প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

আফ্রিকার ওপর ৪৪ দেশের বিধিনিষেধ

শেয়ার বিজ ডেস্ক: দেশে দেশে ছড়িয়ে পড়ছে কভিডের সবচেয়ে ভয়ঙ্কর ধরনের ‘ওমিক্রন’ সংক্রমণ। এর ফলে আতঙ্ক বিরাজ করছে বিভিন্ন দেশে। ওমিক্রন থেকে বাঁচার জন্য ইতোমধ্যে আফ্রিকার দেশগুলোর ওপর বিধিনিষেধ জারি করেছে ৪৪টি দেশ। জাপান এবং ইসরাইল সব দেশের নাগরিকদের ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। ফলে অন্য দেশের নাগরিকরা এখন এ দু’দেশে প্রবেশ করতে পারবেন না। খবর: সিএনএন, রয়টার্স।

দেশে দেশে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা চায় না ডব্লিউএইচও: কভিডের নতুন ধরন ওমিক্রন মোকাবিলায় ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারি না করে বিজ্ঞানসম্মত উপায় মেনে চলার পরামর্শ দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। স্থানীয় সময় রোববার এক বিবৃতিতে এ আহ্বান জানায় ডব্লিউএইচও।

সম্প্রতি শনাক্ত হয়েছে কভিডের নতুন ধরন ওমিক্রন। ধরনটিকে ‘উদ্বেগজনক’ বলে আখ্যায়িত করেছে ডব্লিউএইচও। তবে ওমিক্রন কভিডের অন্য ধরনের তুলনায় কম নাকি বেশি মারাত্মক, তা এখনও নিশ্চিত হতে পারেননি বিশেষজ্ঞরা। এ নিয়ে গবেষণা চালাচ্ছেন তারা। আফ্রিকা অঞ্চলে প্রথম ওমিক্রন শনাক্ত হওয়ায় এ অঞ্চলের দেশগুলোর বিরুদ্ধে একের পর এক ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হচ্ছে। তবে এ ধরনের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার পক্ষপাতী নয় ডব্লিউএইচও।

ওমিক্রন ঠেকাতে টিকা আনছে মডার্না: এদিকে কভিডের নতুন ধরন ওমিক্রন নিয়ে যখন গোটা বিশ্ব উদ্বিগ্ন তখন এটির প্রতিরোধে ভ্যাকসিন আনার কথা বলছে যুক্তরাষ্ট্রের ওষুধ কোম্পানি মডার্না। ২০২২ সালের শুরুতেই কভিডের নতুন এ ধরন মোকাবিলায় টিকা তৈরির উদ্যোগ নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের সংক্রামক রোগের বিশেষজ্ঞ ডা অ্যান্থনি ফাউসি বলেছেন, ওমিক্রন ধরনটি বর্তমান কভিড টিকাগুলোর বিরুদ্ধে প্রতিরোধী কি নাÑতা জানতে প্রায় দুই সপ্তাহের মতো সময় লাগবে। গত ৯ নভেম্বর দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রথম ওমিক্রন ধরন শনাক্ত হয়।

ওমিক্রনের সংক্রমণ ঠেকাতে আফ্রিকার ছয়টি দেশের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে যুক্তরাজ্য। ইসরাইলও ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা এনেছে দক্ষিণ আফ্রিকার দেশগুলোর ওপর। আফ্রিকার দক্ষিণের দেশগুলোর মধ্যে দক্ষিণ আফ্রিকাসহ সাতটি দেশে ভ্রমণে বিধিনিষেধ জারির পাশাপাশি নতুন ধরন সংক্রমণের ওপর নজর রাখছে তারা। নিজেদের নাগরিকদেরও ওই অঞ্চলে ভ্রমণে বিধিনিষেধ জারি করেছে ইসরাইল।

অস্ট্রেলিয়াও এ বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করছে। নিউজিল্যান্ড জানিয়েছে, তারা এ নতুন ধরন ঠেকাতে প্রস্তুত। আফ্রিকার সাত দেশের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে মালদ্বীপ। আফ্রিকার আট দেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে থাইল্যান্ড। অপরদিকে গতকাল থেকে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা কার্যকর করছে যুক্তরাষ্ট্রও। দক্ষিণ আফ্রিকার ৯ দেশের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে সিঙ্গাপুর। ইউরোপীয় ইউনিয়নও নতুন করে বিধিনিষেধ আরোপের ব্যাপারে চিন্তা করছে।