প্রচ্ছদ শেষ পাতা

ইএফডির মাধ্যমে ভ্যাটে স্বচ্ছতা আসবে: জাকিয়া সুলতানা

নিজস্ব প্রতিবেদক: ইএফডির (ইলেকট্রনিক ফিসক্যাল ডিভাইস) মাধ্যমে ভ্যাটের ক্ষেত্রে স্বচ্ছতা আসবে। সরকারের রাজস্ব নেট বাড়বে বলে জানিয়েছেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) সদস্য (মূসক নিরীক্ষা ও গোয়েন্দা) জাকিয়া সুলতানা। তিনি বলেন, নতুন বছরের মাঝামাঝি সময়ে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোতে আরও ১০ হাজার ইএফডি মেশিন বসানো হবে। গতকাল দুপুরে রাজধানীর কারওয়ান বাজারের সামারাই কনভেনশন সেন্টারে ইএফডি ও সেলস ডেটা কন্ট্রোলার (এসডিসি) ব্যবহার ও উপকারিতা সম্পর্কে অবহিতকরণের লক্ষ্যে ব্যবসায়ীদের অংশগ্রহণে সেমিনার ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ তথ্য জানান। কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট, ঢাকা দক্ষিণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

জাকিয়া সুলতানা বলেন, বসুন্ধরা সিটি, বায়তুল মোকাররমের বিভিন্ন দোকানসহ এক হাজার দোকানে ইএফডি মেশিন বসানো আছে। আগামী বছরের মাঝামাঝি সময়ের মধ্যে এ সংখ্যা বাড়বে। আরও ১০ হাজার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ইএফডি মেশিন বসানো হবে। আমরা এক লাখ ইএফডি মেশিন দিতে ভেন্ডারের সঙ্গে চুক্তি করেছি। পর্যায়ক্রমে সব দোকানে এই মেশিন বসানো হবে। তিনি বলেন, এখনও অনেক প্রতিষ্ঠানে ইএফডি মেশিন বসানো হয়নি। সেটা নিয়ে ব্যবসায়ীদের কমপ্লেইন রয়েছে। পর্যায়ক্রমে সব দোকানে এ মেশিন বসানো হবে। তখন আর এ অভিযোগ থাকবে না। ডিভাইসের কিছু সমস্যা আমরা আইডেন্টিফাই করেছি। আপনারাও মেশিনের কিছু ত্রুটি ধরিয়ে দিয়েছেন। আমরা সেগুলো সুলভ (সমাধান) করার চেষ্টা করছি। ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ইএফডির ব্যবহারে ভ্যাটে স্বচ্ছতা আসবে। ভ্যাট নিয়ে ভোক্তা ও ব্যবসায়ী পরস্পর যে অভিযোগ করেন তা থাকবে না। সরকার করনেট সম্প্রসারণের চেষ্টা করছে। ইএফডির ব্যবহার করনেট সম্প্রসারণে সহায়তা করবে। ভ্যাট তো ভোক্তা দেয়, ব্যবসায়ী তো তার পকেট থেকে দেবে না। ব্যবসায়ী সংগ্রহ করে তা সরকারের কোষাগারে জমা দেবেন। ব্যবসায়ী আমানতকারী হিসেবে কাজ করেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন এফবিসিসিআইয়ের ভাইস প্রেসিডেন্ট ও বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতির সাধারণ সম্পাদক দিলীপ কুমার আগরওয়ালা। তিনি বলেন, সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে আমরাও অংশীদার। ইফডি মেশিনে কিছু ত্রুটি-বিচ্যুতি উল্লেখ করে তিনি বলেন, আগের ইসিআর এখন ইফডি। তবে সেটা চালানোর দক্ষতা আমাদের কর্মীদের নেই। মেশিন অকেজো হয়ে গেলে অনেক ভোগান্তিতে পড়তে হয়। আশা করি দ্রুতই এসব সমস্যার সমাধান হবে। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা দক্ষিণ ভ্যাট কমিশনারেটের কমিশনার ডা. এসএম হুমায়ুন কবীর। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন, বসুন্ধরা সিটি শপিংমল দোকান মালিক সমিতির সভাপতি এমএ হান্নান আজাদ, সাধারণ সম্পাদক মো. গোলাম মৌলাসহ বিভিন্ন ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন
ট্যাগ ➧

সর্বশেষ..