বিশ্ব সংবাদ

ইরানের বিজ্ঞানী হত্যার অভিযোগ অস্বীকার ইসরাইলের

শেয়ার বিজ ডেস্ক : ইসরাইলের বিরুদ্ধে ইরানের অন্যতম শীর্ষ পরমাণু বিজ্ঞানী মোহসেন ফখরিজাদেহকে হত্যার অভিযোগ তোলা হলেও তা অস্বীকার করেছে তেল আবিব। দেশটির নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ ও সেটেলমেন্ট অ্যাফেয়ার্স-বিষয়ক মন্ত্রী তাজাচি হানেগবি গত শনিবার দাবি করেছেন, তেহরানের ওই বিজ্ঞানীকে হত্যার নেপথ্যে কে আছে, সে বিষয়ে তাদের বিন্দুমাত্র ধারণা নেই। হত্যার ঘটনায় মধ্যপ্রাচ্যে সৃষ্ট উত্তেজনার জেরে সংযম দেখানোর আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘ। খবর: বিবিসি ও এএফপি।

শুক্রবার ইরানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে জানানো হয়, ওই মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ গবেষণা ও উদ্ভাবনী সংস্থার প্রধান মোহসিন ফখরিজাদেহকে বহনকারী গাড়ি লক্ষ করে হামলা চালিয়ে হত্যা করেছে সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা। পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফ দাবি করেন, এ ঘটনায় ইসরাইলের হাত রয়েছে।

ইসরাইলের টিভি চ্যানেল এন১২-এর মিট দ্য প্রেস অনুষ্ঠানে ইসরাইলের মন্ত্রী হানেগবি বলেন, ‘এটা কে করেছে, সে সম্পর্কে আমার ধারণা নেই। আমি দায়ী বলে মুখবন্ধ তা নয়, আসলেই আমার কাছে কোনো সূত্র নেই।’

মোহসেন ফখরিজাদেহকে হত্যার বদলা নেওয়ার প্রতিজ্ঞা করেছেন ইরানের শীর্ষ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনি ও প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি। এ ঘটনায় উপসাগরীয় অঞ্চলে নতুন করে তীব্র উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে। জাতিসংঘের এক মুখপাত্র গত শনিবার বলেন, ‘আমরা সংযম দেখানোর আহ্বান জানাচ্ছি। এ অঞ্চলে উত্তেজনা বাড়তে পারে, এমন যেকোনো পদক্ষেপ এড়ানোর আহ্বান জানাই।’ জাতিসংঘের ওই মুখপাত্র আরও বলেন, ‘আমরা যেকোনো হত্যাকাণ্ড বা বিচারবহির্ভূত হত্যার নিন্দা জানাই।’

পশ্চিমা বিশ্বের গোয়েন্দা সংস্থাগুলো মোহসেন ফখরিজাদেহকে ইরানের গোপন পারমাণবিক অস্ত্র কর্মসূচির মূল পরিকল্পনাকারী হিসেবে বিবেচনা করে থাকে। এ ছাড়া কূটনীতিকেরা প্রায়ই তাকে ‘ইরানের বোমার জনক’ আখ্যা দিয়ে থাকেন।

শনিবার ইরানের পক্ষ থেকে মোহসেন ফখরিজাদেহকে হত্যার প্রতিশোধ নেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়। ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনির সামরিক উপদেষ্টা হোসেইন দেহাগান বজ্রপাতের মতো অপরাধীদের আঘাত করার অঙ্গীকার করেন।

ইরানি পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাভাদ জারিফ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে ‘রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের এই কাজের নিন্দা’ করার আহ্বান জানিয়েছেন। ইরানের জাতিসংঘের রাষ্ট্রদূত মজিদ তখত রাভঞ্চি বলেছেন, ‘এই হত্যাকাণ্ড আন্তর্জাতিক আইনের সুষ্পষ্ট লঙ্ঘন, যা এই অঞ্চলে বিপর্যয় ডেকে আনার জন্য তৈরি।’

২০১৮ সালের এপ্রিল মাসে ইরানের পরমাণু কর্মসূচিবিষয়ক এক উপস্থাপনায় ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু বিশেষভাবে ফখরিজাদেহর নাম উল্লেখ করেছিলেন।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..