Print Date & Time : 2 July 2022 Saturday 10:48 am

ইউক্রেনে নিজেদের নেতাকে ক্ষমতায় আনতে চায় মস্কো

শেয়ার বিজ ডেস্ক:এবার ইউক্রেন ইস্যুতে রাশিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ করল যুক্তরাজ্য। দেশটির অভিযোগ, ইউক্রেনে নিজেদের অর্থাৎ রুশপন্থি নেতাকে ক্ষমতায় বসাতে চায় মস্কো। এ লক্ষ্যে ইউক্রেনের সাবেক কয়েকজন রাজনীতিকের সঙ্গে রাশিয়ার গোয়েন্দা কর্মকর্তারা যোগাযোগ করছেন বলে অভিযোগ করেছে যুক্তরাজ্য। একই সঙ্গে ইউক্রেনে হামলার পরিকল্পনাও করছে রাশিয়া। খবর: রয়টার্স।

ইউক্রেন নিয়ে রাশিয়ার সঙ্গে পশ্চিমা দেশগুলো বিশেষ করে যুক্তরাষ্ট্রের উত্তেজনা বেড়ে চলেছে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে মস্কোর বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ করল যুক্তরাষ্ট্রের ঘনিষ্ঠ মিত্র যুক্তরাজ্য। তবে এ অভিযোগের পক্ষে কোনো প্রমাণ দেখাতে পারেনি দেশটির ব্রিটিশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

ইউক্রেন সীমান্তে দীর্ঘদিন ধরে প্রায় এক লাখ সেনাসদস্য মোতায়েন করে রেখেছে প্রতিবেশী দেশ রাশিয়া। যেকোনো মুহূর্তে রুশ সেনারা দেশটিতে আক্রমণ করতে পারে বলে আশঙ্কা রয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে যুক্তরাজ্যের এই অভিযোগ বেশ তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। তবে ইউক্রেনে হামলার কোনো পরিকল্পনা নেই বলে জানিয়ে আসছে মস্কো।

যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ইউক্রেনে রুশপন্থি নেতা হিসেবে দেশটির সাবেক আইনপ্রণেতা ইয়েভহেন মুরায়েভকে রাশিয়ার সরকার বিবেচনা করছে বলে তাদের কাছে তথ্য রয়েছে। পররাষ্ট্রমন্ত্রী লিজ ট্রাস জানিয়েছেন, ইউক্রেনের ক্ষমতায় রুশপন্থি কোনো নেতাকে বসানোর ব্যাপারে ক্রেমলিনের ষড়যন্ত্র মেনে নেয়া হবে না। ক্রেমলিন জানে, ইউক্রেনে সামরিক হামলা চালানো হলে সেটি হবে কৌশলগতভাবে বড় ধরনের ভুল এবং যুক্তরাজ্য ও এর মিত্ররা এর কড়া জবাব দেবে।

গতকাল রাশিয়া ও ইউক্রেনের বিষয়ে যুক্তরাজ্যের এ বক্তব্য প্রকাশ করা হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে এখনও কিছু জানাননি রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন ও ইউক্রেনের সাবেক আইনপ্রণেতা ইয়েভহেন মুরায়েভ।

যুক্তরাজ্যের অভিযোগের পর গভীর উদ্বেগ জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটির ন্যাশনাল সিকিউরিটি কাউন্সিলের মুখপাত্র এমিলি হর্ন এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, এ ধরনের পরিকল্পনা খুবই উদ্বেগজনক। নিজেদের ভবিষ্যৎ নির্ধারণের সার্বভৌম অধিকার ইউক্রেনের জনগণের রয়েছে এবং যুক্তরাষ্ট্র গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত ইউক্রেনের অংশীদারদের পাশে রয়েছে।