মত-বিশ্লেষণ

আজকের এই দিনে

কবি জীবনানন্দ দাশের ১৪৫তম জন্মবার্ষিকী আজ। ১৮৯৯ সালের এই দিনে তিনি বরিশালে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯১৯ সালে তিনি কলকাতার প্রেসিডেন্সি কলেজ থেকে ইংরেজিতে সম্মানসহ বিএ এবং ১৯২১ সালে একই বিষয়ে এমএ পাস করেন। ১৯২২ থেকে ১৯৩৫ পর্যন্ত অধ্যাপনাকে পেশা হিসেবে গ্রহণ করেন।

জীবনানন্দের কাব্যচর্চার শুরু অল্প বয়স থেকেই। স্কুলে ছাত্রাবস্থায় তার প্রথম কবিতা ‘বর্ষ-আবাহন’ ব্রহ্মবাদী পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। কবি হলেও তিনি অসংখ্য ছোটগল্প, কয়েকটি উপন্যাস ও প্রবন্ধগ্রন্থ রচনা করেন। তার প্রথম কাব্যগ্রন্থ ‘ঝরাপালক’ প্রকাশিত হয় ১৯২৭ সালে। জীবনানন্দকে বলা হয় বাংলা কাব্যান্দোলনে রবীন্দ্রবিরোধী তিরিশের কবিতা নামে খ্যাত কাব্যধারার অন্যতম কবি। পাশ্চাত্যের মডার্নিজম ও প্রথম বিশ্বযুদ্ধ-পরবর্তী বঙ্গীয় সমাজের বিদগ্ধ মধ্যবিত্তের মনন ও চৈতন্যের সমন্বয় ঘটে ওই কাব্যান্দোলনে। তার ‘রূপসী বাংলা’ কবিতা ষাটের দশকে বাঙালির জাতিসত্তা বিকাশের আন্দোলন ও ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে সংগ্রামী বাঙালিকে তীব্রভাবে অনুপ্রাণিত করে। জীবনানন্দ দাশের রচিত কাব্যগ্রন্থ ‘ধূসর পাণ্ডুলিপি’, ‘বনলতা সেন’, ‘মহাপৃথিবী’, ‘সাতটি তারার তিমির’, ‘রূপসী বাংলা’, ‘বেলা অবেলা কালবেলা’ প্রভৃতি। ঔপন্যাসিক ও গল্পকার হিসেবে জীবনানন্দের স্বতন্ত্র প্রতিভা ও নিভৃত সাধনার উম্মোচন ঘটে মৃত্যুর পরে প্রাপ্ত অসংখ্য পাণ্ডুলিপিতে। তার লেখা উপন্যাসের মধ্যে ‘মাল্যবান’, ‘সুতীর্থ’, ‘জলপাইহাটি’, ‘জীবনপ্রণালী’, ‘বাসমতীর উপাখ্যান’ প্রভৃতি উল্লেখযোগ্য। তিনি দুই শতাধিক গল্প লিখেছেন। জীবনানন্দের ‘বনলতা সেন’ কাব্যগ্রন্থ নিখিলবঙ্গ রবীন্দ্রসাহিত্য সম্মেলনে এবং শ্রেষ্ঠ কবিতা গ্রন্থটি ভারতের সাহিত্য আকাদেমিতে পুরস্কৃত হয়। ১৯৫৪ সালের ২২ অক্টোবর কলকাতায় তার মৃত্যু হয়।

আজকের দিনের উল্লেখযোগ্য ঘটনাবলি

#     ১৬০০  দার্শনিক ব্রুনোকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করা হয়

#     ১৭৭৫  বাংলায় ইংরেজি শিক্ষা প্রবর্তনের অন্যতম পথিকৃৎ ডেভিড হেয়ার জন্মগ্রহণ করেন

#     ১৯৩৪  বেলজিয়ামের রাজা প্রথম আলবার্ট পর্বত আরোহণের সময় পড়ে নিহত হন

#     ১৯৩৬  গীতিকার মাসুদ করিম জন্মগ্রহণ করেন

#     ১৯৫২  ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী উইনস্টন চার্চিল পরমাণু বোমা তৈরির ঘোষণা দেন

#     ২০০৮  চলচ্চিত্র অভিনেতা মান্না মৃত্যুবরণ করেন

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..