প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

ইরাকের কুর্দি অঞ্চলে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা

শেয়ার বিজ ডেস্ক: ইরাকের উত্তরাঞ্চলে কুর্দিদের (কুর্দিস্তান) রাজধানী ইরবিলে ১২টি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানো হয়েছে। এতে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। এ হামলার দায়ও এখনও কেউ স্বীকার করেনি। খবর: আল জাজিরা।

কুর্দিস্তানের আঞ্চলিক গভর্নরের কার্যালয় থেকে গতকাল এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, এ হামলায় একজন সামান্য আহত হয়েছেন। এ ছাড়া কয়েকটি ভবন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

গতকাল ভোর ৫টার দিকে এ হামলার ঘটনাকে ‘ভয়াবহ হামলা’ উল্লেখ করে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র বলেন, ইরবিলে থাকা যুক্তরাষ্ট্রের কোনো নাগরিক হতাহত হননি।

আধা স্বায়ত্তশাসিত কুর্দি অঞ্চলের সন্ত্রাসবিরোধী বাহিনীর বরাত দিয়ে আল জাজিরা জানায়, ইরাকের বাইরে থেকে ১২টি ক্ষেপণাস্ত্র আঘাত হানে। মিসাইলগুলো নির্দিষ্টভাবে কোথায় পড়েছে তা স্পষ্ট করেনি কর্তৃপক্ষ। তবে ইরাকের এই আধা স্বায়ত্তশাসিত কুর্দিস্তানের মার্কিন সামরিকঘাঁটি, কনস্যুলেট ভবন ও ইসরাইলের গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের একটি প্রশিক্ষণকেন্দ্রে ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানো হয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে। হামলার ফলে ইরবিলের মার্কিন ঘাঁটিতে আগুন ধরে যায়।

এ ঘটনার পর নিরাপত্তা বাহিনীকে উচ্চ সতর্ক অবস্থায় রাখা হয়েছে। ইরবিল বিমানবন্দরে যাওয়ার পথ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। হামলার পর ইরবিলের আকাশে মার্কিন সামরিক বিমান টহল দেয় ও বেসামরিক বিমানের ওঠানামা স্থগিত করা হয়।

ইরবিলের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর কমপ্লেক্সে থাকা মার্কিন বাহিনী অতীতে রকেট ও ড্রোন হামলার শিকার হয়েছে। এসব ঘটনায় ইরান সমর্থিত সমস্ত্র গোষ্ঠীগুলোকে দায়ী করে যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্ররা। তবে গত কয়েক মাস ধরে হামলার ঘটনা বেশ কমে এসেছে। এর আগে ২০২০ সালে মার্কিন বাহিনীকে লক্ষ্য করে মিসাইল ছোড়া হয়। তখন মূলত ইরানের কমান্ডার কাসেম সোলেইমানিকে হত্যার প্রতিশোধ নিতে হামলা চালায় তেহরান।