প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

আনোয়ারায় ব্যবসা-প্রতিষ্ঠানে বাড়ছে চুরি

এনামুল হক নাবিদ, আনোয়ারা (চট্টগ্রাম) : চট্টগ্রামের আনোয়ারায় গত এক সপ্তাহে বিভিন্ন দোকানপাট ও শপিংমলে আশঙ্কাজনকহারে বেড়েছে চুরির ঘটনা। প্রতিনিয়ত এসব চুরির ঘটনায় আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন ব্যবসায়ীরা। বিশেষ করে জুয়েলারি দোকানের গ্রিল কেটে নগদ অর্থ ও স্বর্ণালঙ্কার নিয়ে যাচ্ছে। এছাড়া বিভিন্ন দোকানে চুরির ঘটনা ঘটছে। এসব দোকানের মালপত্র নিয়ে যাচ্ছে চোর চক্রের সদস্যরা। কখনও মধ্য রাতে আবার কখনও সকালে চুরির ঘটনা ঘটছে। এর মধ্যে সিসিটিভি ফুটেজে একাধিক চোরের ছবি প্রকাশ হলেও থানা পুলিশ কাওকে চিহ্নিত করতে পারেনি। টহল পুলিশ, মার্কেটের দারোয়ান থাকা সত্ত্বেও এভাবে প্রতিনিয়ত চুরের ঘটনায় ব্যবসায়ীরে মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ছে। বিশেষ করে এ চুরির ঘটনা ঘটছে উপজেলার সদর এলাকার দোকান-পাটগুলোতে।

গত এক সপ্তাহে আনোয়ারা সদর ইউনিয়নের চারটি দোকানে চুরির ঘটনা ঘটেছে। গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে চুরি হয় অনিশা জুয়েলার্স ও আইটি জোন নামের দুই দোকান। এর পর শনিবার দিবাগত রাতে চুরি হয় থানার পূর্ব গেটের সঙ্গে লাগোয়া সরকার মোটরস ও প্রিয়ন্ত স্টোর। এসব দোকানের একই পদ্ধতি অভিনব কায়দায় গ্রিলের তালা কেটে চোরের দলেরা দোকানের নগদ অর্থ, মালামাল লুট করে নিয়ে গেছে।

শনিবার সকালে উপজেলার মালঘর বাজার বিএম জুয়েলার্স হয় দুর্র্ধর্ষ চুরি। একই দিন দুপুরের নামাজ পড়তে গেলে মালঘর বাজার মসজিদ থেকে এলান ডেকোরেশনের মালিক ইয়ার মুহাম্মদের মোটর সাইকেলটি চুরি হয়ে যায়। এছাড়া গত শুক্রবার রাতে উপজেলার চাতরি ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড থেকে স্থানীয় মো. ইসমাইলের মালিকানাধীন অর্ধলাখ টাকার দামের ধান মাড়াইয়ের সাইফং ডিজেলচালিত মেশিন চুরি হয়।

গত এক সপ্তাহে ৫টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে চুরির ঘটনায় পুলিশ কোনো অপরাধীকে এর মধ্যে আটক করতে না পারায় ব্যবসায়ীদের মাঝে চরম হতাশ ও ক্ষোভ বিরাজ করছে।

বিএম জুয়েলার্সের মালিক পঙ্কজ জানান, সকালে দোকানে এসে দেখি তালা ভাঙা। ভেতরে ঢুকে দেখি সাড়ে চার ভরি স্বর্ণালঙ্কারসহ সাড়ে ৪ লাখ টাকার মালামাল গায়েব। পরে সিসিটিভি ফুটেজ চেক করে দেখি ২০-২৫ বছর বয়সী ৫-৬ জনের একটি চোরের দল এ ঘটনা ঘটিয়েছে।

এলান ডেকোরেশনের মালিক ইয়ার মুহাম্মদ বলেন, জোহরের নামাজ পড়ার জন্য মসজিদের বাইরে মোটরসাইকেলটি রেখে ভেতরে যাই। নামাজ পড়ে বের হয়ে দেখি মোটরসাইকেলটি নেই। পরে বাজারের সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায় দুজন লোক আমার মোটরসাইকেলটি চালিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। মোটরসাইকেলটির দাম ১ লাখ ৩০ হাজার টাকা।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে আনোয়ারা থানার ওসি এস এম দিদারুল ইসলাম সিকদার জানান, চুরির বিষয়টির খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করেছি। শিগগিরই জড়িতরা ধরা পড়বে। এছাড়া গত এক সপ্তাহে চুরির ঘটনাগুলো আমরা তদন্ত করে দেখতেছি।