প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

একদিনেই বিপরীত চিত্র পুঁজিবাজারে

নিজস্ব প্রতিবেদক: করোনার আতঙ্কে ভয়াবহ পতনের পরদিনই উল্টো চিত্র দেখা গেছে পুঁজিবাজারে। গতকাল ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ডিএসইএক্স সূচকের ১৪৮ পয়েন্ট উত্থান হয়। দর বেড়েছে ৯১ শতাংশ কোম্পানির। লেনদেন কমে ৩২৮ কোটি টাকা হয়েছে। গতকাল লেনদেনের শুরুতে সূচকের উত্থান হয়। তবে ২০ মিনিটের মধ্যে বিক্রির চাপ বাড়লে সূচক কিছুটা নি¤œমুখী হয়। অবশ্য সাড়ে ১১টার পর থেকে সূচকের টানা উত্থান শুরু হয়। শেষ পর্যন্ত তা অব্যাহত থাকে। বাকি দুই সূচকেরও বড় উত্থান হয়েছে। চিটাগং স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) একই চিত্র দেখা গেছে।         

বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ১৪৮ দশমিক ২৬ পয়েন্ট বা তিন দশমিক ৬৯ শতাংশ বেড়ে চার হাজার ১৫৬ দশমিক ৩২ পয়েন্টে অবস্থান করে।

ডিএসইএস বা শরিয়াহ্ সূচক ৩১ দশমিক ১৩ পয়েন্ট বা তিন দশমিক ৩৫ শতাংশ বেড়ে ৯৬০ দশমিক ৪০ পয়েন্টে এবং ডিএস৩০ সূচক ৪৪ দশমিক শূন্য চার পয়েন্ট বা তিন দশমিক ২৭ শতাংশ বেড়ে এক হাজার ৩৯০ দশমিক ১৫ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল ডিএসইর বাজার মূলধন একদিনে আট হাজার ৮৬৪ কোটি টাকা বেড়ে দাঁড়িয়েছে তিন লাখ ২৩ হাজার ৮৩ কোটি ১৭ লাখ ১০ হাজার টাকায়। ডিএসইতে লেনদেন হয় ৩২৮ কোটি ৩৩ লাখ ৫০ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৪৯৯ কোটি ৩৫ লাখ তিন হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসেবে লেনদেন কমেছে ১৭১ কোটি টাকা। এদিন ১৩ কোটি ৭৪ লাখ ৯১ হাজার ৩৫৫ শেয়ার এক লাখ ২১ হাজার ৭৬৮ বার হাতবদল হয়। লেনদেন হওয়া ৩৫৬ কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ৩২৩টির, কমেছে ১৫টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ১৮টির দর।

গতকাল টাকার অঙ্কে লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে স্কয়ার ফার্মা। কোম্পানিটির ১৫ কোটি ২৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ছয় টাকা ৭০ পয়সা। এরপর ওরিয়ন ইনফিউশনের ছয় কোটি ৮৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দর বেড়েছে তিন টাকা ৪০ পয়সা। লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশের ছয় কোটি ৬৬ লাখ টাকা লেনদেন হয়। দর বেড়েছে দুই টাকা ১০ পয়সা। গ্রামীণফোনের ছয় কোটি ৫৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দর বেড়েছে তিন টাকা ৪০ পয়সা। খুলনা প্রিন্টিং অ্যান্ড প্যাকেজিংয়ের ছয় কোটি ১৭ লাখ টাকা লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ৮০ পয়সা। এছাড়া ভিএফএস থ্রেড ডায়িংয়ের পাঁচ কোটি ৬৫ লাখ টাকার, বীকন ফার্মার পাঁচ কোটি ৪৫ লাখ টাকার, এসকে ট্রিমসের পাঁচ কোটি ৪৪ লাখ টাকার, ব্র্যাক ব্যাংকের পাঁচ কোটি ৪১ লাখ টাকার, খুলনা পাওয়ারের পাঁচ কোটি ১৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।  

গতকাল দর বৃদ্ধির শীর্ষে উঠে আসা বাংলাদেশ ন্যাশনাল ইন্স্যুরেন্স, আইসিবি এএমসিএল সোনালী ব্যাংক ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড ও জনতা ইন্স্যুরেন্সের দর ১০ শতাংশ বেড়েছে। চতুর্থ অবস্থানে থাকা নাহি অ্যালুমিনিয়ামের দর ৯ দশমিক ৯৭ শতাংশ, মুন্নু সিরামিকের ৯ দশমিক ৯৪ শতাংশ, পেনিনসুলা চিটাগংয়ের ৯ দশমিক ৯৪ শতাংশ, এপেক্স স্পিনিংয়ের ৯ দশমিক ৯২ শতাশ, গোল্ডেন হার্ভেস্ট এগ্রোর ৯ দশমিক ৮১ শতাংশ, গ্লোবাল হেভী  কেমিক্যালের ৯ দশমিক ৭৩ শতাংশ, ফার  কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজের দর ৯ দশমিক ৬৭ শতাংশ বেড়েছে।            

সাত দশমিক ৪৮ শতাংশ কমে দরপতনের শীর্ষে উঠে আসে সিঙ্গার বিডি। এরপর গ্রীন ডেল্টা ইন্স্যুরেন্সের দর তিন দশমিক ৭৫ শতাংশ কমেছে। ঢাকা ডায়িংয়ের তিন দশমিক ৫৭ শতাংশ, প্রাইম ব্যাংক লিমিটেডের দুই দশমিক ৭৭ শতাংশ, জাহিন টেক্সটাইলের দুই দশমিক ৭৭ শতাংশ, ডেল্টা স্পিনিংয়ের দুই দশমিক ৩৮ শতাংশ, প্রগতি ইন্স্যুরেন্সের এক দশমিক ৭২ শতাংশ, এমবিএল ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ডের এক দশমিক ৫৩ শতাংশ, ইউনাইটেড ইন্স্যুরেন্সের এক দশমিক ২৮ শতাংশ ও জিলবাংলা সুগার মিলের দর দশমিক ৮৮ শতাংশ কমেছে।                   

অন্যদিকে সিএসইতে গতকাল সিএসসিএক্স মূল্যসূচক  ২১১ দশমিক ১৫ পয়েন্ট বা দুই দশমিক ৮২ শতাংশ বেড়ে সাত হাজার ৬৮১ দশমিক ৮২ পয়েন্টে এবং সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৩৪২ দশমিক ৯১ পয়েন্ট বা দুই দশমিক ৭৮ শতাংশ বেড়ে ১২ হাজার ৬৭১ দশমিক ৭০ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল সর্বমোট ২৪৩ কোম্পানি এবং মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১৮০টির, কমেছে ৪৯টির, অপরিবর্তিত ছিল ১৪টির দর।

সিএসইতে এদিন ১২ কোটি ৬৬ লাখ ৪৪ হাজার ৩৭৬ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয় ৭০ কোটি ৩১ লাখ আট হাজার ৫২ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসেবে লেনদেন কমেছে ৫৭ কোটি ৬৪ লাখ টাকা। 

সিএসইতে লেনদেনের শীর্ষে অবস্থান করে লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশ। কোম্পানিটির ৫২ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। এর পরের অবস্থানগুলোয় থাকা খুলনা প্রিন্টিংয়ের ৫১ লাখ, এসকে ট্রিমসের ৪৭ লাখ, এসএস স্টিলের ৪২ লাখ, সি পার্ল রিসোর্টের ৪২ লাখ, অ্যাডভেন্ট ফার্মার ৪২ লাখ, ভিএফএস থ্রেডের ৪২ লাখ, স্কয়ার ফার্মার ৩৬ লাখ, বেক্সিমকোর ৩৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।