সারা বাংলা

আশুগঞ্জে প্রতিপক্ষের হামলা চেয়ারম্যানের ভাই নিহত আটক সাত

প্রতিনিধি, ব্রাহ্মণবাড়িয়া : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে গোষ্ঠীগত বিরোধের জেরে গভীর রাতে প্রতিপক্ষের হামলায় নিহত হয়েছেন উপজেলা চেয়ারম্যানের ভাই জামাল মুন্সী (৫০)। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার দায়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে সাতজনকে।

গত শুক্রবার গভীর রাতে উপজেলার চর চারতলা গ্রামে ঘটে এই নৃশংসতা। নিহত জামাল মুন্সী আশুগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক মো. হানিফ মুন্সীর ছোট ভাই এবং চর চারতলা গ্রামের ফজলুল হক মুন্সীর ছেলে। এ ঘটনায় এলাকায় বিরাজ করছে চাপা উত্তেজনা।

নিহতের পরিবার ও স্থানীয় এলাকাবাসীর বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, চরচারতলা গ্রামের লতি গোষ্ঠীর লোকদের সঙ্গে মুন্সী গোষ্ঠীর লোকদের দীর্ঘদিন ধরেই দ্বন্দ্ব-সংঘাত চলে আসছিল। একই গ্রামের বিবাদমান দুই গোষ্ঠীর মধ্যেকার এ দ্বন্দ্বের জেরে গত শুক্রবার দিবাগত রাত অনুমান ১টার দিকে লতি গোষ্ঠীর কয়েকজন দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে জামাল মুন্সীর ওপর অতর্কিত হামলা করে।

তাদের এলোপাতাড়ি আক্রমণে জামাল মুন্সী গুরুতর আহত হন। পরে তার চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে জামাল মুন্সীকে উদ্ধার করে আশঙ্কাজনক অবস্থায় স্থানীয় ক্লিনিকে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। এছাড়া ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার দায়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাতজনকে আটক করে।

জানা গেছে, লাশ উদ্ধার করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতাল মর্গে ময়নাতদন্ত সম্পন্নের পর পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। পরে গতকাল শনিবার বিকালে নিহতের নামাজে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। এ বিষয়ে পরিবারের পক্ষে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্র নিশ্চিত করেছে।

আশুগঞ্জ থানার ওসি জাবেদ মাহমুদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাতজনকে আটক করা হয়েছে। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..