দিনের খবর স্পোর্টস

ঈদের পর অনুশীলনে ফিরবেন সাকিব

ক্রীড়া ডেস্ক: দেশের জার্সিতে সবশেষবার সাকিব আল হাসান খেলেছিলেন গত বছরের সেপ্টেম্বরে। এরপর হঠাৎ করেই এ বাঁহাতির ক্যারিয়ার থমকে যায় আইসিসি নিষেধাজ্ঞার কারণে। তবে ভেঙে পড়েননি এ তারকা। সবকিছু ঠিক থাকলে এ বছরের ২৮ অক্টোবরের পর থেকে নিষেধাজ্ঞা উঠে যাবে এ তারকা অলরাউন্ডারের। এজন্যই এ বাঁহাতি ঈদের পর আগামী মাস থেকে অনুশীলনে ফিরবেন। ব্যাপারটি নিজেই ইএসপিএন ক্রিকইনফোর এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন সাকিব।

ম্যাচ ফিক্সিং না করেও শুধু জুয়াড়িদের প্রস্তাব গোপন করায় আইসিসি থেকে এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছিলেন সাকিব। এরপর থেকে এ তারকা অলরাউন্ডার রয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের মেডিসন শহরে। সেখানে পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাচ্ছেন এ বাঁহাতি। আরও কিছুদিন পরিবারকে সময় দিয়ে আগামী মাসেই নেমে পড়বেন অনুশীলনে। গুঞ্জন শোনা গেছে, ইংল্যান্ডে বিশেষ ব্যবস্থায় অনুশীলন করবেন সাকিব।

এ ব্যাপারে ইএসপিএন ক্রিকইনফোর এক সাক্ষাৎকারে সাকিব বলেছেন, ‘আগামী মাস থেকেই আমার অনুশীলনে ফেরার কথা। তিন মাস সময় পাব নিজেকে ভালো মতো প্রস্তুত করার জন্য। আমি এত দিন কিছু করিনি। এই তিন মাসই যথেষ্ট, নিজেকে ক্রিকেটের জন্য আদর্শ গড়নে নিয়ে যাওয়ার জন্য। আপাতত এটাই পরিকল্পনা। আগামী দুই সপ্তাহ মেয়েদের দেখাশোনা করেই কাটবে, পরিবারের সঙ্গে কাটাব। এরপর আমি ক্রিকেটে মনোযোগ দেব।’

সাকিব শুরু থেকে স্বীকার করে গেছেন, এটা তার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বড় ভুল ছিল। বাংলাদেশ ক্রিকেটের এই পোস্টারবয় চান, বাকীসব ক্রিকেটার তার এই ভুল থেকে শিক্ষা গ্রহণ করুক। একই পথে আর পা না বাড়াক, ‘আপনাকে অবশ্যই সৎ হতে হবে। আপনি মানুষের কাছে মিথ্যা বলে এবং ভিন্ন আচরণ করে পার পাবেন না।

যা ঘটেছে, সেটা ঘটে গেছে। মানুষ মাত্রই ভুল করে। কেউ শতভাগ সঠিক না। আর তাই আকসুর কাছে আমি শুরু থেকে সৎ থাকার চেষ্টা করে গেছি। যখন আমাকে এই সম্পর্কে জিজ্ঞেস করা হয়েছিল, আমি কিছুই লুকানোর চেষ্টা করিনি। সবচেয়ে বড় বিষয় আপনি কিভাবে আপনার ভুলগুলো থেকে শিক্ষা নিয়ে এগিয়ে যেতে পারছেন। আমি আমার ভুলের জন্য ক্ষমা চেয়েছি এবং আমি এখান থেকে কেবল সামনে এগুতে চাই। আমি চাই সবাই এখান থেকে শিক্ষা গ্রহণ করুক এবং আর যেন কেউ এমন ভুল না করে।’

সাকিব আরও বলেন, ‘আমার মতো একজন ক্রিকেটারের এমন ভুল করা উচিত হয়নি। এটা অন্য কারো সাথেই হতে পারতো, তাহলে আমি শিখতে পারতাম। কিন্তু এটা আমার সাথেই ঘটে গেছে, তাই অন্যরা আমাকে দেখে শিখতে পারে। আমি আমার ভুলগুলো সম্পর্কে বাকীদের জানাবো। তাদের এই পথ সম্পর্কে বলবো। তাহলে তারা আর এই পথে পা বাড়াবে না।’

সাকিব দেশের জার্সিতে সবশেষবার খেলেছিলেন গত বছরের সেপ্টেম্বরে। আফগানিস্তানের বিপক্ষে ওয়ানডেতে তিনিই হয়েছিলেন ম্যাচসেরা। এরপর এ তারকা প্রস্তুতি নিচ্ছেন ভারত সফরর। ঠিক সে সময় আইসিসি থেকে এক বছরের নিষেধাজ্ঞা পান তিনি। মূহুর্তের মধ্যে তার ক্যারিয়ার পড়ে যায় হুমকির মুখে। তবে একটুও ভেঙে পড়েননি সাকিব। সব সময় মনে রেখেছেন সাহস। স্বপ্ন দেখেছেন একদিন সব ঠিক হয়ে যাবে। চলতি বছরের অক্টোবরের শেষ দিকে সবকিছু ঠিক থাকলে তার স্বপ্নই সত্যি হবে। আর তাই ভক্তরা ফের এ তারকাকে দেখবেন চেনা পরিবেশে আগের মতোই ব্যাট-বলে ঝড় তুলতে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..