প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

ইলেকটোরাল কলেজ ভোটেও জয়ী ট্রাম্প

শেয়ার বিজ ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের ৪৫তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ ও দায়িত্ব গ্রহণে ডোনাল্ড ট্রাম্পের সামনে আর কোনো বাধা থাকলো না। ইলেকটোরাল কলেজ ভোটেও জয়ী হয়েছে ট্রাম্পের রিপাবলিকান পার্টি। নির্বাচনের ছয় সপ্তাহ পর ইলেকটোরাল কলেজ ভোটে জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় ২৭০ ভোট নিশ্চিত হয়েছে। খবর বিবিসি।

আগামী ৬ জানুয়ারি কংগ্রেসের বিশেষ যৌথ অধিবেশনে এই ভোটের ফল আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করা হবে।

প্রয়োজনীয় ২৭০ ইলেকটোরাল কলেজ ভোট নিশ্চিত হওয়ার পর আবারও দেশকে ঐক্যবদ্ধ করতে কঠোর পরিশ্রম করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। একই সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সব নাগরিকের প্রেসিডেন্ট হওয়ার বিষয়েও আশ্বস্ত করেন তিনি।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, ট্রাম্পকে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করা হবে কি না, তা নির্ধারণের জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় গতকাল  সোমবার ৫০টি অঙ্গরাজ্যে এবং ডিসট্রিক্ট অব কলাম্বিয়ায় ৫৩৮ জন ইলেকটর বসেন।

ইলেকটররা ট্রাম্পকেই আনুষ্ঠানিকভাবে প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচন করেন। তবে রিপাবলিকান দলের দুজন ইলেকটর ট্রাম্পের বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন। অন্যদিকে  ডেমোক্র্যাটিক দলের চারজন ইলেকটর হিলারি ক্লিনটনের বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন।

এদিকে, এই ভোটের আগে ট্রাম্পকে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত না করার দাবিতে দেশটির বিভিন্ন রাজ্যে মিছিল করেছে হাজারো মানুষ। এই বিলিয়নিয়ারকে সমর্থন না দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে ইলেকটরদের বার বার ই-মেইল পাঠানো এবং ফোনও করা হয়েছিল বলে জানা গেছে।

এর আগে গত ৮ নভেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জনগণের প্রত্যক্ষ ভোটে নির্বাচিত হন হিলারি ক্লিনটন। তিনি ট্রাম্পের চেয়ে প্রায় ৩০ লাখ ভোট বেশি পান। তবে বেশ কয়েকটি বড় রাজ্যে সামান্য ব্যবধানে জয় পেয়ে অধিকাংশ ইলেকটোরাল ভোট নিজের করে নেন ট্রাম্প।

দেশটির এবারের নির্বাচনে রাশিয়া প্রভাব রেখেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। রাশিয়ার পরোক্ষ সমর্থনেই ট্রাম্প নির্বাচনের বৈতরণী পার হয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন  খোদ হিলারি। তার দাবি, রাশিয়া তাদের হ্যাকারদের মাধ্যমে তার ই-মেইল অ্যাকাউন্ট হ্যাক করে এবং তাকে বিতর্কিত করার চেষ্টা চালায়। আর এর প্রভাব পড়ে নির্বাচনে।