প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

আশা জাগিয়েও হারলো মেয়েরা

ক্রীড়া প্রতিবেদক: ঘুরে দাঁড়ানোর প্রত্যয়ে গতকাল দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দারুণ খেলছিল বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল। একসময় জয়ের সম্ভাবনা বেশ ভালোভাবেই উঁকি দিয়েছিল। মনে হচ্ছিল ম্যাচটি জিতে সিরিজে ফিরবে রোমানা আহমেদের দল। কিন্তু শেষ দিকে দ্রুত কয়েকটি উইকেট হারানোয় ১৭ রানের হার নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয়েছে স্বাগতিকদের। এর ফলে সিরিজে ০-২ ব্যবধানে পেছনে পড়লো বাংলাদেশ। প্রথম ম্যাচে টাইগ্রেসরা হেরেছিল ৮৬ রানে।

কক্সবাজারের শেখ কামাল আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামের উইকেট ব্যাটিং সহায়ক। এ চিন্তায় গতকাল সকালে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামে আফ্রিকার মেয়েরা। কিন্তু খাদিজাতুল কোবরার বোলিং তোপে খুব একটা সুবিধা করতে পারেননি তারা। দুই ওপেনার ছাড়া আর কোনো ব্যাটসম্যান পারেননি বড় স্কোর গড়তে। তাই তো ৪৯ ওভারে সব উইকেট হারিয়ে মাত্র ২২৩ রানে অলআউট সফরকারীরা। প্রোটিয়া মেয়েদের সবচেয়ে বেশি ভুগিয়েছেন খাদিজাতুল কোবরা। তিনি ১০ ওভারে ৫৬ রান দিয়ে নেন ৪ উইকেট।

জবাব দিতে নেমে ৪৩ রানে দুই উইকেট হারিয়ে বসে বাংলাদেশ। এ সময় বেশ চাপেই পড়েছিল স্বাগতিক মেয়েরা। কিন্তু তৃতীয় উইকেটে ওপেনার শারমিন আক্তার অধিনায়ক রোমানা আহমেদকে দারুণ খেলতে থাকেন। গড়ে তোলেন ১২৭ রানের জুটি। এজন্য অবশ্য এই জুটিকে খেলতে হয়েছে ১৮৭টি বল, যেখানে কিছুটা হলেও পিছিয়ে পড়ে টাইগ্রেস। শেষ দিকে ওভারপ্রতি রান রেট বেশ হওয়ায় চাপটা আবারও পড়ে রোনামাদের ওপর। যে কারণে প্রতিপক্ষ বোলারদের ওপর চড়াও হয়ে ব্যাট চালাতে গিয়ে তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়ে লাল-সবুজ মেয়েদের ব্যাটিং লাইন।

জয়ের জন্য শেষ চার ওভারে বাংলাদেশের জিততে দরকার ছিল ৪০ রান। হাতে ছিল ৫ উইকেট। কিন্তু ২৩ রান তুলতে পারে রোমানা আহমেদের দল। তাতেই ১৭ রানে হারতে হয় মেয়েদের। এই হারের ফলে সিরিজে ০-২ ব্যবধানে পিছিয়ে পড়তে হলো।

হাতে একদমই সময় নেই রোমানা আহমেদের দলের। কালই সিরিজের তৃতীয় ওয়ানডেতে মাঠে নেমে পড়তে হবে তাদের। যে ম্যাচে জয় ছাড়া ভিন্ন কিছু ভাবনা নেই। কেননা কাল হারলে সিরিজও হাতছাড়া হয়ে যাবে স্বাগতিকদের।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

দক্ষিণ আফ্রিকা: ৪৯ ওভারে ২২৩/১০ (লি ৭০, স্টেইন ৬৬, ডি ভ্যান নিকার্ক ২৭; খাদিজা ৪/৫৬, লতা ১/২৯, নাহিদা ১/১৭)

বাংলাদেশ: ৫০ ওভারে ২০৬/১০ (সানজিদা ৪, শারমিন ৭৪, রোমানা ৬৮, নিগার ১৪; ক্যাপ ২/৪১, লুস ২/৩১, নিকার্ক ১/৩২)

ফল: দক্ষিণ আফ্রিকা ১৭ রানে জয়ী।

ম্যাচসেরা: লিজেল লি

সিরিজ: ৫ ম্যাচ সিরিজে দ. আফ্রিকা ২-০-তে এগিয়ে।