প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

ইমরুল-সাব্বিরের ভাবনায় রানআউট

 

ক্রীড়া ডেস্ক: তৃতীয় ওয়ানডের আগে গতকাল নেলসনে সাব্বির রহমান-ইমরুল কায়েসের রানআউট নিয়েই শুধু কথা হয়েছে। ইশ, ওই রানআউটটা যদি না হতো দ্বিতীয় ওয়ানডেতে নিউজিল্যান্ডকে হারাতে পারতো বাংলাদেশ। তবে নিজেদের রানআউটকে ম্যাচের অংশ হিসেবেই দেখছেন টাইগার দুই ক্রিকেটার। পরে এ ধরনের ভুল যেন আর না হয় সতর্ক থাকবেন তারা।

দ্বিতীয় ওয়ানডেতে দারুণ ব্যাট করছিলেন সাব্বির-ইমরুল। নিউজিল্যান্ডের দেওয়া ২৫২ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে দ্বিতীয় উইকেটে এ দুই ব্যাটসম্যান ৭৫ রান যোগ করেন। এ সময় জয়টা খুব সহজই মনে হয়েছিল বাংলাদেশের। কিন্তু ২৩তম ওভারের মিচেল স্যান্টনারের শেষ বলে রান নিতে গিয়ে ভুল বোঝাবুঝিতে একই প্রান্তে চলে যান ইমরুল-সাব্বির। তবে একপ্রান্তে দুজন পৌঁছালেও ক্রিসে আগে ব্যাট ছোঁয়ান ইমরুল। তাই তো রানআউটের ফাঁদে পড়েন সাব্বির।

রানআউটের ব্যাপারে গতকাল নেলসনে সংবাদমাধ্যমকে সাব্বির বলেছেন, ‘আমার একটাই চিন্তা ছিল, কীভাবে ম্যাচটা জেতাতে পারব। কীভাবে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব দলকে এগিয়ে নিতে পারব। রানআউটটা গুরুত্বপূর্ণ ছিল। কিন্তু এটা দুর্ভাগ্যজনকভাবে হয়ে গেছে। খেলায় এ রকম হতেই পারে।’

রানআউট নিয়ে আক্ষেপ নেই সাব্বিরের। প্রথম ওয়ানডেতে দুজন একপ্রান্তে না পৌঁছে তার আগেই ইমরুলকে জায়গা ছেড়ে দিলে ভালো হতো বলে মনে করেন সাব্বির। ‘ব্যাট আগে প্লেস করব না পরে, এ নিয়ে কোনো চিন্তা ছিল না আমার। ইমরুল ভাই আগে চলে গেছেন। সেজন্য উনি বেঁচে গেছেন। আমি আউট হয়ে গেছি। উনি সেট ব্যাটসম্যান ছিলেন। আমারই উচিত ছিল ওনাকে ক্রিজ ছেড়ে দেওয়া।’

একটা ভুলই ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দিয়েছিল নেলসনে। যা বেশ পোড়ায় ইমরুলকেও। তবে বাঁহাতি এ ওপেনার এটাকে খেলার অংশ হিসেবেই দেখছেন। ‘রানআউট খেলার অংশ। এটাকে মেনে নিতেই হবে। রানআউটটা হওয়ার আগ পর্যন্ত সব ভালো চলছিল, আমাদের দুজনের বোঝাপড়া ভালো ছিল। একটা ভুল হয়ে গেছে এবং এটা অবশ্যই ম্যাচের টার্নিং পয়েন্ট। সাব্বির আর আমি আরও কিছুক্ষণ একসঙ্গে খেলতে পারলে ম্যাচ সহজ হয়ে যেত।’

ভবিষ্যতে এমন ভুল আর করতে চান না ইমরুল-সাব্বিররা। সেটা তো পরের কথা। আপাতত এ রানআউট নিজেদের তাড়িয়ে বেড়াবে অনেক দিন। গতকাল নেলসনে তারই য়েন একটা মহড়া হয়ে গেল। সব কিছু পেছনে ফেলে বাংলাদেশের আজ একটায় চিন্তা, কিউইদের বিপক্ষে যেন হোয়াইটওয়াশের লজ্জায় না পড়তে হয়। এরই মধ্যে শুরু হয়েছে দুই দলের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডে। দেখা যাক শেষ পর্যন্ত কী হয়!