দিনের খবর প্রথম পাতা

ঈদের ছুটি ১০ দিন করার দাবি গার্মেন্ট শ্রমিকদের

নিজস্ব প্রতিবেদক: আসন্ন পবিত্র ঈদুল ফিতরের ছুটি ১০ দিন বাড়ানোর পাশাপাশি দূরপাল্লার যানবাহন চালু করার দাবি গার্মেন্ট শ্রমিকদের।

গতকাল দুপুর দেড়টার দিকে রাজধানীর মিরপুর-১০ নম্বরে আন্দোলনরত শ্রমিকদের দাবি মেনে নেয়ার আশ্বাসে আন্দোলন স্থগিত করার ঘোষণা দিয়েছেন তারা।

বিজিএমইএ কর্মকর্তাদের আশ্বাসে রাস্তা ছাড়েন গার্মেন্ট শ্রমিকরা। এরপর থেকে মিরপুর-১০ নম্বর এলাকায় দুই ঘণ্টা পর যানচলাচল স্বাভাবিক হয়। দাবি দ্রুত মানা না হলে আবারও রাস্তায় নেমে আসার হুশিয়ারি জানান পোশাক শ্রমিকরা। 

আন্দোলনরত শ্রমিকরা জানান, আমরা দেশের দূর-দূরান্ত থেকে ঢাকায় এসে বিভিন্ন গার্মেন্টে কাজ করছি। কিন্তু আমরা ঈদে ছুটি পেয়েছি মাত্র তিন দিন। এর মধ্যে এক দিন যেতে ও আরেক দিন ফিরতে সময় লাগবে। আর মাঝখানে পরিবারের সঙ্গে ঈদ করার সুযোগ পাব মাত্র এক দিন। সারা বছর আমরা কষ্ট করি পরিবার-পরিজন নিয়ে একটু ভালো থাকার জন্য। কিন্তু এত কম ছুটিতে আমরা পরিবারের সঙ্গে ঈদ উদ্যাপন করতে পারি না। তাই ঈদে দেশের সব গার্মেন্ট শ্রমিকদের ১০ দিনের ছুটি দেয়া হোক।

দূরপাল্লার যানবাহন খুলে দেয়ার দাবি জানিয়ে শ্রমিকরা জানান, শুধু ঈদের ১০ দিনের ছুটি দিলেই চলবে না, সঙ্গে দূরপাল্লার যানবাহনও খুলে দিতে হবে। লঞ্চ, ট্রেন ও বাস খোলা না থাকলে তারা বাড়ি যেতে পারবে না। তাই ছুটির পাশাপাশি যানবাহন খোলারও দাবি করেছেন তারা।

আন্দোলনরত শ্রমিক একরাম হোসেন বলেন, আজ বিকালে বিজিএমইএ ভবনে আমাদের দাবির বিষয়ে মিটিং হবে বলে মালিকপক্ষ জানিয়েছে। তাই আমরা আমাদের আন্দোলন আপাতত স্থগিত করছি। তবে আমাদের ১০ দিনের ছুটির দাবি ও দূরপাল্লার যানবাহন চালু করার দাবি মানা না হলে আমরা আবারও আন্দোলনে রাস্তায় নামব।

জানা যায়, সকাল থেকে আন্দোলন কর্মসূচি পালন করলেও বেলা ১১টার দিকে রাজধানীর মিরপুর-১০ নম্বর মোড়ে রাস্তা অবরোধ কর্মসূচি ও বিক্ষোভ মিছিল করতে থাকেন শ্রমিকরা। এ সময় আন্দোলনরত শ্রমিকরা মিরপুর-১০ নম্বর এলাকায় দুটি বাস ভাঙচুর করেন ও পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করেন। 

মিরপুর মডেল থানার ওসি মো. মোস্তাজিরুর রহমান বলেন, বিজিএমইএ ও পুলিশের আশ্বাসে শ্রমিকরা আপাতত রাস্তা ছেড়েছে। তাদের দুই দফা দাবির বিষয়ে বেলা ২টা ৩০ মিনিটের দিকে বিজিএমইএ ভবনে গার্মেন্ট মালিক, শ্রমিকরা ও বিজিএমইএ’র লোকজন মিটিং এ বসে সিদ্ধান্ত নেবে। আর এ সিদ্ধান্ত নেয়ার আশ্বাসে শ্রমিকরা আপাতত তাদের আন্দোলন কর্মসূচি বন্ধ করে রাস্তা ছেড়েছেন। এরপর মিরপুর-১০ নম্বর এলাকায় যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন
ট্যাগ ➧

সর্বশেষ..