বিশ্ব সংবাদ

আফগানিস্তানে তিন নারী সংবাদকর্মীকে গুলি করে হত্যা

শেয়ার বিজ ডেস্ক: আফগানিস্তানের জালালাবাদ শহরে তিন নারী গণমাধ্যমকর্মীকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। গত মঙ্গলবার পৃথক দুই হামলায় তারা নিহত হন। হামলায় আরও একজন গুরুতর আহত হয়েছেন। হামলাকারী সন্দেহে এরই মধ্যে এক বন্দুকধারীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাদের দাবি, ওই সন্দেহভাজন হামলাকারী তালেবানের সঙ্গে জড়িত। তবে তালেবানের পক্ষ থেকে হামলার দায় অস্বীকার করা হয়েছে। খবর: বিবিসি, এএফপি ।

সম্প্রতি আফগানিস্তানজুড়ে সাংবাদিক, সমাজকর্মী ও সরকারি কর্মীদের বেছে বেছে হত্যা করা হচ্ছে। এর মধ্যে অনেকেই নারী। ভয়ের পরিবেশ তৈরির জন্য এই কাজ করা হচ্ছে বলে ধারণা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

নতুন হামলায় নিহত তিন নারী হলেন মুরশাল ওয়াহিদি, শাহনাজ ও সাদিয়া। তাদের বয়স ১৮-২০ বছরের মধ্যে। তিন নারীই জালালাবাদের বেসরকারি টিভি চ্যানেল এনিকাসে ডাবিং বিভাগে কাজ করতেন।

ওই টিভি চ্যানেলের পরিচালক জালমাই লতিফ জানিয়েছেন, ওই কর্মীরা কাজ সেরে টিভি স্টেশন থেকে বের হওয়ার পর ওই ঘটনা ঘটে। তিনি বলেন, তিনজনই অফিস থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। বাড়ি ফেরার পথে মুরশাল ওয়াহিদির ওপর হামলা চালায় বন্দুকধারী। তিনি ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান। শাহনাজ ও সাদিয়াও বাড়ি ফেরার পথে আলাদা একটি হামলার শিকার হয়ে প্রাণ হারান। এছাড়া গুলিবিদ্ধ আরেক নারীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সেখানে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন তিনি।

নানগারহার পুলিশপ্রধান জুমা গুল হেমাত বলেন, পুলিশ মূল সন্দেহভাজনকে আটক করেছে এবং অন্য হামলাকারীদের খোঁজে অভিযান চালাচ্ছে। হেমাত বলেন, ‘পালিয়ে যাওয়ার সময় তাকে আমরা গ্রেপ্তার করি। সে পুলিশের কাছে দোষ স্বীকার করেছে এবং জানিয়েছে, সে তালেবান সদস্য।’

তবে তালেবান জানিয়েছে, এই ঘটনার সঙ্গে তারা কোনোভাবেই যুক্ত নয়। কোনো গোষ্ঠী দায় স্বীকার করেনি। নানগারহারে আইএসও সক্রিয়। এই ঘটনার পর তারা কিছু বলেনি। তবে গত ডিসেম্বরে ওই চ্যানেলের এক নারী কর্মীকে আইএসের সঙ্গে যুক্ত সংগঠন হত্যা করেছিল। চ্যানেল এনিকাস কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, তাদের প্রতিষ্ঠানে ১০ নারী কাজ করতেন। এর মধ্যে এ পর্যন্ত চারজনকে হত্যা করা হয়েছে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..