প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

    ঋণমান অবস্থানে ‘এ২’ পেলো সায়হাম কটন

 

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঋণমান অবস্থানে (ক্রেডিট রেটিং) ‘এ২’ পেলো সায়হাম কটন মিলস লিমিটেড। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

ক্রেডিট রেটিং এজেন্সি অব বাংলাদেশ (সিআরএবি) লিমিটেডের রেটিং অনুযায়ী বস্ত্রখাতের এই কোম্পানিটির রেটিং হয়েছে ‘এ২’। ৩০ জুন ২০১৬ থেকে ৩১ ডিসেম্বর ২০১৬ পর্যন্ত আর্থিক প্রতিবেদনের ভিত্তিতে ও ৩১ ডিসেম্বর ২০১৬ পর্যন্ত অনিরিক্ষিত  প্রতিবেদনের আলোকে এ রেটিং সম্পন্ন হয়েছে।

উল্লেখ্য, ‘এ’ ক্যাটাগরির কোম্পানিটি ২০০২ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়। গতকাল কোম্পানির শেয়ারদর দশমিক ৫৬ শতাংশ বা ১০ পয়সা কমে সর্বশেষ ১৭ টাকা ৯০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল ১৭ টাকা ৯০ পয়সা। দিনভর শেয়ারদর সর্বনি¤œ ১৭ টাকা ৭০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ১৮ টাকা ৪০ পয়সায় ওঠানামা করে। ওইদিন ৯ লাখ ১১ হাজার ৮৯৬টি শেয়ার মোট ৩২০ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর এক কোটি ৬৩ লাখ ৭৩ হাজার টাকা। গত এক বছরে শেয়ারদর ১২ টাকা ১০ পয়সা থেকে ২০ টাকা ২০ পয়সার মধ্যে হাতবদল হয়। কোম্পানির ২০০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ১৪৮ কোটি ৭৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা।

রিজার্ভের পরিমাণ ১১৩ কোটি ২১ লাখ টাকা।

২০১৬ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত সমাপ্ত ১৪ মাসের আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে বিনিয়োগকারীদের জন্য ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছিল। এ সময় শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) করেছিল এক টাকা ১০ পয়সা এবং শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ২২ টাকা ৬৭ পয়সা। কর-পরবর্তী মুনাফা করেছিল ১৬ কোটি ৩৪ লাখ ২০ হাজার টাকা।

২০১৫ সালে বিনিয়োগকারীদের পাঁচ শতাংশ নগদ ও ১০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দিয়েছিল। ওই সময় ইপিএস ছিল এক টাকা ৪০ পয়সা এবং এনএভি ছিল ২৪ টাকা ৯১ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল যথাক্রমে এক টাকা ৪৮ পয়সা ও ২৪ টাকা ১৭ পয়সা। ওই সময় কর-পরবর্তী আয় ছিল ১৮ কোটি ৯৬ লাখ ৩০ হাজার টাকা, যা আগের বছর ছিল ২০ কোটি দুই লাখ ৮০ হাজার টাকা। কোম্পানিটির গেল বছরের প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর) ইপিএস হয়েছে ২৬ পয়সা। ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৬ পর্যন্ত এনএভি দাঁড়িয়েছে ২২ টাকা ৯৩ পয়সা।