ওতপ্রোতভাবে জড়িত, তিনি আবদুল মতিন। বর্তমান বাংলাদেশের ইতিহাসে তার নাম  হিসাবে পরিচিত।
আবদুল মতিন ১৯২৬ সালের ৩ ডিসেম্বর সিরাজগঞ্জের চৌহালী উপজেলার ধুবুলিয়া গ্রামে এক মধ্যবিত্ত কৃষক পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৫২ সালে সর্বদলীয় রাষ্ট্রভাষা সংগ্রাম কমিটির আহ্বায়ক হিসেবে আবদুল মতিন ভাষা আন্দোলনে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। বাংলাকে রাষ্ট্রভাষা করার দাবি তোলায় আবদুল মতিনের অবদান অন্যতম। শিক্ষার্থীদের সংগঠন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় রাষ্ট্রভাষা সংগ্রাম কমিটির আহ্বায়ক ছিলেন তিনি। সে জনসভায় ১৪৪ ধারা ভঙ্গেরও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ভাষা আন্দোলনের পর আবদুল মতিন ছাত্র ইউনিয়ন গঠনে ভূমিকা রাখেন এবং পরে সংগঠনটির সভাপতি হন। ১৯৫৪ সালে পাবনা জেলা কমিউনিস্ট পার্টির সম্পাদক হন তিনি। আবদুল মতিন মওলানা ভাসানীর ন্যাপ, পূর্ব পাকিস্তান কমিউনিস্ট পার্টি (এমএল) ও বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টিতে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালনের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের রাজনীতিতে ভূমিকা রাখেন। তিনি ভাষা আন্দোলন এবং গণচীনের উৎপাদন ব্যবস্থা ও আত্মজীবনীমূলক মোট সাতটি গ্রন্থ রচনা করেন। আবদুল মতিন একুশে পদক, ঢাকার ৪০০ বছর উদ্যাপন উপলক্ষে ‘ঢাকা রত্ন’ সম্মাননাসহ অসংখ্য পুরস্কার ও সম্মাননা লাভ করেন। তিনি ২০১৪ সালের এ দিনে মৃত্যুবরণ করেন।

আজকের দিনের উল্লেখযোগ্য ঘটনাবলি
# ১২৫৬  ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে বিশ্বের অন্যতম প্রাচীন সারবন বিশ্ববিদ্যালয় উদ্বোধন করা হয়
# ১৮৮৫  ফরাসিরা ভিয়েতনামে উপনিবেশ স্থাপন করে
# ১৮৬২  প্রখ্যাত সুরকার ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁ জন্মগ্রহণ করেন
# ১৯৬৫  আধুনিক বাংলা অনুকাব্য ও ছড়াকার জগলুল হায়দার জন্মগ্রহণ করেন
# ১৯৯১  স্পিকার মো. আবদুর রহমান বিশ্বাস বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি হন
# ২০১১  মার্কিন প্রোগ্রামার ও কম্পিউটার বিজ্ঞানী, সি প্রোগ্রামিং ভাষার জনক ডেনিস রিচি মৃত্যুবরণ করেন
# ২০১২  বাংলাদেশি বাউল গায়ক ও সুরকার বিদিত লাল দাস মৃত্যুবরণ করেন।

সর্বশেষ..