মার্কেটওয়াচ

ইস্যু ম্যানেজাররাই বাজারের মূল শক্তি

পুঁজিবাজারের বড় দুর্বলতা হচ্ছেÑসবসময় দেখা যায়, আমরা বাজার পতনের জন্য এককভাবে বিনিয়োগকারী ও নিয়ন্ত্রক সংস্থাকে দোষারোপ করে থাকি। কিন্তু বাজারে বড় ভূমিকা রয়েছে স্পন্সর ও ইস্যু ম্যানেজারদের। এটি আমরা কেউ বিবেচনা করি না। তাদের বিষয়টি সেভাবে প্রকাশ্যে আসেও না। আসলে এ ইস্যু ম্যানেজাররাই বাজারের মূল শক্তি এবং তাদের মাধ্যমেই ইকুইটি সরবরাহ করা হয়। গতকাল এনটিভির মার্কেট ওয়াচ অনুষ্ঠানে বিষয়টি আলোচিত হয়।

হাসিব হাসানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন দ্য ফাইন্সিয়াল এক্সপ্রেসের সিনিয়র নিউজ কনসালটেন্ট রায়হান এম চৌধুরী এবং পুঁজিবাজারের টেকনিক্যাল অ্যানালিস্টের ইঞ্জিনিয়ার রহমত উল্লাহ।

রায়হান এম চৌধুরী বলেন, পুঁজিবাজারের বড় দুর্বলতা হচ্ছে, সবসময় দেখা যায়, আমরা এককভাবে বিনিয়োগকারী ও নিয়ন্ত্রক সংস্থাকে দোষারোপ করি। কিন্তু বাজারে বড় ভূমিকা রয়েছে স্পন্সর ও ইস্যু ম্যানেজারদের। এটি আমরা কেউ বিবেচনা করি না বা তাদের বিষয়টি সেভাবে প্রকাশ্যে আসে না। এ ইস্যু ম্যানেজাররাই বাজারের মূল শক্তি এবং তাদের মাধ্যমেই ইকুইটি সরবরাহ করা হয়। বাজারে তাদের দায়িত্ব নিয়ে অনেক প্রশ্ন রয়েছে। আবার অনেকে বিনিয়োগকারীদের উপদেশ দিয়ে থাকেন ওই শেয়ারটি কিনেন। শেয়ারটি সামনে দাম বাড়বে। এভাবে উন্নত বিশ্বের পুঁজিবাজারে প্রায় ৯০ শতাংশ বিনিয়োগকারী লাভবান হন। কিন্তু এখানে বিনিয়োগকারী মুনাফা তো দূরের কথা, শুধু লোকসান করতে থাকেন। আসলে যারা শেয়ার কেনার জন্য উপদেশ দিচ্ছেন, তারা কতটুকু বুঝে দিচ্ছেন; না বিনিয়োগকারীদের বিভ্রান্ত করার জন্য উপদেশ দিচ্ছেন। এটা নিয়ে সবার অভিযোগ এবং অনেকে প্রশ্ন তুলেছেন। এটা আসলে বরাবরের মতোই হয়ে আসছে। আমি বিশ্বাস করি, একজন বিনিয়োগকারী যদি শেয়ার কেনাবেচার ক্ষেত্রে ভালো করে যাচাই-বাছাই করেন, সেক্ষেত্রে ক্ষতির সম্ভাবনা কম থাকে। কারণ কোনো কোম্পানি সম্পর্কে তথ্য জানা কোনো কঠিন কাজ না। ভালো করে যাচাই-বাছাই করলে কোম্পানির ইতিবাচক-নেতিবাচক তথ্য সহজেই পেয়ে যাবেন। ফলে শেয়ার কেনাবেচার ক্ষেত্রে অন্য কারও উপদেশ নিতে হবে না। অর্থাৎ নিজেকে তৈরি করে নিন এবং সতর্ক থাকুন। বাজার সম্পর্কে যতটুকু জানার দরকার ততটুকু অর্জন করার চেষ্টা করুন।

তিনি আরও বলেন, পুঁজিবাজারে এখনও অনেক ফাঁকফোকর রয়েছে। শুধু পুঁজিবাজার নয়, অর্থনৈতিক খাতসহ আরও অনেক খাতে কারসাজি করার ফাঁকফোকর রয়েছে। ফলে কারসাজিকারীরা এ দুর্বলতার সুযোগ নিচ্ছেন। ফলে এর প্রভাব সাধারণ বিনিয়োগকারীর ওপর পড়ছে এবং তারাই বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। অর্থাৎ তাদের কষ্টের অর্থ নিয়ে যাচ্ছে।

ইঞ্জিনিয়র রহমত উল্লাহ বলেন, বাজারে মুনাফা করতে হলে বেশি জ্ঞানার্জন করার দরকার নেই। আমরা বাজার সম্পর্কে যতটুকু জানি বা বুঝি সেটি বিশ্বাস করি কি না। আবার সেটি বিশ্বাস করলেও শেয়ার কেনাবেচার ক্ষেত্রে কতটুকু বাস্তবায়ন করি। আসলে বিনিয়োগকারীদের বিশ্বাস ও বাস্তবায়নের মধ্যে অনেক ব্যবধান রয়েছে। যার কারণে টেলিফোনের মাধ্যমে শেয়ার কেনাবেচা করতে পছন্দ করি। আবার ২০১১ সাল থেকে শুনে আসছি শেয়ার কিনে রাখেন এবং আপনারা নিরাপদে থাকবেন এবং লাভবান হবেন। বরং বিনিয়োগকারী আরও বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। কথা হচ্ছেÑএ যদি বাজারের অবস্থা হয়, তাহলে বিনিয়োগকারী কাদের কথা বিশ্বাস করে বিনিয়োগ করবেন।

শ্রুতিলিখন: শিপন আহমেদ

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..