স্পোর্টস

আজ শুরু ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি লড়াই

জয়ের অপেক্ষায় বাংলাদেশ

ক্রীড়া প্রতিবেদক: বিশ্বকাপের পর থেকে জিততেই যেন ভুলে গেছে বাংলাদেশ। প্রভাবটাও তাই পড়েছে টাইগার শিবিরে। এখান থেকে বের হতে লাল-সবুজদের চাই একটি জয় এমনটাই বিশ্বাস সাকিব আল হাসানের। আফগানিস্তানের বিপক্ষে চট্টগ্রাম টেস্টের আগেই এ বাঁহাতি সংবাদমাধ্যমে ঠিক এমনটা আশা করেছিলেন। কিন্তু হয়নি। উল্টো বড় ব্যবধানে হেরে সমালোচনায় পড়েন। তবে আজ থেকে শুরু হতে যাওয়া ত্রিদেশীয় সিরিজের আগে ওসব মনে রাখছেন তিনি। ব্যাট-বলে জ্বলে উঠে হাসিমুখে ছাড়তে চান মাঠ। এজন্য তৈরিও স্বাগতিকরা।
ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজের উদ্বোধনী ম্যাচে আজ সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় জিম্বাবুয়ের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। এ টুর্নামেন্টের অপর দলটি জিম্বাবুয়ে। গতকাল সন্ধ্যায় অবশ্য তিন দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান, হ্যামিল্টন মাসাকাদজা ও রশিদ খান মিরপুর হোম অব ক্রিকেটের মিডিয়া সেন্টারে অংশ নেন ট্রফি উম্মোচনে। সেখানে তাদের দেখা যায় আড্ডায় মাততে। শুধু তা-ই নয়, সংবাদকর্মীদের বিভিন্ন প্রশ্নেরও উত্তর দেন অনেকটা মজার ছলেই। তাতে দারুণ এক উৎসবমুখর পরিবেশ তৈরি হয়।
ট্রফি উম্মোচন অনুষ্ঠানে তিন অধিনায়ককে কিন্তু দেখে বোঝাই যায়নি আজ থেকে তারা নামছে ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টির লড়াইয়ে। যেখানে তাদের চোখ শুধুই শিরোপায়। গতকাল অবশ্য জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক টাইগারদের এক রকম হুঙ্কারই দিয়ে রেখেছেন এই বলে বাংলাদেশের চেয়ে টি-টোয়েন্টিতে পিছিয়ে নেই আমরা।
দুঃসময় পেছনে ফেলতে আজ বাংলাদেশ চাইছে একটি জয়। কিন্তু চাইলেই কি সেটা সম্ভব? ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ততম সংস্করণে বাংলাদেশের বিপক্ষে জিম্বাবুইয়ানদের রেকর্ডও খারাপ নয়। এ সংস্করণে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বাংলাদেশ সব শেষ খেলেছে সাড়ে তিন বছর আগে, ২০১৬ সালের জানুয়ারিতে। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ সামনে রেখে খুলনায় হওয়া ওই সিরিজে বাংলাদেশ ২-২-এ ড্র করেছিল। হেরেছিল শেষ দুটি ম্যাচ।
ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজে নতুন জার্সিতে মাঠে দেখা যাবে বাংলাদেশ দলকে। গাঢ়-সবুজ জার্সিতে বুকের অংশে বাড়ানো হয়েছে লালচে রঙ। গতকাল ট্রফি উম্মোচনের সময় সাকিব আল হাসানের গায়ে দেখা যায় নতুন ওই জার্সি।
এখন পর্যন্ত বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে টি-টোয়েন্টিতে মুখোমুখি হয়েছে ৯ বার। এর মধ্যে টাইগাররা জিতেছে ৫টিতে। এদিকে সফরকারীদের জয় ৪টিতে। এদিক দিয়ে একটু এগিয়ে স্বাগতিকরা। কিন্তু ব্যাপারটি মোটেই আমলে নিচ্ছেন না জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক হ্যামিল্টন মাসাকাদজা, ‘হ্যাঁ, (টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশকে হারানো প্রসঙ্গে) সংস্করণ যত ছোট হয়, দলগুলোর ব্যবধান ততই কমে আসে। টি-টোয়েন্টি খেলাটিই এমন যে, কেউ একাই ম্যাচ টেনে নিতে পারে, ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দিতে পারে। এ রকম খেলোয়াড় আপনার দু-তিনজন দরকার যে কি না একাই খেলাটা আপনার দিকে এনে দিতে পারে।’
মাসাকাদজা যা-ই বলুক না কেন, ওদিকে কান দিচ্ছে না বাংলাদেশ। দলটিকে আশা দিচ্ছে র‌্যাংকিং। টি-টোয়েন্টিতে জিম্বাবুয়ে আছে ১৪ নম্বরে। আর বাংলাদেশ আছে ১০ নম্বরে। এটাকে পুঁজি করেই আজ টাইগারদের চোখ শুধুই জয়ে। এজন্য গত কয়েক দিন কঠোর অনুশীলন করে টাইগাররা। যার ফল আজই মাঠের ক্রিকেট থেকে পেতে চায় সাকিব আল হাসানের দল। এখন সে অপেক্ষায় ক্রিকেটপ্রেমীরা।

সর্বশেষ..