বিশ্ব সংবাদ

ইইউর ওপর আরোপিত শুল্ক বাতিল করবে যুক্তরাষ্ট্র

শেয়ার বিজ ডেস্ক: ইউরোপের উড়োজাহাজ প্রস্তুতকারক জায়ান্ট কোম্পানি এয়ারবাস ও যুক্তরাষ্ট্রের জায়ান্ট কোম্পানি বোয়িংয়ের মধ্যে ১৬ বছর ধরে চলা বাণিজ্যযুদ্ধের ইতি চাইছে দুই পক্ষই। এ লক্ষ্যে এয়ারবাসকে অবৈধভাবে ভর্তুকি দিচ্ছে ইউরোপ ও যুক্তরাজ্য, এমন অভিযোগ এনে এ দুই অঞ্চল থেকে আমদানি করা ৭৫০ কোটি ডলার পণ্যের ওপর হুমকিস্বরূপ শুল্ক আরোপ করেছিল যুক্তরাষ্ট্র। এখন তা বন্ধ করা হবে বলে জানিয়েছে দেশটি। খবর: বিবিসি।

ফরাসি উড়োজাহাজ নির্মাণকারী সংস্থা এয়ারবাসকে ইইউ অবৈধভাবে ভর্তুকি দিচ্ছে, এমন অভিযোগ তুলে গত বছরের অক্টোবরে ইউরোপ থেকে আমদানি করা ৭৫০ কোটি ডলারের পণ্যে বাড়তি শুল্ক আরোপ করে যুক্তরাষ্ট্র। এর আওতায় ইউরোপ থেকে সীমান্ত দিয়ে আমদানি করা প্রায় ১০০ পণ্য পড়ে ছিল। এসব পণ্যের মধ্যে শীতবস্ত্র, অ্যালকোহল ও পনিরের মতো পণ্য রয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের অভিযোগ ছিল, তারা যতটুকু ছাড় দিচ্ছে, ইইউ তাদের ততটা ছাড় দিচ্ছে না।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রধান বাণিজ্য কর্মকর্তা রবার্ট লাইথিজার গত বুধবার বলেন, ‘বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার (ডব্লিউটিও) সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কাজ করছে না ইইউ ও সদস্য দেশগুলো। তবে যুক্তরাষ্ট্র অবশ্যই এ বিরোধের দীর্ঘমেয়াদি সমাধান গ্রহণে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।’

যুক্তরাষ্ট্রের এ সিদ্ধান্তে অত্যন্ত সতর্ক মন্তব্য করেছে ইইউ। তারা পণ্যের ওপর শুল্ক না বাড়ানোর এ পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়েছে। ইইউর মুখপাত্র বলেন, ‘ইউরোপীয় পণ্যের ওপর শুল্ক বাড়িয়েছে চলমান উড়োজাহাজ কোম্পানির বিতর্ক, যেটি আরও তীব্র না করায় যুক্তরাষ্ট্রের অবদান তারা স্বীকার করছে।’ গত মাসে এয়ারবাস জানায়, তারা বোয়িংয়ের সঙ্গে এ বিরোধের জন্য দায়ী কিছু চুক্তির পরিবর্তন করবে।

এর আগে জুনে যুক্তরাষ্ট্র জানায়, ইউরোপ থেকে আমদানি করা অনেক পণ্যে শুল্ক আরোপ করবে তারা। নতুন সিদ্ধান্তের বিষয়ে ২৬ জুলাই পর্যন্ত জনমত গ্রহণ করা হবে। এরপর শুল্ক আরোপের সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে। সিদ্ধান্ত কার্যকর হলে যুক্তরাষ্ট্রের বিমাননির্মাতা প্রতিষ্ঠান বোয়িংকে অবৈধ সুবিধা দেওয়ার অভিযোগে যুক্তরাষ্ট্রের এক হাজার ১০০ কোটি ডলারের পণ্যে পাল্টা শুল্ক আরোপ করতে পারে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। তবে এখন সেই অবস্থান থেকে সরে এলো যুক্তরাষ্ট্র।

যুক্তরাষ্ট্র ও ইইউ মিলে বিশ্বের প্রায় ৫০ শতাংশ বাণিজ্য নিয়ন্ত্রণ করে। ফলে গত কয়েক মাসে পরস্পরের ওপর নানা ধরনের শুল্ক আরোপের কারণে বিশ্বব্যাপী শঙ্কা দেখা দিয়েছিল।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..