কোম্পানি সংবাদ

এপেক্স ট্যানারির নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা

নিজস্ব প্রতিবেদক: ২০১৯ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাববছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে ৩৫ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে চামড়া শিল্প খাতের কোম্পানি এপেক্স ট্যানারি লিমিটেড। আলোচিত সময়ে শেয়ারপ্রতি আয় হয়েছে এক টাকা ৪১ পয়সা, আর ২০১৯ সালের ৩০ জুন তারিখে শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য দাঁড়িয়েছে ৬৯ টাকা ২১ পয়সা। আলোচিত সময় শেয়ারপ্রতি নগদ অর্থপ্রবাহ লোকসান হয়েছে ১৬ টাকা ১২ পয়সা। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
২০১৯ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাববছরের ঘোষিত লভ্যাংশ বিনিয়োগকারীদের সম্মতিক্রমে অনুমোদনের জন্য আগামী ২১ অক্টোবর সকাল ১০টায় রাজধানীর গুলশান-১ এ অবস্থিত বাংলাদেশ শুটিং স্পোর্টস ফেডারেশনে বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে। এ জন্য রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ২৫ সেপ্টেম্বর।
এদিকে, গতকাল ডিএসইতে কোম্পানিটির শেয়ারদর শূন্য দশমিক ৬২ শতাংশ বা ৮০ পয়সা কমে প্রতিটি শেয়ার সর্বশেষ ১২৭ টাকা ৪০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল ১২৭ টাকা ৭০ পয়সা। দিনজুড়ে ৩০ হাজার ৭২৪টি শেয়ার ২৫১ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর ৩৯ লাখ ৫৩ হাজার টাকা। দিনভর শেয়ারদর সর্বনিম্ন ১২৬ টাকা ৫০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ১৩১ টাকা ১০ পয়সায় হাতবদল হয়। গত এক বছরে শেয়ারদর ১২৩ টাকা থেকে ১৫৮ টাকা ৬০ পয়সার মধ্যে ওঠানামা করে।
এর আগে ২০১৮ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাববছরে কোম্পানিটি ৪০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। আলোচিত সময়ে ইপিএস হয়েছে দুই টাকা ৫৩ পয়সা এবং এনএভি দাঁড়িয়েছে ৭২ টাকা ২৪ পয়সা। ওই সময় কর-পরবর্তী মুনাফা করেছে তিন কোটি ৮৬ লাখ টাকা। কোম্পানিটি ২০১৭ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাবছরের ৪০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছে। যা তার আগের বছরের সমান। আলোচিত সময় ইপিএস হয়েছে দুই টাকা ৯৫ পয়সা ও এনএভি দাঁড়িয়েছে ৭৩ টাকা ৫৬ পয়সা। যা তার আগের বছর একই সময় ছিল যথাক্রমে পাঁচ টাকা ৯৭ পয়সা ও ৭৪ টাকা ৭২ পয়সা। ২০১৭ সালে মুনাফা হয়েছে চার কোটি ৫০ লাখ ৩০ হাজার টাকা। যা আগের বছর একই সময় ছিল ৯ কোটি ৯ লাখ ৯০ হাজার টাকা।
চামড়া শিল্প খাতের এ কোম্পানিটি ১৯৮৫ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়ে বর্তমানে ‘এ’ ক্যাটেগরিতে অবস্থান করছে। ৫০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ১৫ কোটি ২৪ লাখ টাকা। কোম্পানির রিজার্ভের পরিমাণ ৫২ কোটি ৯ লাখ ২০ হাজার টাকা। কোম্পানিটির মোট এক কোটি ৫২ লাখ ৪০ হাজার শেয়ার রয়েছে। ডিএসইর সর্বশেষ তথ্যমতে, কোম্পানির মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের কাছে ৪১ দশমিক ৯৪ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক ২২ দশমিক ৩৮ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীর কাছে বাকি ৩৫ দশমিক ৬৮ শতাংশ শেয়ার রয়েছে।
সর্বশেষ বার্ষিক প্রতিবেদন ও বাজারদরের ভিত্তিতে শেয়ারের মূল্য আয় (পিই) অনুপাত ৫০ দশমিক ৪৭ এবং হালনাগাদ অনিরীক্ষিত ইপিএসের ভিত্তিতে ৯০ দশমিক ৫৭।

সর্বশেষ..