প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

আজ সাংহাইয়ে খুলছে সুপারমার্কেট দোকানপাট

শেয়ার বিজ ডেস্ক: লকডাউন শিথিল করে চীনের বৃহত্তম ও বাণিজ্যিক শহর সাংহাইয়ের সব সুপারমার্কেট ও দোকানপাট আজ খুলে দেয়া হচ্ছে। খবর: সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট।

কভিড-১৯ সংক্রমণ ঠেকাতে কয়েক সপ্তাহ ধরে কঠোর লকডাউনে থাকা এই অর্থনৈতিক ও নির্মাণকেন্দ্রের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে শহরটির কর্তৃপক্ষ।

এক সংবাদ সম্মেলনে সাংহাইয়ের ভাইস মেয়র চেন টং জানান, ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষেত্রে খুবই গুরুত্বপূর্ণ এ শহরটিতে ছয় সপ্তাহের বেশি সময় সময় ধরে লকডাউন চলছে। ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে চ‚ড়ান্ত ধাক্কা দিতে সম্প্রতি শহরটির কিছু অংশে কড়াকড়িও বাড়ানো হয়েছে।

ভাইস মেয়র বলেন, শপিংমল, মুদি দোকান ও সুপারমার্কেটগুলো তাদের কার্যক্রম শুরু করতে পারবে। ক্রেতাদের ‘সুশৃঙ্খলভাবে’ কেনাকাটার অনুমতি দেয়া হবে। চুল কাটার সেলুন ও সবজির বাজারও সীমিত আকারে খুলে দেয়া হবে।

সাংহাইয়ে কঠোর লকডাউনের মধ্যে এতদিন বাসিন্দারা কেবল অতি প্রয়োজনীয় কেনাকাটা করতে পারতেন। দীর্ঘদিন ধরে অনলাইন প্ল্যাটফর্মেও কেনাকাটা স্থগিত ছিল।

শহর কর্তৃপক্ষ শিগগির তৃতীয় ‘শ্বেত তালিকা’ প্রকাশ করতে যাচ্ছে বলেও জানিয়েছেন এক কর্মকর্তা। ওই তালিকায় আমদানি-রপ্তানিতে জড়িত ৮২০টির বেশি কোম্পানির নাম থাকতে পারে। এসব প্রতিষ্ঠানকে ফের তাদের কার্যক্রম শুরু করার অনুমতি দেয়া হবে।

তবে শূন্য কভিড-নীতি বাস্তবায়নে নাগরিকদের বিদেশ ভ্রমণের ক্ষেত্রে একটি ‘কার্যকর’ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে চীন। এতে ‘অপ্রয়োজনীয়’ বা ‘অনাবশ্যক’ কারণে বিদেশ যেতে কঠোরভাবে বারণ করা হয়েছে।

গত বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে চীনের জাতীয় অভিবাসন প্রশাসন জানায়, পাসপোর্টের মতো ভ্রমণ-নথির বিষয়ে তারা যাচাই-বাছাই প্রক্রিয়া কঠোর করবে। বিদেশ ভ্রমণে ইচ্ছুকদের কঠোরভাবে সীমিত করবে। চীনের এই পদক্ষেপের পেছনে যুক্তি হলোÑদেশ ছাড়ার সময় ও দেশে ফের প্রবেশের সময় ভাইরাসের সংক্রমণের ঝুঁকি কমানো। এ কারণে কেবল ‘প্রয়োজনীয়’ উদ্দেশ্য যেমন আবার কাজ শুরু করা, পড়ালেখা, ব্যবসা, বৈজ্ঞানিক গবেষণা ও চিকিৎসার জন্য বিদেশ যাওয়ার অনুমতি পাবেন নাগরিকরা।