আফগানিস্তান বিষয়ক শীর্ষ মার্কিন দূতের পদত্যাগ

শেয়ার বিজ ডেস্ক: আফগানিস্তান বিষয়ক যুক্তরাষ্ট্রের বিশেষ দূত জালমে খলিলজাদ পদত্যাগ করছেন। স্থানীয় সময় সোমবার যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তর এ তথ্য জানায়। খবর: বিবিসি, রয়টার্স।

আগস্টের মাঝামাঝি সময় আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের পতন হয়। কাবুল পতনের মধ্য দিয়ে আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণ তালেবানের হাতে যায়। এক চরম বিশৃঙ্খল পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে নির্ধারিত সময়সীমার মধ্যে আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্রের সেনা প্রত্যাহার করা হয়। এ ঘটনার দুই মাসের কম সময়ের মধ্যে খলিলজাদ তার পদ ছাড়ছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, খলিলজাদের স্থলাভিষিক্ত হবেন তার সহকারী টম ওয়েস্ট। ব্লিঙ্কেন বলেন, আফগানিস্তানে যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাসের সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করবেন ওয়েস্ট। কাবুলের যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস এখন কাতারের রাজধানী দোহা থেকে তার কার্যক্রম চালাচ্ছে।

ঘটনা সম্পর্কে অবগত এমন একটি সূত্র নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, খলিলজাদ গত শুক্রবার তার পদত্যাগপত্র জমা দেন। আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্রের সেনা প্রত্যাহারের পর সম্প্রতি তালেবান নেতাদের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধিদলের মুখোমুখি আনুষ্ঠানিক বৈঠক হয়। দোহায় অনুষ্ঠিত এ বৈঠকে খলিলজাদকে রাখা হয়নি। এর ধারাবাহিকতায় খলিলজাদ পদত্যাগপত্র জমা দিলেন।

পদত্যাগের বিষয়ে জানতে চাইলে তাৎক্ষণিকভাবে খলিলজাদের কাছ থেকে কোনো সাড়া পাওয়া যায়নি।

খলিলজাদের জš§ আফগানিস্তানে। ২০১৮ সাল থেকে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের আফগানিস্তান বিষয়ক বিশেষ দূতের দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্রের সব সেনা প্রত্যাহারের বিষয়ে ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারিতে তালেবানের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের যে সমঝোতা হয়, তাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন খলিলজাদ। পরবর্তী সময়ে তিনি আফগানিস্তানের তৎকালীন আশরাফ গনি সরকারের সঙ্গে তালেবানকে আলোচনায় বসাতেও ভূমিকা রাখেন।

গত ১৫ আগস্ট কাবুলের পতন ঘটে। কাবুল পতনের আগ মুহূর্তে দেশটির তৎকালীন প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনি আফগানিস্তান ছেড়ে পালান। এর মধ্য দিয়ে আফগানিস্তানে পশ্চিমা-সমর্থিত সরকারের পতন ঘটে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন   ❑ পড়েছেন  ৯১  জন  

সর্বশেষ..