দিনের খবর পুঁজিবাজার বাজার বিশ্লেষণ

উভয় বাজারে সূচক শেয়ারদর ও লেনদেনে ইতিবাচক গতি

নিজস্ব প্রতিবেদক

সপ্তাহের তৃতীয় দিনে ইতিবাচক গতি দেখা গেছে পুঁজিবাজারে। বেশিরভাগ শেয়ারদর বৃদ্ধির পাশাপাশি সূচক ও লেনদেনে ছিল ইতিবাচক গতি। গতকাল ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ৫৫ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। কমেছে মাত্র ২৯ শতাংশের। লেনদেনের শুরুতে সূচকের উত্থান হয়। বেলা সোয়া ১১টার পর বিক্রির চাপ বাড়লে সূচক নেমে যায়। সাড়ে ১২টার পর ফের বাড়তে থাকে সূচকের গতি। বেলা ২টা পর্যন্ত সূচক ঊর্ধ্বগতিতে থাকে। শেষ ৩০ মিনিটে সামান্য নেমে গেলেও লেনদেন শেষে ২৫ পয়েন্ট ইতিবাচক ছিল ডিএসইএক্স সূচক। অন্যদিকে চিটাগং স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচক, শেয়ারদর ও লেনদেনে একই চিত্র দেখা গেছে।      

বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ২৫ দশমিক ৩৪ পয়েন্ট বা দশমিক ৫৪ শতাংশ বেড়ে চার হাজার ৭০৩ দশমিক ৭০ পয়েন্টে অবস্থান করে।

ডিএসইএস বা শরিয়াহ্ সূচক ছয় দশমিক ৮৪ পয়েন্ট বা দশমিক ৬৩ শতাংশ বেড়ে                 এক হাজার ৮১ দশমিক ৩৯ পয়েন্টে অবস্থান করে। আর ডিএস৩০ সূচক ১০ দশমিক ৫৩ পয়েন্ট বা দশমিক ৬৪ শতাংশ বেড়ে এক হাজার ৬৩৭ দশমিক ১৪ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল ডিএসইর বাজার মূলধন ৯৫১ কোটি টাকা বেড়ে দাঁড়িয়েছে তিন লাখ ৫৫ হাজার ৭৩৩ কোটি টাকায়। ডিএসইতে লেনদেন হয় ৩০৭ কোটি ৭৬ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ২৬৯ কোটি তিন লাখ ৫৮ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসেবে লেনদেন বেড়েছে ৩৮ কোটি ৭২ লাখ টাকা। এদিন ১০ কোটি ৭৯ লাখ ৭৬ হাজার ৭৮৫ শেয়ার এক লাখ চার হাজার ১৮৮ বার হাতবদল হয়। লেনদেন হওয়া ৩৫০ কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৯২টির, কমেছে ১০১টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ৫৭টির দর।

গতকাল টাকার অঙ্কে লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে ব্র্যাক ব্যাংক। কোম্পানিটির ১৫ কোটি ৬৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দর বেড়েছে তিন টাকা। এরপর ন্যাশনাল টিউবসের ১৪ কোটি ৩৯ লাখ টাকা লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ১৫ টাকা ৩০ পয়সা। ভিএফএস থ্রেডের আট কোটি ৬৪ লাখ টাকা লেনদেন হয়। দর বেড়েছে এক টাকা ১০ পয়সা। সোনার বাংলা ইন্স্যুরেন্সের আট কোটি টাকা লেনদেন হয়, দর কমেছে ১০ পয়সা। সুহূদ ইন্ডাস্ট্রিজের সাত কোটি ৮৭ লাখ টাকা লেনদেন হয়, দর বেড়েছে দুই টাকা ৩০ পয়সা। এছাড়া স্কয়ার ফার্মার সাত কোটি ৬৭ লাখ টাকা লেনদেন হয়, দর কমেছে ৪০ পয়সা। সিলভা ফার্মার ছয় কোটি ৩০ লাখ টাকা, স্ট্যান্ডার্ড সিরামিকের পাঁচ কোটি ৭৮ লাখ টাকা, কপারটেকের পাঁচ কোটি ১৭ লাখ টাকা, ফরচুন শুজের পাঁচ কোটি ১২ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

১০ শতাংশ বেড়ে দর বৃদ্ধির শীর্ষে উঠে আসে ইয়াকিন পলিমার। ন্যাশনাল টিউবসের  দশমিক ৯৪ শতাংশ, মোজাফফর হোসেন স্পিনিংয়ের ৯ দশমিক ৬৩ শতাংশ, আলহাজ্ব টেক্সটাইলের ৯ দশমিক ৩২ শতাংশ, সুহূদ ইন্ডাস্ট্রিজের আট দশমিক ৫২ শতাংশ, কাসেম ইন্ডাস্ট্রিজের আট দশমিক ৩৮ শতাংশ, গ্রীন ডেল্টা ইন্স্যুরেন্সের সাত দশমিক ২২ শতাংশ, কপারটেকের ছয় দশমিক শূন্য ৯ শতাংশ, সিলভা ফার্মার ছয় শতাংশ ও হাক্কানী পাল্পের দর ছয় শতাংশ বেড়েছে। 

ছয় দশমিক ৭৪ শতাংশ দর কমে শীর্ষে উঠে আসে মেঘনা পিইটি ইন্ডাস্ট্রিজ। এমারাল্ড অয়েলের দর পঁচ দশমিক ৭৩ শতাংশ, সিএনএ টেক্সটাইলের পাঁচ শতাংশ, পপুলার লাইফের চার দশমিক ৫৫ শতাংশ, এ্যাপোলো ইস্পাতের চার দশমিক ২৫ শতাংশ, ফ্যামিলি টেক্সের চার শতাংশ, জেনারেশন নেক্সটের তিন দশমিক ৮৪ শতাংশ, মতিন স্পিনিংয়ের তিন দশমিক ৭৩ শতাংশ, সালভো কেমিক্যালের তিন দশমিক ২২ শতাংশ ও এমবিএল ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ডের দর তিন দশমিক ১২ শতাংশ কমেছে।  

অন্যদিকে সিএসইতে গতকাল সিএসসিএক্স মূল্যসূচক ৩২ দশমিক ৮৬ পয়েন্ট বা দশমিক ৩৮ শতাংশ বেড়ে আট হাজার ৬৭৮ দশমিক শূন্য সাত পয়েন্টে এবং সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৫৫ দশমিক ১৭ পয়েন্ট বা দশমিক ৩৮ শতাংশ বেড়ে ১৪ হাজার ২৮০ দশমিক ৬২ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল সর্বমোট ২৬০ কোম্পানি এবং মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১৩৮টির, কমেছে ৮৬টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ৩৬টির দর।

সিএসইতে এদিন ১২ কোটি ১৫ লাখ ২৫ হাজার ৩০১ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ১১ কোটি ১১ লাখ ৯০ হাজার ৫০০ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসাবে লেনদেন বেড়েছে এক কোটি টাকা।

সিএসইতে লেনদেনের শীর্ষে অবস্থান করে ডরিন পাওয়ার। কোম্পানিটির এক কোটি ৭৮ লাখ টাকা লেনদেন হয়। সিলকো ফার্মার এক কোটি ৩২ লাখ টাকার, অ্যাডভেন্ট ফার্মার ৫৮ লাখ টাকার, কপারটেকের ৪০ লাখ টাকার, সিমটেক্সের ৩৫ লাখ টাকার, খুলনা পাওয়ারের ৩১ লাখ টাকার, ব্র্যাক ব্যাংকের ২৮ লাখ টাকার, ভিএফএস থ্রেডের ২৪ লাখ টাকার, প্রিমিয়ার ব্যাংকের ২৩ লাখ টাকার ও বেক্সিমকোর ২৩ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। 

সর্বশেষ..