বিশ্ব সংবাদ

আরবদের সঙ্গে চুক্তিতে আর্থিকভাবে সমৃদ্ধ হবে ইসরাইল: নেতানিয়াহু

Israeli Prime Minister Benjamin Netanyahu speaks during his meeting with British Foreign Secretary Boris Johnson (unseen) at the Foreign Office in central London on February 6, 2017. Israeli Prime Minister Benjamin Netanyahu said Monday that all "responsible nations" should back new sanctions against Iran, speaking during a meeting with British Prime Minister Theresa May in London. / AFP / POOL / Kirsty Wigglesworth (Photo credit should read KIRSTY WIGGLESWORTH/AFP/Getty Images)

শেয়ার বিজ ডেস্ক : আরব দেশগুলোর সঙ্গে চুক্তিতে ইসরাইল অর্থনৈতিকভাবে ব্যাপক সমৃদ্ধ হবে বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইনের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষরের জন্য ওয়াশিংটনে যাওয়ার প্রাক্কালে এমন মন্তব্য করেন তিনি। খবর: দ্য গার্ডিয়ান।  

ওয়াশিংটনে এ সফরকে ঐতিহাসিক হিসেবে আখ্যায়িত করেন নেতানিয়াহু। তিনি বলেন, এক মাসের মধ্যে দুই আরব দেশের সঙ্গে চুক্তি হয়েছে। এটা অসাধারণ। আর এ করোনার সময়ে এটা আরও চমকপ্রদ। এর চুক্তিগুলো ইসরাইলের কোষাগারে লাখ লাখ ডলার নিয়ে আসবে।

১৫ সেপ্টেম্বর হোয়াইট হাউসে ইসরাইলের সঙ্গে আমিরাত ও বাহরাইনের আনুষ্ঠানিক চুক্তি স্বাক্ষরের কথা রয়েছে। নিজ নিজ দেশের পক্ষে আব্রাহাম অ্যাকর্ড নামের এ চুক্তিতে স্বাক্ষর করবেন সমঝোতার মধ্যস্থতাকারী মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প, ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু এবং আমিরাত ও বাহরাইনের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা। টুইটারে দেওয়া এক পোস্টে এটিকে ‘ঐতিহাসিক মুহূর্ত’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন ট্রাম্প।

মধ্যপ্রাচ্যে সৌদি প্রভাব বলয়ের দু’দেশ আমিরাত-বাহরাইনের সঙ্গে এ চুক্তির মধ্য দিয়ে এ অঞ্চলে নিজের বিচ্ছিন্ন অবস্থা কাটাতে সমর্থ হবে ইসরাইল। এছাড়া আরবদের সঙ্গে সম্পর্ক ক্রমেই স্বাভাবিক হয়ে আসায় জেরুজালেমের আল আকসা মসজিদের ব্যাপারেও এখন আরও শক্ত অবস্থান নেওয়ার সুযোগ তৈরি হয়েছে দেশটির। কেননা, একাধিক মুসলিম দেশ এরইমধ্যে ইসরাইলকে মেনে নিয়েছে। ফলে আল আকসা মসজিদ কেন্দ্রিক মুসলিম বিশ্বের চাপ অনেকটাই হালকা হয়ে গেল দেশটির জন্য।

সৌদি আরবের পক্ষ থেকে এখনও পর্যন্ত ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপনের প্রকাশ্য কোনো ঘোষণা না এলেও গত কয়েক বছর ধরেই দেশ দুটির গোপন সম্পর্কের কথা আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলোতে প্রকাশিত হয়ে আসছে। ২০১৮ সালে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংবাদমাধ্যম দ্য আটলান্টিককে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ইসরাইল ইস্যুতে কথা বলেন এমবিএস নামে পরিচিত সৌদি যুবরাজ।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..