বাণিজ্য সংবাদ শিল্প-বাণিজ্য

আশুগঞ্জ সার কারখানার সমস্যা দ্রুত সমাধান হবে: শিল্প প্রতিমন্ত্রী

প্রতিনিধি, ব্রাহ্মণবাড়িয়া: আশুগঞ্জ সার কারখানার যান্ত্রিক সমস্যাসহ অন্যান্য সব সমস্যা সমাধানে দ্রুততম সময়ের মধ্যে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানিয়েছেন শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার। তিনি বলেন, সার কারখানাটি উন্নত প্রযুক্তিতে নির্মাণ করা হয়েছে। পুরোনো যন্ত্রাংশ পুনঃস্থাপন করা হলে আগামী ১৫ বছর কারখানাটিতে পূর্ণ ক্ষমতায় সার উৎপাদন করা সম্ভব হবে।

গতকাল ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে আশুগঞ্জ সার কারখানা পরিদর্শন শেষে কর্মকর্তাদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন।

বিসিআইসির চেয়ারম্যান হাইয়ুল কাইয়ুম, আশুগঞ্জ সার কারখানার ব্যবস্থাপনা পরিচালক মুহাম্মদ হাবিবুর রহমান, ব্যবস্থাপক (অপারেশন্স) বিজয় কুমার সরকার, সিবিএ’র সভাপতি বাবুল মিয়া ও সাধারণ সম্পাদক কবীর হোসেন এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

শিল্প প্রতিমন্ত্রী বলেন, দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত কেউ প্রমাণিত হলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। কোনো অসাধু কর্মকর্তা যাতে দুর্নীতি করতে না পারে সে বিষয়ের সতর্ক থাকার জন্য সিবিএ নেতাদের প্রতি আহ্বান জানান প্রতিমন্ত্রী।

সভায় আশুগঞ্জ সার কারখানার কর্মকর্তাদের পক্ষ হতে আশুগঞ্জ দুই সার কারখানা নির্মাণের প্রস্তাব করা হয়। এ প্রসঙ্গে প্রতিমন্ত্রী বলেন আশুগঞ্জ সার কারখানায় দ্বিতীয় কোনো কারখানা স্থাপনের পরিকল্পনা আপাতত সরকারের নেই। তবে আশুগঞ্জ সার কারখানায় দুটি বাফার গোডাউন নির্মাণ করা হবে বলে প্রতিমত্রী উল্লেখ করেন।

বিসিআইসির চেয়ারম্যান বলেন, অলাভজনক শিল্পকারখানাগুলোকে লাভজনক করতে প্রয়োজনীয় মেরামত ও আধুনিকায়নের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। আগামী দু’বছরের মধ্যে সব শিল্প লাভজনক হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

ডিজিটাল ক্যাম্পেইন সিজন-৬ ওয়ালটন ফ্রিজ টিভি এসিতে ৩৫ লাখ টাকা জেতার সুযোগ শুরু হলো ডিজিটাল ক্যাম্পেইন সিজন-৬। কাস্টমার ডেটাবেজ তৈরির মাধ্যমে অনলাইনে দ্রুত ও উন্নত বিক্রয়োত্তর সেবা প্রদানের লক্ষ্যে ওয়ালটন চালু করছে এ ক্যাম্পেইন। প্রতিবারের মতো এবারও ওয়ালটন রেফ্রিজারেটর, টেলিভিশন ও এয়ারকন্ডিশনার ক্রেতাদের জন্য প্রতিদিনই রয়েছে ৩৫ লাখ টাকা পাওয়ার সুযোগ। গতকাল রাজধানীর বসুন্ধরায় ওয়ালটন কার্যালয়ে আয়োজিত ডিজিটাল ক্যাম্পেইন সিজন-৬-এর ‘ডিক্লারেশন প্রোগ্রাম’-এ এসব বিষয় জানানো হয়।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, ডিজিটাল ক্যাম্পেইনের মূল লক্ষ্য হচ্ছে কাস্টমার ডেটাবেজ তৈরির মাধ্যমে বিক্রয়োত্তর সেবা কার্যক্রমকে অনলাইন নেটওয়ার্কের আওতায় নিয়ে আসা। এর মাধ্যমে ক্রয়কৃত পণ্যের বারকোড, ক্রেতার নাম, ঠিকানা, ফোন নম্বর প্রভৃতি তথ্য ওয়ালটনের সার্ভারে সংরক্ষণ করা হচ্ছে। ফলে ওয়ারেন্টি কার্ড হারিয়ে ফেললেও দেশের যেকোনো ওয়ালটন সার্ভিস সেন্টার থেকে দ্রুত কাক্সিক্ষত সেবা নিতে পারছেন গ্রাহক। সার্ভিস সেন্টারের প্রতিনিধিরাও গ্রাহকের ফিডব্যাক জানতে পারছেন, যা ওয়ালটনের পণ্য গবেষণা ও মানোন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে।

ওই রেজিস্ট্রেশন কার্যক্রমে ক্রেতাদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণের মাধ্যমে তাদের সম্মানিত করতেই চালানো হচ্ছে ডিজিটাল ক্যাম্পেইন। আর এতে ক্রেতাদের উৎসাহিত করতে নগদ ক্যাশব্যাক, ক্যাশ ভাউচারসহ বিভিন্ন সুবিধা দেওয়া হচ্ছে।

অনুষ্ঠানে ছিলেন ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর নজরুল ইসলাম সরকার, সেলস ও বিপণন বিভাগের প্রধান সমন্বয়ক ইভা রিজওয়ানা, ডিস্ট্রিবিউটর সেলস নেটওয়ার্কের প্রধান এমদাদুল হক সরকার, প্লাজা সেলস নেটওয়ার্কের প্রধান মোহাম্মদ রায়হান, নির্বাহী পরিচালক এসএম জাহিদ হাসান, হুমায়ুন কবীর, উদয় হাকিম, সিরাজুল ইসলাম, সাখাওয়াৎ হোসেন ও আমিন খান, রেফ্রিজারেটর বিভাগের চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার (সিইও) প্রকৌশলী গোলাম মুর্শেদ, এসি বিভাগের সিইও তানভীর রহমান, টিভি বিভাগের সিইও প্রকৌশলী মোস্তফা নাহিদ হোসেন প্রমুখ।

ওয়ালটন কর্তৃপক্ষ জানায়, চলতি বছর ২৫ লাখ ফ্রিজ, ১০ লাখ টেলিভিশন, ২.৫ লাখ এয়ারকন্ডিশনারসহ বিপুল পরিমাণ হোম, ইলেকট্রিক্যাল অ্যাপ্লায়েন্স ও ডিজিটাল ডিভাইস বিক্রির টার্গেট নিয়েছে ওয়ালটন। এ বিপুল পরিমাণ ক্রেতাকে কাস্টমার ডেটাবেজে অন্তর্ভুক্ত করার লক্ষ্যে ক্যাম্পেইনের সিজন-৬ শুরু করেছে ওয়ালটন। বিজ্ঞপ্তি

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..