এসএমই

এক্সিলেন্স বাংলাদেশের ‘সাহসী পথযাত্রা’



নারী উদ্যোক্তাদের স্বপ্নজয়ের গল্প নিয়ে একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে ব্র্যান্ডিং ফার্ম এক্সিলেন্স বাংলাদেশ। প্রতিষ্ঠানটির এবারের আয়োজনের শিরোনাম ছিল ‘সাহসী পথযাত্রা’। উদ্যোক্তদের গল্পে উঠে আসে ক্যারিয়ার,  বাধাবিপত্তি ও ভবিষ্যৎ ভাবনা।

১১ সেপ্টেম্বর আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে গেস্ট অব অনার ছিলেন ড্যাফোডিল পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষ কে এম হাসান রিপন। বিশেষ অতিথি ছিলেন ফিয়েরোর ফাউন্ডার সিইও সৈয়দ ইয়াসির আলম, অ্যাসিস্ট ম্যানেজমেন্ট কনসাল্টিংয়ের সিইও ও ফিয়েরোর কো-ফাউন্ডার কায়সার হামিদ ও গোল্ড পার্টনার ফারাহ্স ওয়ার্ল্ডের সিইও সামিয়া ফারাহ্।

স্বাগত বক্তব্যে এক্সিলেন্স বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বেনজির আবরার বলেন, এক্সিলেন্স বাংলাদেশ করপোরেট জগতের সফল নারীদের সম্মাননা জানানোর পাশাপাশি আগামীর চলার পথ মসৃণ করতে কর্মপরিকল্পনা গুছিয়ে নিয়েছে।

অধ্যক্ষ কে এম হাসান রিপন বলেন, চতুর্থ শিল্পবিপ্লবে টিকে থাকার জন্য প্রয়োজন দক্ষ মানবসম্পদ। এ বিপ্লবে শামিল হতে নারী ও পুরুষের সমান অংশ নেওয়া নিশ্চিত করা জরুরি। সৈয়দ ইয়াসির আলম বলেন, ফিয়েরো সব সময় তারুণ্যের প্রতিনিধিত্ব করে। কায়সার হামিদ বলেন, সোনার বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে কাজ করে চলেছেন এমন হাজারো সফল নারী।

আয়োজনটিতে তিনটি প্যানেলে অতিথি ছিলেন উইমেন অ্যান্ড ই-কমার্স ফোরামের (উই) প্রতিষ্ঠাতা ও প্রেসিডেন্ট নাছিমা আক্তার নিশা, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সিনিয়র অ্যাসিস্টেন্ট ডিরেক্টর আমেনা হাসান, এইচআর প্রফেশনাল আলেয়া পারভীন লীনা, বেস্টসেলারের প্রধান মানবসম্পদ কর্মকর্তা আকলিমা ইয়াসমিন, ডিবিএল গ্রুপের ডেপুটি ম্যানেজার (রিক্রুটমেন্ট) তানিয়া জাহিদ, স্টার সিনেপ্লেক্সের প্রধান

মানবসম্পদ কর্মকর্তা লায়লা নাজনীন, দ্য বিজনেস স্ট্যান্ডার্ডের প্রধান মানবসম্পদ কর্মকর্তা ফারহানা রহমান উর্মী, বি পজিটিভ কমিউনিকেশনসের ফাউন্ডার সেহেলী আজিজ মৌ প্রমুখ।

সাহসী পথযাত্রার পার্টনার ছিল বিএসডিআই ও ওয়ার্কসফেয়ার স্কিল ডেভেলপমেন্ট ইনস্টিটিউট।



সর্বশেষ..