প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

আসিয়ানকে ১৫ কোটি ডলার সহায়তা দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

শেয়ার বিজ ডেস্ক: এশিয়ার দেশগুলোতে আরও আধিপত্য চাইছে যুক্তরাষ্ট্র। মূলত এশিয়ায় চীনের আধিপত্য মোকাবিলায় একের পর এক প্রকল্প হাতে নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন প্রশাসন। ফলে জাপান, অস্ট্রেলিয়া ও ভারতের সঙ্গে আকু’র জোটের পর এবার আসিয়ানভুক্ত দেশগুলোকে আয়ত্তে রাখতে চায় যুক্তরাষ্ট্র। এরই ধারাবাহিতকায় দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার ১০ জাতি নিয়ে গঠিত অ্যাসোসিয়েশন অব সাউথইস্ট এশিয়ান ন্যাশনসকে (আসিয়ান) বড় সহায়তার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে বাইডেন। অঞ্চলটির অবকাঠামো, নিরাপত্তা ও কভিড মোকাবিলায় ১৫০ মিলিয়ন (১৫ কোটি) ডলার দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন বাইডেন। এদিকে এশিয়ার এ অঞ্চলটিতে চীনের প্রভাব কমাতে চায় ওয়াশিংটন। খবর: রয়টার্স, আল জাজিরা।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের আমন্ত্রণে ওয়াশিংটনে আসিয়ানের নেতাদের দুই দিনের শীর্ষ সম্মেলন শুরু হয়েছে। এতে যোগ দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনও। বৃহস্পতিবার বাইডেন ওয়াশিংটনে সম্মেলন উদ্বোধন করে এ ১০ জাতির আঞ্চলিক জোটের উন্নয়নে ১৫ কোটি ডলারের সহায়তা ঘোষণা করেন। 

গতকাল মার্কিন কর্মকর্তারা বলেন, প্রথম দিনের বৈঠক শেষে দেশগুলোর নেতারা হোয়াইট হাউসে বাইডেনের সঙ্গে নৈশভোজে অংশ নেন। আসিয়ানের সদস্যদেশগুলো হলোÑব্রুনাই, ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর, লাওস, থাইল্যান্ড, কম্বোডিয়া, ভিয়েতনাম, ফিলিফাইন ও মিয়ানমার। তবে ফিলিপাইনের আসন্ন জাতীয় নির্বাচন কেন্দ্র করে কোনো প্রতিনিধি এবারের সম্মেলনে অংশ নেয়নি। আর সেনা অভুত্থানের জন্য মিয়ানমারকে  সম্মেলনে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। ফলে ৮টি দেশের সদস্যরাই শীর্ষ সম্মেলনে অংশ নিয়েছে।

ইউক্রেনে চলছে রাশিয়ার হামলা। যেখানে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে যুক্তরাষ্ট্র। তারপরও এশিয়া-প্যাসিফিক অঞ্চলে নজর রয়েছে দেশটির নেতাদের। তাছাড়া অঞ্চলটিতে ক্রমেই আধিপত্য বাড়ছে চীনের, যা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে আসছে মার্কিন প্রশাসন।

মার্কিন প্রশাসনের একজন সিনিয়র কর্মকর্তা বলেছেন, আমরা দেশগুলোকে যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যে যেকোনো একটি বেছে নিতে বলছি না। তবে এটা স্পষ্ট যে আমরা একটি শক্তিশালী সম্পর্ক চাই।

মার্কিন এ আর্থিক সহায়তার চার কোটি ডলার কার্বন নিঃসরণ কমাতে, ছয় কোটি ডলার সামুদ্রিক নিরাপত্তায়, স্বাস্থ্য খাতে এক কোটি ৫০ লাখ ডলার ব্যয় করা হবে। দেশগুলোতে ডিজিটাল অর্থনীতি ও কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার জন্য আইনি কাঠামোর বিকাশে বাকি অর্থ ব্যয় করা হবে।

গত বছরের নভেম্বরে আশিয়ানকে এক দশমিক পাঁচ বিলিয়ন ডলারের উন্নয়ন সহায়তা দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেয় চীন।