প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

আফ্রিকার দেশগুলোয় জনসনের টিকা দেবে দক্ষিণ আফ্রিকা

শেয়ার বিজ ডেস্ক: আফ্রিকার অন্য দেশগুলোকে জনসন অ্যান্ড জনসনের তৈরি ২০ লাখ ডোজ কভিড-১৯ টিকা অনুদানের ঘোষণা দিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা সরকার। মহাদেশটিতে টিকাদানের হার বাড়াতে এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। দক্ষিণ আফ্রিকা সরকারের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, এসব ডোজের আনুমানিক মূল্য প্রায় এক কোটি ৮০ লাখ ডলার। খবর: এবিসি নিউজ।

দক্ষিণ আফ্রিকার কেপ প্রদেশের গেকেবেরহা প্রদেশের আসপেন ফার্মাকেয়ার ম্যানুফাকচারিং ফ্যাসিলিটিতে উৎপাদিত হবে এসব টিকা। আগামী বছর আফ্রিকার বিভিন্ন দেশে এসব টিকা বিতরণ করা হবে।

দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট সিরিল রামাফোসা এক বিবৃতিতে বলেন, এ অনুদান মহাদেশে বসবাসকারী ভাই ও বোনদের সঙ্গে দক্ষিণ আফ্রিকার সৌহার্দ্য বাড়াবে। তাদের সঙ্গে ঐক্যবদ্ধ হয়ে আমরা

জনস্বাস্থ্য ও অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির বিরুদ্ধে নজিরবিহীন হুমকি মোকাবিলা করছি।

রামাফোসা আরও বলেন, কভিডের সংক্রমণ ঠেকানো এবং আমাদের অর্থনীতি ও মহাদেশের জনগোষ্ঠীকে রক্ষার একমাত্র উপায় হলো আফ্রিকার জনগোষ্ঠীর বড় অংশকে নিরাপদ ও কার্যকর টিকা সফলভাবে প্রদান করা।

গত ১২ ডিসেম্বর কভিডে আক্রান্ত হন ৬৯ বছর বয়সী প্রেসিডেন্ট সিরিল রামাফোসা। তখন থেকে কেপটাউনে নিজ বাসভবনে আইসোলেশনে রয়েছেন তিনি। দক্ষিণ আফ্রিকার সামরিক স্বাস্থ্য ব্যবস্থা তার চিকিৎসা করছে।

দেশটির প্রেসিডেন্টের কার্যালয় জানিয়েছে, সিরিল রামাফোসা কভিড থেকে সেরে ওঠছেন। মৃদু লক্ষণের জন্য তার চিকিৎসা অব্যাহত রয়েছে।

এ পর্যন্ত সবচেয়ে কম টিকা পেয়েছে আফ্রিকার দেশগুলো। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, ২০২৪ সালের মাঝামাঝির আগে আফ্রিকার দেশগুলোর ৭০ শতাংশ জনগনকে টিকাগ্রহীতার আওতায় আনা যাবে না।

আফ্রিকার ৫৪টি দেশের মধ্যে মাত্র ২০টি দেশের ১০ শতাংশ মানুষকে টিকার আওতায় আনা হয়েছে। দশটি দেশের মাত্র দুই শতাংশ অধিবাসী এ পর্যন্ত টিকা নিয়েছেন।

দক্ষিণ আফিকা বর্তমানে কভিডের নতুন ধরন ওমিক্রন নিয়ে পর্যুদস্ত। এ পর্যন্ত দেশটিতে ২৪ হাজার ৭৮৫ জন ওমিক্রনে আক্রান্ত হয়েছেন। মারা গেছেন ৩৬ জন। ৭৮ শতাংশের বেশি ধরন ওমিক্রনের বলে জানিয়েছে দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী জো ফাহলা।

দক্ষিণ আফ্রিকার প্রায় দেড় কোটি মানুষ টিকা নিয়েছেন। এ হিসেবে মোট প্রাপ্তবয়স্কদের মধ্যে ৩৮ শতাংশ টিকার আওতায় এসেছেন। তবে সাম্প্রতিক সময়ে টিকা নেয়ার হার কমে আসায় চিন্তিত জো ফাহলা। তিনি প্রাপ্তবয়স্কদের বড়দিনের ছুটির আগে টিকা নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।