পুঁজিবাজার বাজার বিশ্লেষণ

উত্থানের মধ্য দিয়েই লেনদেন শেষ

নিজস্ব প্রতিবেদক: দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গতকালও (বৃহস্পতিবার) মূল্যসূচকে আগের দিনের ধারাবাহিকতা অব্যাহত ছিল। ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স ১৮ পয়েন্ট বেড়ে চার হাজার ৯২৫তে দাঁড়িয়েছে। যা এর আগের কার্যদিবসে ৯০৬ পয়েন্টে অবস্থান করছিল। এর আগে ২০১৫ সালের জানুয়ারিতে ডিএসই সার্বিক সূচক ৪৯০০ পয়েন্টের ওপরে ছিল। অন্যদিকে ডিএসইতে লেনদেন কমলেও এক হাজার কোটি টাকার ওপরে ছিল। সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে গতকাল ডিএসইতে এক হাজার ২৩ কোটি পাঁচ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। যা আগের দিনের তুলনায় ৪১ কোটি ৫৮ লাখ টাকা কম। আগের দিন এ বাজারে এক হাজার ৬৪ কোটি ৬৩ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছিল।

এদিকে ডিএসইএক্স সূচক ১৮ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে চার হাজার ৯২৫ পয়েন্টে। ডিএসইএস বা শরিয়াহ সূচক তিন পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে এক হাজার ১৭২ পয়েন্টে। আর ডিএস৩০ সূচকও আট পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে এক হাজার ৮০৬ পয়েন্টে।

ডিএসইতে গতকাল মোট লেনদেনে অংশ নেয় ৩২১টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ার। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১১৮টির, কমেছে ১৫৫টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৮টি।

দিনশেষে অপর পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও (সিএসই) সূচকের উত্থানে লেনদেন শেষ হয়েছে। সিএসইতে ৯৪ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। সিএসই সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ১৫ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৫ হাজার ১০০ পয়েন্টে। সিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ২৫২টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ার। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৮৫টির, কমেছে ১৩৪টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৩টির।

এদিকে ডিএসইতে টপ টেন গেইনার বা দর বাড়ার শীর্ষে ছিল ইসলামিক ফাইন্যান্স। গতকাল শেয়ারটির দর বেড়েছে এক টাকা ৬০ পয়সা বা ৯ দশমিক ৮২ শতাংশ। এদিন শেয়ারটির সর্বশেষ ১৭ টাকা ৯০ পয়সা দরে লেনদেন হয়। কোম্পানিটি এক হাজার ৯৪৯ বারে ৮৪ লাখ ২৫ হাজার ৩৩১টি শেয়ার লেনদেন করে।

এ তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে ছিল জেএমআই সিরিঞ্জ অ্যান্ড মেডিক্যাল ডিভাইস। এই শেয়ারের দর ১২ টাকা ৪০ পয়সা বা সাত দশমিক ৭২ শতাংশ বেড়েছে। শেয়ারটি সর্বশেষ ১৭৩ টাকা ১০ পয়সা দরে লেনদেন হয়। এদিন কোম্পানিটি দুই হাজার ৯৭ বারে চার লাখ ৩৯ হাজার ৩৯৬টি শেয়ার লেনদেন করে। গেইনারের তৃতীয় স্থানে থাকা লাফার্জ সুরমা সিমেন্টের শেয়ারদর পাঁচ টাকা ১০ পয়সা বা ছয় দশমিক ১৬ শতাংশ বেড়েছে। এ তালিকায় থাকা অন্য কোম্পানিগুলো হচ্ছে: এবি ব্যাংক, ইস্টার্ন হাউজিং, রিপাবলিক ইন্স্যুরেন্স, নর্দার্ন জেনারেল ইন্স্যুরেন্স, মার্কেন্টাইল ইন্স্যুরেন্স, সেন্ট্রাল ইন্স্যুরেন্স ও সিটি জেনারেল ইন্স্যুরেন্স।

এদিকে ডিএসইতে টপ টেন লুজারের শীর্ষে উঠে আসে ওয়েস্টার্ন মেরিন শিপইয়ার্ড। এদিন কোম্পানির শেয়ারদর কমেছে পাঁচ দশমিক ১৭ শতাংশ। গতকাল লেনদেন শেষে কোম্পানির শেয়ারের সমাপনী মূল্য দাঁড়িয়েছে ৩১ টাকা ৩০ পয়সা। এদিন কোম্পানির শেয়ার ৩০ টাকা থেকে ৩৩ টাকায় লেনদেন হয়। দর হারানোর শীর্ষ অন্য কোম্পানিগুলোর মধ্যে আইসিবি এমপ্লয়িজ প্রভিডেন্ড ফান্ডের দর চার দশমিক ৭৬ শতাংশ, রহিমা ফুডের ছয় দশমিক ৩৫ শতাংশ, সিনোবাংলার পাঁচ দশমিক ৫২ শতাংশ, বেক্সিমকো সিনথেটিকসের চার দশমিক ১০ শতাংশ, জিবিবি পাওয়ারের তিন দশমিক ৯৬ শতাংশ, এইচআর টেক্সটাইলের তিন দশমিক ৭৭ শতাংশ, স্টাইল ক্র্যাফটের তিন দশমিক ৬০ শতাংশ, মুন্নু সিরামিকসের তিন দশমিক ৫৭ শতাংশ ও ড্রাগন সোয়েটারের দর তিন দশমিক ৫২ শতাংশ কমেছে।

 

সর্বশেষ..