মত-বিশ্লেষণ

আজকের এই দিনে

উপমহাদেশে বিজ্ঞানচর্চার পথিকৃৎ আচার্য জগদীশ চন্দ্র বসু। তিনি ভৌতবিজ্ঞানের সঙ্গে জীববিদ্যার সফল সংযোগ ঘটান এবং তার মাধ্যমে উদ্ভিদের প্রাণের অস্তিত্ব প্রমাণ করেন। ইনস্টিটিউট অব ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিকস ইঞ্জিনিয়ার্স তাকে রেডিও বিজ্ঞানের জনক বলে অভিহিত করে। জগদীশ বসুর প্রতি সম্মান জানিয়ে আন্তর্জাতিক বিজ্ঞানমহল চন্দ্রপৃষ্ঠের একটি উল্কাগহ্বরকে তার নামে নামাঙ্কিত করেছে। বিজ্ঞানী জগদীশচন্দ্র বসু ১৮৫৮ সালের ৩০ নভেম্বর ময়মনসিংহ জেলায় জন্মগ্রহণ করেন। তার প্রাথমিক শিক্ষার শুরু ময়মনসিংহ জিলা স্কুলে। ১৮৭৯ সালে কলকাতা থেকে বিজ্ঞানে স্নাতক পাস করার পর উচ্চশিক্ষার জন্য তিনি ইংল্যান্ডে যান। সেখানে তিনি সাফল্যের সঙ্গে স্নাতক ডিগ্রি এবং ১৮৮৪ সালে লন্ডন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিএসসি ডিগ্রি লাভ করেন। কলকাতায় ফিরে তিনি প্রেসিডেন্সি কলেজে সহকারী অধ্যাপক পদে যোগ দেন এবং এখানেই গবেষণায় আত্মনিয়োগ করেন। বিদ্যুৎতরঙ্গের আলোকধর্মী প্রবণতা, বেতার বার্তার সূত্রসহ পদার্থবিজ্ঞানের অনেক মৌলিক তত্ত্ব আবিষ্কার করেন তিনি। আচার্য জগদীশ চন্দ্র ইউরোপ ও যুক্তরাষ্ট্রে বিভিন্ন বিজ্ঞানবিষয়ক গবেষণা কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করেন। ১৯০০ থেকে ১৯০২ সাল পর্যন্ত তিনি লন্ডনের রয়্যাল ইনস্টিটিউটে কর্মরত ছিলেন। ১৯১৬ সালে তিনি ‘নাইট’ উপাধিতে ভূষিত হন। ১৯২০ সালে তিনি রয়্যাল সোসাইটি অব লন্ডনের ফেলো এবং ১৯২৮ সালে ভিয়েনা একাডেমি অব সায়েন্সের করেসপন্ডিং সদস্যপদ পান। তিনি ইউরোপ ও আমেরিকার বিভিন্ন বিজ্ঞান সমিতির সদস্য ছিলেন। তিনি কিছুকাল বঙ্গীয় সাহিত্য পরিষদের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। বাংলা ভাষায় বিজ্ঞানচর্চার ক্ষেত্রে তিনি পথিকৃৎ ছিলেন। তিনি ১৯৩৭ সালের এই দিনে মৃত্যুবরণ করেন।

আজকের দিনের উল্লেখযোগ্য ঘটনাবলি

১৮৮৩  বাংলা সাহিত্যের প্রথম ঔপন্যাসিক প্যারীচাঁদ মিত্র মৃত্যুবরণ করেন

১৯২২   রাজদ্রোহের অভিযোগে কবি কাজী নজরুল ইসলাম গ্রেপ্তার হন এবং সরকার তার বই নিষিদ্ধ ঘোষণা করে

১৯৩০  প্রখ্যাত সংগীতশিল্পী গীতা দত্ত জন্মগ্রহণ করেন

১৯৭১  ঝালকাঠির রাজাপুর থানা পাকিস্তান বাহিনীর দখলমুক্ত হয় এবং স্বাধীন বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..