কোম্পানি সংবাদ

উভয় বাজারে সূচক কমলেও লেনদেন বেড়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক:উভয় পুঁজিবাজারে গতকাল লেনদেন বাড়লেও বেশিরভাগ শেয়ারের দর ও সূচক কমেছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গতকাল সব সূচকের পতন হয়। তবে উভয় বাজার মিলে লেনদেন বেড়েছে প্রায় ২৬ কোটি টাকা। সূচকের উত্থান দিয়ে লেনদেন শুরু হলেও বেলা ১১টার পর বিক্রির চাপে সূচকে পতন নেমে আসে। শেষ পর্যন্ত ৩০ পয়েন্ট নেতিবাচক অবস্থানে থেকে লেনদেন শেষ হয়। লেনদেন ৪০০ কোটির ঘরে উঠে আসে। চিটাগং স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচক ও শেয়ারদরে একই চিত্র লক্ষ করা গেছে।

বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স৩০ দশমিক ৪৩ পয়েন্ট বা দশমিক ৬৪ শতাংশ কমে চার হাজার ৬৯১ দশমিক ৯৩ পয়েন্টে অবস্থান করে।   

ডিএসইএস বা শরিয়াহ্ সূচক ১০ দশমিক ৯৪ পয়েন্ট বা এক শতাংশ কমে এক হাজার ৭৫ দশমিক ৪৪ পয়েন্টে অবস্থান করে। আর ডিএস৩০ সূচক ১৫ দশমিক ৯১ পয়েন্ট বা দশমিক ৯৫ শতাংশ কমে এক হাজার ৬৪৫ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল ডিএসইর বাজার মূলধন তিন লাখ ৫৫ হাজার ৬৬৬ কোটি টাকা হয়। ডিএসইতে গতকাল লেনদেন হয় ৪০৬ কোটি ৩৪ লাখ ৬১ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৩৮০ কোটি ৮৩ লাখ ৩৭ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসেবে লেনদেন বেড়েছে ২৫ কোটি ৫১ লাখ ২৪ হাজার টাকা। এদিন ১২ কোটি ২০ লাখ ৩৮ হাজার ৩৪২ শেয়ার এক লাখ ১৭ হাজার ৭২৬ বার হাতবদল হয়। লেনদেন হওয়া ৩৪০ কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৩২টির, কমেছে ১৬১টির ও অপরিবর্তিত ছিল ৪৭টির দর।

গতকাল টাকার অঙ্কে লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে গ্রামীণফোন লিমিটেড। ২১ কোটি ৫০ লাখ টাকায় কোম্পানিটির ছয় লাখ ৬৩ হাজার ৯৪৬ শেয়ার লেনদেন হয়। শেয়ারটির দর দুই টাকা বেড়েছে। দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা স্কয়ার ফার্মার ২০ কোটি ৯৮ লাখ ৭৮ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দর কমেছে ১৯ টাকা ৯০ পয়সা। এরপর ন্যাশনাল টিউবসের ১৬ কোটি ৭৮ লাখ টাকার, এশিয়া ইন্স্যুরেন্সের ১২ কোটি ৯০ লাখ টাকার ও ওয়াটা কেমিক্যালের ১২ কোটি ৮১ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। এর পরের অবস্থানগুলোয় থাকা সোনার বাংলা ইন্স্যুরেন্সের ১১ কোটি ২২ লাখ টাকার, বীকন ফার্মাসিউটিক্যালসের আট কোটি ৬৮ লাখ টাকার, জেনেক্স ইনফোসিসের আট কোটি ৩৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

৯ দশমিক চার শতাংশ বেড়ে দর বৃদ্ধির শীর্ষে উঠে আসে বাংলাদেশ অটোকারস লিমিটেড। এরপর বীকন ফার্মাসিউটিক্যালসের সাত দশমিক ৯৮ শতাংশ ও এমএল ডায়িংয়ের সাত দশমিক ৯৬ শতাংশ, ন্যাশনাল টিউবসের সাত দশমিক ২৮ শতাংশ ও এশিয়া ইন্স্যুরেন্সের দর ছয় দশমিক ৯৩ শতাংশ বেড়েছে। পাইওনিয়ার ইন্স্যুরেন্সের ছয় দশমিক ৬৮ শতাংশ, কে অ্যান্ড কিউর ছয় দশমিক ১৪ শতাংশ, এমআই সিমেন্টের ছয় দশমিক ছয় শতাংশ,  সোনার বাংলা ইন্স্যুরেন্সের পাঁচ দশমিক ৭৮ শতাংশ ও ইউনিক হোটেল অ্যান্ড রিসোর্টের দর চার দশমিক ৯২ শতাংশ বেড়েছে। অন্যদিকে ১৮ দশমিক ৩৩ শতাংশ দর কমেছে ওয়াটা কেমিক্যালের।

চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) গতকাল সিএসসিএক্স মূল্যসূচক ৪৬ দশমিক ১৭ পয়েন্ট বা দশমিক ৫২ শতাংশ কমে আট হাজার ৬৭০ পয়েন্টে এবং সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৭১ দশমিক ৩৭ পয়েন্ট বা দশমিক ৪৯ শতাংশ কমে ১৪ হাজার ২৬৩ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল সর্বমোট ২৪১ কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ার এবং ইউনিট লেনদেন হয়। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৯১টির, কমেছে ১১১টির ও অপরিবর্তিত ছিল ৩৯টির দর।

সিএসইতে এদিন ১৫ কোটি ৬১ লাখ ২৭ হাজার ১৮৩ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়। আগের দিন লেনদেন হয় ১৪ কোটি ৯২ লাখ ২২ হাজার ৮২৪ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসেবে লেনদেন বেড়েছে ৬৯ লাখ চার হাজার ৩৫৮ টাকা। সিএসইতে গতকাল লেনদেনের শীর্ষে অবস্থান করে মার্কেন্টাইল ইন্স্যুরেন্স। কোম্পানিটির এক কোটি ৪৭ লাখ ৮০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..