Print Date & Time : 2 March 2021 Tuesday 12:33 am

ইতিবাচক প্রবণতায় শেষ হলো সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসের লেনদেন

প্রকাশ: November 29, 2020 সময়- 11:34 pm

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গতকাল সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে ডিএসইতে ইতিবাচক প্রবণতায় লেনদেন শেষ হয়। এদিন ৪১ শতাংশ কোম্পানির শেয়ারের দর কমলেও সূচক ও লেনদেন বেড়েছে। এদিন মোট ৩৫০টি কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ১১০টির এবং কমেছে ১৪৫টির। বাকি ৯৫টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ারদর অপরিবর্তিত ছিল। গতকাল ডিএসইতে লেনদেন হয় ৭৬৬ কোটি ২১ লাখ ৫১ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৭৫৮ কোটি ৩৩ লাখ ২৮ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। অর্থাৎ লেনদেন বেড়েছে সাত কোটি ৮৮ লাখ ২৩ হাজার টাকা। এদিন ২৮ কোটি ৭০ লাখ ৯৬ হাজার ৮৪৬টি শেয়ার এক লাখ ৪৭ হাজার ২৮৮ বার হাতবদল হয়। গতকাল লেনদেনের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত উত্থান-পতনের মধ্য দিয়ে লেনদেন হয়। অন্যদিকে চিটাগং স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) একই চিত্র দেখা গেছে।

বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ১২ দশমিক ৭২ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ২৬ শতাংশ বেড়ে চার হাজার ৮৮১ দশমিক ৮২ পয়েন্টে পৌঁছায়। ডিএসইএস বা শরিয়াহ্ সূচক দুই দশমিক শূন্য ছয় পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ১৮ শতাংশ বেড়ে এক হাজার ১২০ দশমিক ৯১ পয়েন্টে অবস্থান করে। অন্যদিকে ডিএস৩০ সূচক ৯ দশমিক ০৯ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ৫৩ শতাংশ বেড়ে এক হাজার ৬৯৮ দশমিক ৭৯ পয়েন্টে স্থির হয়। গতকাল ডিএসইর বাজার মূলধন ২৬২ কোটি ২৯ লাখ ৮৯ হাজার টাকা বেড়ে দাঁড়িয়েছে তিন লাখ ৯০ হাজার ৭৯৫ কোটি ৮৬ লাখ ৩৭ হাজার টাকায়।

গতকাল টাকার অঙ্কে লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে বাংলাদেশ এক্সপোর্ট-ইমপোর্ট কোম্পানি লিমিটেড। কোম্পানিটির ৪৯ কোটি ৪৩ লাখ ২১ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। শেয়ারটির দর এক টাকা ১০ পয়সা বেড়েছে। দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের ৪৩ কোটি ১১ লাখ ৪৭ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। শেয়ারদর ছয় টাকা ৮০ পয়সা বেড়েছে। নর্দার্ন ইসলামী ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ২২ কোটি ২০ লাখ ৬১ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিটির শেয়ারদর তিন টাকা ৬০ পয়সা বেড়েছে। এর পরের অবস্থানগুলোয় থাকা নিটল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ২০ কোটি ১১ লাখ ৬৮ হাজার, ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন আ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের ১৬ কোটি ৩৬ লাখ ৪৩ হাজার টাকার, রিলায়েন্স ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ১৪ কোটি ৯০ লাখ ১৫ হাজার, প্রাইম ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ১৪ কোটি ৪৭ লাখ ৫৮ হাজার টাকার, বাংলাদেশ সাবেমেরিন কেব্ল কোম্পানি লিমিটেডের ১৩ কোটি ৭৭ লাখ ২০ হাজার টাকার, এশিয়া প্যাসিফিক জেনারেল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ১২ কোটি এক লাখ ৫৮ হাজার টাকার এবং রিপাবলিক ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ১১ কোটি ৪৪ লাখ এক হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

১০ শতাংশ বেড়ে দর বৃদ্ধির শীর্ষে ছিল ইউনাইটেড ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড। গ্রীনডেল্টা ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ৯ দশমিক ৯৮ শতাংশ, রিলায়েন্স ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ৯ দশমিক ৯৮ শতাংশ ও জনতা ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ৯ দশমিক ৯৭ শতাংশ শেয়ারদর বেড়েছে। প্রগতি ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ৯ দশমিক ৮৮ শতাংশ, প্রাইম ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ৯ দশমিক ৮৭ শতাংশ, নর্দার্ন ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ৮ দশমিক ৪৩ শতাংশ, ইস্টল্যান্ড ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের আট দশমিক ০৭ শতাংশ, স্ট্যান্ডার্ড ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ৭ দশমিক ৫৮ শতাংশ ও বাংলাদেশ সাবমেরিন কেব্ল কোম্পানি লিমিটেডের ৫ দশমিক ৯৬ শতাংশ শেয়ারদর বেড়েছে।

অন্যদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) প্রধান সূচক সিএসসিএক্স ৪৬ দশমিক ৬০ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ৫৫ শতাংশ বেড়ে আট হাজার ৪৫৩ দশমিক ২০ পয়েন্টে এবং সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৭৬ দশমিক ১২ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ৫৪ শতাংশ বেড়ে ১৪ হাজার ৩৮ দশমিক ১২ পয়েন্টে অবস্থান করে। সিএসইতে ২৪৫টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়েছে। দর বেড়েছে ৮৫টির, কমেছে ৯৪টির এবং ৬৬টির দর অপরিবর্তিত ছিল। সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ২৪ কোটি ৬৫ লাখ ৫৬ হাজার ৯১২ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ২৩ কোটি ৩৭ লাখ ৩৭ হাজার ৬২২ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসাবে লেনদেন বেড়েছে এক কোটি ২৮ লাখ ১৯ হাজার ২৯০ টাকার।

সিএসইতে এদিন লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে আইবিবিএল মুদারাবা পারপেচুয়াল বন্ড। ফান্ডটির তিন কোটি ৯৯ লাখ ৭০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেডের দুই কোটি ২৮ লাখ ৮০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো বাংলাদেশ কোম্পানি লিমিটেডের দুই কোটি ১৬ লাখ ২০ হাজার টাকার, বাংলাদেশ এক্সপোর্ট ইমপোর্ট কোম্পানি লিমিটেডের দুই কোটি ১৫ লাখ ৭০ হাজার টাকার, ম্যারিকো বাংলাদেশ লিমিটেডের ৭৩ লাখ ৮০ হাজার টাকার, সেন্ট্রাল ইন্স্যুরেন্স লিমিটেডের ৭০ লাখ ৩০ হাজার টাকার, প্রাইম ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ৬৫ লাখ ৩০ হাজার টাকার, ফেডারেল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ৫৯ লাখ ৬০ হাজার টাকার, বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের ৫৭ লাখ ৫০ হাজার টাকার এবং আমান কটন ফাইব্রাস লিমিটেডের ৩৯ লাখ ৯০ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে।