প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

আফগানিস্তানে মেয়েশিক্ষার্থীরা স্কুলে ফিরবে

শেয়ার বিজ ডেস্ক: ক্যামেরার সামনে প্রথম সাক্ষাৎকার দিয়েছেন আফগানিস্তানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআইয়ের অন্যতম ‘মোস্ট ওয়ান্টেড’ আসামি সিরাজউদ্দিন হাক্কানি। সম্প্রতি দেশটির রাজধানী কাবুলে বিশিষ্ট সাংবাদিক ক্রিশ্চিয়ান আমানপোরের কাছে নারী অধিকার, নিরাপত্তা ইস্যু ও তার ওপর যুক্তরাষ্ট্রের হুলিয়া জারি নিয়ে কথা বলেন। এতে তিনি বলেন, মাধ্যমিকের মেয়েশিক্ষার্থীরা শিগগির বিদ্যালয়ে ফিরবে। খবর: সিএনএন।

আফগানিস্তানে থমকে রয়েছে মাধ্যমিকের মেয়ে শিক্ষার্থীদের স্কুলে যাওয়া। এবার তাদের জন্য সুখবর আসছে বলে জানান সিরাজুদ্দিন হাক্কানি। গত সোমবার সিএনএনকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, মাধ্যমিকের মেয়ে শিক্ষার্থীদের স্কুলে ফেরা নিয়ে শিগগির ‘সুখবর’ আসছে।

আফগানিস্তান থেকে গত বছর আগস্টে যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্ররা সেনা প্রত্যাহার করার পর ক্ষমতায় বসে সশস্ত্র গোষ্ঠী তালেবান। এরপর তারা মাধ্যমিক স্কুল ও কলেজগামী নারী শিক্ষার্থীদের ক্লাসে যাওয়া বন্ধ করে দেয়। গোষ্ঠীর সর্বোচ্চ নেতা হাইবাতুল্লাহ আখুন্দজাদার এ অপ্রত্যাশিত ঘোষণা অনেক আফগান ও আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে ক্ষুব্ধ করেছে।

সাক্ষাৎকারে হাক্কানি বলেন, আমি কিছু তথ্য স্পষ্ট করতে চাই। নারীদের শিক্ষার বিরোধিতা করে এমন কেউ নেই। মেয়েরা প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যাওয়া শুরু করেছে। মেয়েদের মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ভর্তির অনুমতি দেয়ার জন্য একটি পদ্ধতিতে কাজ চলছে। এই বিষয়টি নিয়ে শিগগির আপনারা ‘সুখবর’ পাবেন।

হাক্কানি ইঙ্গিত দেন, আফগান সংস্কৃতি ও ইসলামিক নিয়ম-নীতি অনুসারে ড্রেস কোড হওয়া উচিত। বিশেষ করে নারীদের হিজাব পরার বিষয়টিও তুলে ধরেন তিনি। বর্তমান সরকার অন্তত হিজাব ও স্কার্ফ পরার কথা বললেও মুখ খোলা রাখতে পারতেন আফগান নারীরা। কিন্তু মে মাসের শুরুর দিকে তালেবানের সর্বোচ্চ নেতা আখুনজাদা আফগান নারীদের প্রকাশ্য স্থানে মুখ-ঢাকা বোরকা পরতে হবে বলে আদেশ জারি করেন। কোনো নারী এই নিয়ম না মানলে এবং সরকারের হুশিয়ারি অগ্রাহ্য করলে তার পরিবারের পুরুষ সদস্য বা অভিভাবকের কারাদণ্ড হতে পারে।